WBLDC Adv 011

করোনায় প্রাণ হারালেন বাংলাদেশের গণসঙ্গীত সম্রাট

Share Link:

করোনায় প্রাণ হারালেন বাংলাদেশের গণসঙ্গীত সম্রাট

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা: জীবনের অনেক লড়াইতে জিতেছেন। কিন্তু অদৃশ্য ভাইরাসের সঙ্গে জীবনযুদ্ধে শেষ পর্যন্ত হারই মানতে হলো দেশের কিংবদন্তী গণসঙ্গীত শিল্পী ফকির আলমগীরকে। রাজধানী ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসিইউতে টানা চারদিন লাইফ সাপোর্টে থাকার পরে শুক্রবার রাত দশটা ৫৬ মিনিটে চির ঘুমের দেশে পাড়ি দিয়েছেন একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময়ে গড়ে ওঠা স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অন্যতম শব্দ সৈনিক। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।  তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গিয়েছেন। ফকির আলমগীরের অকালপ্রয়াণে দেশের সংস্কৃতিমহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

দেশের গণসঙ্গীতের সম্রাটের প্রয়ানে শোকপ্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিদেশ মন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্ব এবং সমাজের বিভিন্ন পেশার বিশিষ্টজনেরা। ফকির আলমগীরের শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সমবেদনা জানিয়ে বরেণ্য সঙ্গীত শিল্পীর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘দেশের সঙ্গীতাঙ্গনে বিশেষ করে গণসঙ্গীতকে জনপ্রিয় করে তুলতে তাঁর ভূমিকা স্মরণীয় হয়ে থাকবে’। 

গত ১৪ জুলাই প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন গণসঙ্গীতের সম্রাট ফকির আলমগীর। বাড়িতে থেকে চিকি‍ৎসা নিলেও বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে তাঁর জ্বর ও শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। চিকি‍ৎসকদের পরামর্শে দ্রুত তাঁকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হওয়ায় গত রবিবার আইসিইউ থেকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। শুক্রবার চিকি‍ৎসাধীন অবস্থাতেই হৃদরোগে আক্রান্ত হন। চিকি‍ৎসকদের আপ্রাণ চেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়ে না ফেরার দেশে চলে যান।

১৯৫০ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার কালামৃধা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ফকির আলমগীর। গ্রামের স্কুল থেকে মাধ্যমিক পাশের পরে ঢাকার জগন্নাথ কলেজে ভর্তি হন। পরবর্তী সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় এমএ পাস করেন। ১৯৬৬ সালে ছাত্র ইউনিয়ন মেনন গ্রুপের সদস্য হিসেবে ছাত্র রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ক্রান্তি শিল্পী গোষ্ঠী ও গণশিল্পী গোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে ষাটের দশকে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে সঙ্গীতজগতে প্রবেশ করেন। ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানে এক বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময়ে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে যোগ দেন।

স্বাধীনতার পরে বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনে নিয়মিত সঙ্গীত পরিবেশনার পাশাপাশি প্রচলিত ও প্রথাসিদ্ধ গানের বন্ধ্যা ভূমিতে দেশজ ও পাশ্চাত্য সঙ্গীতের মেলবন্ধন ঘটিয়ে বাংলা গানে নতুন মাত্রা সংযোজন করেন। ১৯৭৬ সালে গড়ে তোলেন  ঋষিজ শিল্পগোষ্ঠী। এই গোষ্ঠীর মাধ্যমে গণসঙ্গীতকে তিনি সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেন।একজন সঙ্গীতশিল্পীর পাশাপাশি একজন সফল লেখক হিসেবেও পরিচিতি লাভ করেছিলেন ফকির আলমগীর। তাঁর লেখা ‘চেনা চিন’, ‘মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ও বিজয়ের গান’, ‘গণসঙ্গীতের অতীত ও বর্তমান’, ‘গণসঙ্গীত ও মুক্তিযুদ্ধ’, ‘মুক্তিযুদ্ধে বিদেশি বন্ধুরা’, ‘আমার কথা’, ‘পপসঙ্গীতের একাল সেকাল’ পাঠক মহলে সমাদৃত হয়েছিল।

সঙ্গীতে বিশেষ অবদানের জন্য ‘একুশে পদক’, ‘শেরে বাংলা পদক’, ‘ভাসানী পদক’, ‘সিকোয়েন্স অ্যাওয়ার্ড অফ অনার’, ‘তর্কবাগীশ স্বর্ণপদক’, ‘জসীমউদ্দীন স্বর্ণপদক’, ‘ক্রান্তিপদক’, ‘গণনাট্য পদক’, ‘গণস্বাস্থ্য মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা’, ‘জনসংযোগ সমিতি পুরস্কার’, ‘ভারতীয় গণনাট্য সংঘ পুরস্কার’, ‘ত্রিপুরা সংস্কৃতি সমন্বয় পুরস্কার’ ও ‘পশ্চিমবঙ্গ সরকার কর্তৃক মহাসম্মাননা’ পুরস্কারে  ভূষিত হয়েছিলেন।

Comm Ad 2020-Valentine body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

2020 New Ad HDFC 05

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

WBLDC Adv 006

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

Voting Poll (Ratio)

WBLDC Adv 008
WBLDC Adv 009