2020 New Ad HDFC 04

আফগানিস্তানে যুদ্ধাপরাধে ১৩ সেনাকে বরখাস্ত করছে অস্ট্রেলিয়া

Share Link:

আফগানিস্তানে যুদ্ধাপরাধে ১৩ সেনাকে বরখাস্ত করছে অস্ট্রেলিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: তালিবান জঙ্গিদের শায়েস্তা করতে আফগানিস্তানে গিয়েছিলেন ওরা। কিন্তু তালিবান জঙ্গিদের শায়েস্তা করতে গিয়ে কাবুলিওয়ালার দেশে নিরীহ মানুষের প্রাণ কেড়েছিল ওদের হাতে থাকা আগ্নেয়াস্ত্র। নিরীহ কৃষক, খেতমজুরদের ধরে এনে নিষ্ঠুরভাবে হত্যার লীলাখেলায় মেতে উঠেছিল। তদন্তে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছিল। শেষ পর্যন্ত আফগানিস্তানে যুদ্ধাপরাধের দায়ে দেশের ১৩ সেনা সদস্যকে চাকরি থেকে বরখাস্তের পথে হাঁটছে অস্ট্রেলিয়া সরকার।

শুক্রবার দেশটির সেনাবাহিনীর প্রধান রিক বার জানিয়েছেন, ‘আফগানিস্তানে গিয়ে যুদ্ধাপরাধের মতো জঘন্য ঘটনায় জড়িত সেনা সদস্যদের প্রশাসনিক পদক্ষেপের নোটিশ দেওয়া হয়েছে। যদি ওই নোটিশের সঠিক জবাব দিতে ব্যর্থ হয়, তবে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে তাদের বরখাস্ত করা হবে।’

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা ‘এএফপি’ জানিয়েছে, তালিবানদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের অংশ হিসেবে ২০০২ সাল থেকে আফগানিস্তানে রয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার সেনারা। কিন্তু ২০০৩ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সেনা সদস্যদের বিরুদ্ধে একাধিক যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ ওঠে। তবে মারাত্মক অভিযোগ ছিল, নিরীহ আফগান নাগরিকদের ধরে এনে হত্যা করেছেন তারা। যুদ্ধের জন্য ‘রক্ত’ ঝরাতে নিরস্ত্র বন্দিদের হত্যা করতে সেনাদের প্রতি নির্দেশ দিয়েছিলেন সিনিয়র কমান্ডাররা। অস্ট্রেলিয়ার সেনা আধিকারিক জেনারেল অ্যাঙ্গুস জন ক্যাম্পবেল জানিয়েছেন, ২৩টি পৃথক ঘটনায় ৩৯ জন আফগান নাগরিককে হত্যা করার নির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণ জমা পড়েছে। নিউ সাউথ ওয়েলসের বিচারক পল ব্রেরেটনকে আফগানিস্তানে দেশের সেনা সদস্যদের অমানবিক আচরণ নিয়ে তদন্তের জন্য নিয়োগ করা হয়।

দীর্ঘ দিন ধরে তদন্ত চালিয়ে পল ব্রেরেটন অস্ট্রেলিয়ার প্রতিরক্ষা দফতরকে যে রিপোর্ট দিয়েছেন, তা চমকে ওঠার মতো। ওই রিপোর্টে বলা হয়, ‘যুদ্ধের উত্তাপের’ বাইরে গিয়ে এসব হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে। সামরিক আচরণ ও পেশাগত মূল্যবোধ গুরুতরভাবে লঙ্ঘন হয়েছে। যাদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল, তাদের অধিকাংশকে আগেই ধরে আনা হয়েছিল। নিহতদের মধ্যে বন্দি, কৃষক, শিশু ও স্থানীয় আফগান নাগরিকরা ছিলেন। যখন কোনও একজন নিরস্ত্র আফগান হত্যার শিকার হতেন, তখন সেই হত্যাকাণ্ডের যৌক্তিকতা প্রমাণের জন্য বিদেশি অস্ত্র ও সরঞ্জামাদি দিয়ে একটা কৃত্রিম লড়াইয়ের দৃশ্যপট সাজিয়ে ফেলতেন অভিযুক্ত সেনা সদস্যরা।’ তদন্তের জন্য ২০ হাজার নথি ও ২৫ হাজার ছবি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। আর শপথের ভিত্তিতে ৪২৩ প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

Comm Ad 2020-tantuja-body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-WB Tourism RC

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 026 BM

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের  সমাপ্তি অনুষ্ঠান

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠান

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 026 BM
Comm Ad 006 TBS