এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

‘কারার ওই লৌহ কপাট’ গানের রহমান ভার্সন সরানোর নির্দেশ হাইকোর্টের

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাংলাদেশ: গতবছর অক্টোবরে মুক্তি পায় ঈশান খট্টর এবং ম্রুণাল ঠাকুরের অভিনীত ‘পিপ্পা’। ছবিটি বক্সঅফিসে তেমন সাফল্য অর্জন করতে না পারলেও ঈশান খট্টর এবং ম্রুণাল ঠাকুরের অভিনয়ের প্রশংসা এখনও সবার মুখে মুখে। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের কাহিনি অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে বলিউড সিনেমা ‘পিপ্পা’। যাই হোক, ছবিটি ২০২৩ সালের অন্যতম বিতর্কিত ছবি ছিল, তার কারণ একটাই! গানটিতে ব্যবহার করা হয়েছিল জাতির কবি নজরুল ইসলামের বিখ্যাত গান ‘কারার ঐ লৌহ কপাট’। যেটি তিনি ১৯২২ সালের ২০ জুন লিখেছিলেন। পরে ১৯৪৯ সালের জুন মাসে গিরিন চক্রবর্তীর গলায় রেকর্ড করা হয় গানটি। তাই এমন একটি বিখ্যাত গানের রিমেকের বিকৃতি ঘটিয়ে দেশের সঙ্গীতমহলে রীতিমতো হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন অস্কার এবং জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত এ আর রহমান।

গানটি ব্যবহারের জন্যে নজরুলের পরিবারের তরফ থেকে অনুমতি নেওয়া হইলেও গানের বিকৃতি ঘটানোর কোনও অনুমতি দেওয়া হয়নি। সুতরাং কীভাবে এই গানের বিকৃতি ঘটালেন এ আর রহমানের মতো সুরকার, সেটাই তখন বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন! এমনকী বিষয়টি ভাল চোখে দেখেননি পশ্চিমবঙ্গের একাধিক সঙ্গীতশিল্পী এবং বাংলাদেশে থাকা নজরুলেল পরিবারও। যা গড়ায় আইন পর্যন্তও। নজরুলের পরিবারও গানটিকে বিভিন্ন সোশ্যাল মাধ্যম এবং ছবি থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি তুলে আদালতে মামলা করেছিল। গানটির বিকৃতি ঘটানো নিয়ে প্রথম অভিযোগ তোলেন, নজরুলের নাতি অনির্বাণ কাজী। এবার সোশ্যাল মিডিয়া থেকে এ আর রহমানের সুরে গাঁথা ‘কারার ওই লৌহ কপাট’ গানের রিমেক ভার্সনটি সরাতে নির্দেশ দিল বাংলাদেশ হাইকোর্ট। মঙ্গলবার (০৯ জানুয়ারি) বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। গত ৬ ডিসেম্বর সুপ্রিম কোর্টের ১০ আইনজীবী এই মামলায় রিট দায়ের করেছিলেন।

২০২৩ সালের ১৯ নভেম্বর এই গানের রহমান ভার্সন ফেসবুক, ইউটিউব, নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম, ওটিটি প্ল্যার্টফর্ম, ওয়েবসাইট ও অন্যান্য নেটমাধ্যম থেকে অপসারণ করার জন্যে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু এতে সাড়া না মেলায় রিট দায়ের করা হয়। এবার সেই রায়ের শুনানিতে সকল সোশ্যাল মিডিয়া সাইট থেকে এই গানটিকে অপসারণ করার নির্দেশ দিল হাইকোর্ট। গানটিকে বিকৃত করার অভিযোগ এনে কাজী নজরুল ইসলামের নাতি অনির্বাণ বলেন, রহমানকে সম্পূর্ণ শ্রদ্ধা জানিয়েই জানতে চাই, কে এই গানটির বিকৃত করার অনুমতি দিল রহমানকে? স্বত্ব দেওয়ার সময় তো সুর বদলের কথা বলা হয়নি। কী রকম একটা করে দিয়েছে গানটাকে! গানের ক্রেডিট থেকে তার পরিবারের নাম মুছে ফেলা হোক।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

বিরতি ছাড়াই রোজ ‘৯-৫’ টার ডিউটি, গাড়িতেই লাঞ্চ, হঠাৎ এমন হাল কেন বিগ বি-র?

কেন অ্যাওয়ার্ড শোতে যেতে অপছন্দ আমিরের, জানালেন সুপারস্টার নিজেই

সামান্থাকে ভুলে নতুন প্রেমে মজে নাগা চৈতন্য, শোভিতাকে নিয়ে কোথায় গেলেন?

কুখ্যাত গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইকে রিম্যান্ডে আনতে পারবে না পুলিশ, কেন?

রণবীর সিংয়ের ডিপফেক ভিডিও ভাইরাল, অভিযুক্ত X ব্যবহারকারীর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু

‘রুসলান’-এর প্রচারে কলকাতায় আয়ূষ, শহরবাসীর আতিথেয়তায় মজলেন

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর