corona 01

কাটা ঘায়ে নুনের ছিটে অনুপমের বার্তা! ক্ষেপে লাল গেরুয়া

Share Link:

কাটা ঘায়ে নুনের ছিটে অনুপমের বার্তা! ক্ষেপে লাল গেরুয়া

নিজস্ব প্রতিনিধি: পশ্চিমবঙ্গের আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ৫০টা আসনও যে জুটবে না সেটা বঙ্গ রাজনীতির চাণক্য হিসাবে পরিচিত এক রাজনীতিবিদ পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছেন বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বকে। যদিও সেই মত মানতে রাজি নন রাজ্য বিজেপির বর্তমান ক্ষমতাবান গোষ্ঠী। তাঁদের হিসাবে রাজ্যে ক্ষমতার পালাবদল তো হচ্ছেই, বিজেপি একক শক্তিতেই ২০০’র কাছাকাছি বা তার বেশি আসন পেতে চলেছে। বিতর্ক যাই হোক না কেন, নানা ইস্যুতে রাজ্য বিজেপির অন্দরে যে এখন কুরুক্ষেত্র বেঁধেছে সে আর অস্বীকারের জায়গা নেই। কার্যত তা এখন বেআব্রু হয়ে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সংবাদমাধ্যম মায় রাস্তাতেও দেখা যাচ্ছে। স্বাভাবিক ভাবেও রাজ্য বিজেপির নেতারাও পড়ে গিয়েছেন চরম অস্বস্তিতে। এই রকম অবস্থায় কাটা ঘায়ে মলম লাগানোর জায়গায় কিনা নিনের ছিটে দিয়ে বসলেন অনুপম হাজরা। তৃণমূলের এই প্রাক্তন সাংসদ যিনি কিনা মুকুলের হাত ধরে সদ্য সদ্য বিজেপিতে পদ পেয়েছেন তিনি রাজ্য বিজেপির নেতাকর্মীদের উপদেশ দিচ্ছেন। সেই উপদেশ না শুনলে আগামী দিনে রাজ্য বিজেপির নেতাদের যে অন্য রাজ্যে মাথা গোঁজার ঠাঁইয়ের ব্যবস্থা করতে হতে পারে সেটাও লিখে দিয়েছেন। আর তাতেই চূড়ান্ত আকারে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে রাজ্য বিজেপির অন্দরে।
 
কী লিখেছেন অনুপম? তৃণমূলের এই প্রাক্তন সাংসদ এখন বিজেপিতে এসে বেশ দল নিবেদিত প্রাণ হয়ে উঠেছেন। অন্তত নিজেকে সে ভাবেই বারে বারে তুলে ধরেন তিনি। ঠিক যেমন ভাবে বিহারে দাঁড়িয়ে রামবিলাস পুত্র চিরাগ পাসোয়ান বলছেন, ‘আমার বুক চিরলে শুধু মোদিরই দেখা মিলবে’। ঠিক সেইরকম ভাবে অনুপমের হৃদয় জুড়ে এখন শুধুই বিজেপি। ভালো কথা, তিনি মনপ্রাণ দিয়ে কাউকে সাবান মাখাতেই পারেন, গোমুত্র পান করতেই পারেন, গায়ে গোবর মেখে স্নান করতেই পারেন, গরুর দিধে সোনা খুঁজে পেতেই পারেন। তাতে কার কী দায় আসে! তবে এখন তিনি বিজেপির নেতাকর্মীদের উপদেশ দিয়েছেন, নিজেদের মধ্যেকার ঝগড়া ভুলে তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। না হলে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের জয় অবশ্যম্ভাবী ও তার পরে পরে রাজ্য বিজেপি নেতাদের এ রাজ্য ছেড়ে ভিন রাজ্যে মাথা গোঁজার ঠাঁইয়ের ব্যবস্থা করে নিতে হবে। আর অনুপমের এই বার্তা পড়েই এখন তেলেবেগুনে জ্বলছে রাজ্য বিজেপির নেতারা।
 
কারন আর কিছুই নয়, এতদিন দলের কোনও নেতাকর্মী নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার পেজে দলের গোষ্ঠোকোন্দলের কথা তুলে কোনও পোস্ট করেননি। কিন্তু অনুপম নিজের ফেসবুক পেজে আজ সেটাই করেছেন। তার জেরে দলের গোষ্ঠীকোন্দলের ঘটনা কার্যত স্বীকারও করে নেওয়া হল। একই সঙ্গে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে দলের পরাজয়ও যে অবশ্যম্ভাবী সেটাও যেন অনুপম তাঁর লেখায় বুঝিয়ে দিয়েছেন। এটাও বুঝিয়ে দিয়েছেন যে, যারা এখন গেরুয়ার মঞ্চে দাঁড়িয়ে মারবো, ধরবো, কাটবো, পিটবো, প্রস্রাব খাওয়াবো, ভিখারি বানিয়ে দেব বলছে পাবলিক ভোটের পরে তাঁদের কাউকেই ছেড়ে কথা বলবে না। কার্যত তখন পাবলিকই দমদম দাওয়াই দেবে তাঁদেরকে। তখন সেই দাওয়াইয়ের হাত থেকে বাঁচতে ভিন রাজ্যে গা ঢাকা দেওয়া ছাড়া আর গতি থাকবে না। এটা বেশ ভালো যে সেই পরিণতি নিজের পরিণত চোখ দিয়ে দেখতে পেয়ে গিয়েছেন অনুপম হাজরা। তাই হয়তো শিক্ষকতার টানেই মাস্টারমশাই সুলভ উপদেশ দিয়েছেন তিনি। কিন্তু রাজ্য বিজেপির নেতাদের কারও কারও মনে হয়েছে, ‘যত বড় মুখ নয় তত বড় কথা’ বলে ফেলেছেন এই প্রাক্তন সাংসদ। সব মিলিয়ে করুক্ষেত্রে চলছে আরও বেশ জাঁকিয়ে।   

Comm Ad 2020-Valentine body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 006 TBS

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 026 BM

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

2020 New Ad HDFC 05

Editors Choice

corona 02