এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine




দু’দিন আগেই হয়েছে মৃত্যু, দরজা ভেঙে উদ্ধার জনপ্রিয় তামিল অভিনেতার মৃতদেহ




নিজস্ব প্রতিনিধি: দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রিতে ফের শোকের ছায়া। নিজের বাড়ি থেকে মৃতদেহ উদ্ধার তামিল অভিনেতা প্রদীপ বিজয়নের। তিনি মুলত তামিল চলচ্চিত্রে খলনায়ক ও কমেডি চরিত্রে অভিনয় করে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। অভিনেতাকে বুধবার নিজ বাড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। অভিনেতার বন্ধু তাঁকে প্রথম মৃত অবস্থায় দেখতে পেয়েছিলেন। কারণ দুদিন ধরে তাঁর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না, সেই খোঁজ নিতেই অভিনেতার বাড়িতে এসে তাঁকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান। কিন্তু কী কারণে তাঁর মৃত্যু হয়েছে, তার তদন্ত করছে পুলিশ। এখনও কোনও আনুষ্ঠানিক বিবৃতি প্রকাশ করেনি। প্রদীপ অবিবাহিত ছিলেন। চেন্নাইয়ের পালাভাক্কামের শঙ্করাপুরম ফার্স্ট স্ট্রিটে একাই বসবাস করতেন। অভিনেতার স্বাস্থ্যগত সমস্যা ছিল। সম্প্রতি শ্বাসকষ্ট ও মাথা ঘোরার সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। সেই কারণে বাড়িতেই ছিলেন। কিন্তু কয়েকদিন ধরেই বহুবার ফোন করেও তাঁকে না পাওয়ায় এক বন্ধু তাকে তাঁর বাড়িতে দেখতে যান। এরপর অভিনেতার বাড়ির দরজা তালাবদ্ধ পান বিজয়নের বন্ধু। বহুবার নক করেও প্রদীপ দরজা না খুললে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। এরপর পুলিশ এবং দমকল বাহিনী এসে অভিনেতার বাড়ির দরজা ভেঙে দেয়।

সেখানেই দেখতে পাওয়া যায় যে, মৃত অবস্থায় মাটিতে পড়ে রয়েছেন প্রদীপ। আর মাথায় আঘাতের চিহ্ন স্পষ্ট। এরপর পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে রায়পট্ট সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসকদের কথায়, তাঁর মৃত্যু দুদিন আগেই হয়েছে। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাটিতে পড়ে মাথায় আঘাত পান তিনি। এরপরেই মৃত্যু হয় অভিনেতার। তবে পুলিশ তাঁর মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছে এবং মৃতদেহ ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। প্রদীপের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার পরে, অভিনেত্রী সহকর্মীরা তাঁকে সমবেদনা জানিয়েছেন এক্স হ্যান্ডলে। গায়ক-অভিনেতা সৌন্দর্য বালা নন্দকুমার লিখেছেন, “এটি একটি ধাক্কার মতো ভাই হিসেবে তাকে খুব স্নেহ করতেন। না আমরা প্রতিদিন কথা বলতাম না কিন্তু যখনই একবার আমরা কথা বলতাম স্নেহ খুব অটুট থাকত। আপনি প্রদীপ কে বিজয়ন আন্নাকে খুব মিস করবেন। তোমার আত্মা শান্তিতে থাকুক।”

প্রদীপ বিজয়ন সম্পর্কে

প্রদীপ, প্রদীপ তামিল ইন্ডাস্ট্রিতে নায়ার পাপ্পু নামে পরিচিত, তিনি ২০১৪ সালে কৃষ্ণান জয়রাজ পরিচালিত সোন্না পুরিয়াথুর মাধ্যমে তামিল সিনেমায় আত্মপ্রকাশ করেন। তবে তিনি বিখ্যাত হয়েছিলেন যখন তিনি পি রমেশের ২০১৪ অশোক সেলভান এবং জননী-অভিনীত থেগিদিতে পূর্ণচন্দ্রন (সদাগোপ্পন) চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। ছবিতে তিনি একজন গোয়েন্দা চরিত্রে অভিনয় করে জনপ্রিয়তা পান। তার শেষ ছবি ছিল এস ক্যাথিরেসানের ২০২৩ সালে রাঘব লরেন্সের সঙ্গে রুদ্রান। প্রদীপ ছিলেন একজন কারিগরি স্নাতক যিনি অভিনয়ের প্রতি তার আবেগের কারণে কলিউডে কাজ করতে বেছে নিয়েছিলেন। পাশের সিনেমার সাবটাইটেলিংয়ের কাজও করেছেন তিনি।




Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

বাবার পরিচালিত ছবির শুটিংয়ে গুরুতর আহত বরুণ ধাওয়ান

নিখোঁজ হওয়ার দিনগুলিতে রেলওয়ে প্ল্যাটফর্মে ঘুমোতেন গুরুচরণ, অথচ কেউ চিনতে পারেনি…….

দীপিকা ও ক্যাটরিনার সঙ্গে প্রেমে প্রতারণা, মুখ খুললেন রণবীর কাপুর

দেব, সৌমিতৃষা থেকে ‘দিদি নং ১’ রচনা, একুশের সভামঞ্চে টলিউডের ভিড়

লেন্স পরে কর্ণিয়া নষ্ট, দৃষ্টিশক্তি হারাতে বসেছেন অভিনেত্রী জেসমিন ভাসিন

‘ধরমবীর 2’ ট্রেলার লঞ্চের মঞ্চে গোবিন্দাকে জড়িয়ে ধরলেন সলমান, কী কথা হল তাঁদের?

Advertisement




এক ঝলকে
Advertisement




জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর