Comm Ad 020 Tantuja

বাংলাদেশিদের গড় আয়ু বেড়ে সাড়ে ৭২ বছর

Share Link:

বাংলাদেশিদের গড় আয়ু বেড়ে সাড়ে ৭২ বছর

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা: ‘মরিতে চাহি না আমি সুন্দর ভুবনে।’ দীর্ঘায়ু যেন মানুষের কাছে এক বড় মোক্ষলাভ। অন্তত বাংলাদেশিদের কাছে তো বটেই। তাই হয়তো বাংলাদেশিদের গড় আয়ু ক্রমশই বেড়ে চলেছে। গত ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে বাংলাদেশিদের গড় আয়ু আরও তিন মাস বেড়েছে। ৭২ বছর তিন মাস থেকে বেড়ে হয়েছে ৭২ বছর ৬ মাস। মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পরিসংখ্যান ভবনে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর ‘মনিটরিং দ্য সিচুয়েশন অফ ভাইটাল স্ট্যাস্টিকস-২০১৯ (এমএসভিএসবি)’ প্রতিবেদনে তেমনটাই প্রকাশ পেয়েছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান।

পরিসংখ্যান ব্যুরোর পরিচালক আশরাফুল হক জানিয়েছেন, ‘আগের বছর অর্থা‍ৎ ২০১৮ সালে বাংলাদেশের নাগরিকদের গড় আয়ু ছিল ৭২ বছর তিন মাস। ওই সময়ে পুরুষদের গড় আয়ু ছিল ৭০ বছর ৮ মাস আর মহিলাদের ৭৩ বছর ৮ মাস। কিন্তু গত বছর সমীক্ষায় সেই আয়ু খানিকটা বেড়েছে। পুরুষদের গড় আয়ু বেড়ে হয়েছে ৭১ বছর ১ মাস আর মহিলাদের গড় আয়ু বেড়ে হয়েছে ৭৪ বছর ২ মাস। এক বছরে বাংলাদেশি পুরুষদের গড় আয়ু বেড়েছে ৫ মাস এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে গড় আয়ু বেড়েছে ৬ মাস।’

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, দেশে স্বাস্থ্য পরিষেবার মান বৃদ্ধি পাওয়ার কারণেই সাম্প্রতিক বছরগুলিতে মানুষের প্রত্যাশিত গড় আয়ু ধারাবাহিকভাবেই বাড়ছে। শিশুমৃত্যুর হার কমে আসার পাশাপাশি দেশে জটিল রোগের চিকিৎসার সুযোগ বৃদ্ধি পাওয়াও গড় আয়ু বাড়ার অন্যতম কারণ। প্রতিবেদনে মহিলাদের পুরুষদের তুলনায় বেশি বেঁচে থাকার কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, তাঁরা দুরারোগ্য ব্যাধি ও উচ্চ রক্তচাপে কম ভোগেন।

2020 New Ad HDFC 04

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 006 TBS

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 023 MZP

নবান্নের কন্ট্রোলরুমে মুখ্যসচিবের সঙ্গে আলোচনায় মুখ্যমন্ত্রী।

নবান্নের কন্ট্রোলরুমে মুখ্যসচিবের সঙ্গে আলোচনায় মুখ্যমন্ত্রী।

বুধবার সারারাত নবান্নে থেকেই পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী।

বুধবার সারারাত নবান্নে থেকেই পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন মুখ্যসচিব, ডিজি-সহ অন্য কর্তারা।

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন মুখ্যসচিব, ডিজি-সহ অন্য কর্তারা।

মঙ্গলবারের পর বুধবার বিকেলেও শহরের বিভিন্ন জায়গায় যান মুখ্যমন্ত্রী।

মঙ্গলবারের পর বুধবার বিকেলেও শহরের বিভিন্ন জায়গায় যান মুখ্যমন্ত্রী।

তাঁর সঙ্গে ছিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা ও মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

তাঁর সঙ্গে ছিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা ও মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

এদিন খিদিরপুর, পার্ক সার্কাস, বালিগঞ্জ ফাঁড়ির মতো দক্ষিণ কলকাতার একাধিক জায়গায় যান।

এদিন খিদিরপুর, পার্ক সার্কাস, বালিগঞ্জ ফাঁড়ির মতো দক্ষিণ কলকাতার একাধিক জায়গায় যান।

এদিনও স্থানীয়দের লকডাউন মেনে চলার অনুরোধ করেন তিনি।

এদিনও স্থানীয়দের লকডাউন মেনে চলার অনুরোধ করেন তিনি।

এই নিয়ে পরপর দু'দিন শহরের বিভিন্ন জায়গায় গেলেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই নিয়ে পরপর দু'দিন শহরের বিভিন্ন জায়গায় গেলেন মুখ্যমন্ত্রী।

তাঁর এই কাজকে তীব্র ভাষায় বিঁধেছেন বিরোধীরা।

তাঁর এই কাজকে তীব্র ভাষায় বিঁধেছেন বিরোধীরা।

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 008 Myra

Editors Choice

Comm Ad 025 Confed