corona 01

মুখে নেই মাস্ক, মানা হচ্ছে শারীরিক দূরত্বও! বিতর্কে বিজেপির ত্রিমূর্তি

Share Link:

মুখে নেই মাস্ক, মানা হচ্ছে শারীরিক দূরত্বও! বিতর্কে বিজেপির ত্রিমূর্তি

নিজস্ব প্রতিনিধি: কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন রয়েছে বিজেপি সরকার। সেই সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কোভিড তথ্য বলছে দেশে কোভিডে মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ১২ হাজার ৯৯৮জন। আক্রান্তের সংখ্যা ৭৪ লক্ষ ৩২ হাজার ৬৮০। আবার এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা অতিক্রম করে ফেলে ৩ লক্ষের সীমা। মৃতের সংখ্যা ৬ হাজার ছুঁই ছুঁই। অথচ সে সচ কিছু দেখেও ঘুম ভাঙছে না গেরুয়া শিবিরের নেতাদের। কার্যত কোভিডকে যে তাঁরা গুরুত্বই দিতে চাইছেন না সেটা আরও একবার প্রমাণিত হল এদিন। আর সেই প্রমাণ রাখলেন কোভিড আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং তাঁকে দেখতে যাওয়া দলের দুই নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও মুকুল রায়। তাঁদের তিনজনের একটি ছবি এদিন ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। যেখানে দেখা যাচ্ছে তিনজনের মুখে মাস্ক তো নেইই, মানা হচ্ছে না শারীরিক দূরত্বও। স্বাভাবিক ভাবেই সেই ছবিকে নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ার পাশাপাশি প্রশ্নের মুখে পড়েছে আমরি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তাঁরাও কিভাবে এই জিনিস মেনে নিলেন তা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন উঠে গিয়েছে।
 
দিলীপবাবুর সঙ্গে থাকা নিরাপত্তারক্ষী থেকে রাঁধুনি মায় তাঁর আরও কিছু ঘনিষ্ঠ নেতানেত্রীদের আগেই কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা সামনে এসেছিল। কিন্তু দিলীপবাবুকে কোনওদিন অসুস্থ হতে দেখা যায়নি। তার জেরে তিনি বেশ চ্যালেঞ্জের সুরেই বলতেন কোভিড এসে তাঁকে দেখে নাকি ফিরে গেছে। তাই তাঁর আর আক্রান্ত হওয়ার ভয় নেই। যদিও নবান্ন অভিযানের দিন কয়েক পরেই অসুস্থ হয়ে নিজেকে ঘরবন্দি করী রাখেন তিনি। গতকালই তাঁর কোভিড টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসায় তড়িঘড়ি সল্টলেকের আমরি হাসপাতালে ভর্তি হন। এখন সেখানেই এইচটিইউতে ভর্তি রয়েছেন। এদিন সেখানেই তাঁকে দেখতে যান কৈলাস ও মুকুল। আর তার পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে ওই ছবি। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠে গিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কেন নিয়ম মেনে চলছে না। কেন যারা মাস্ক পড়ছেন না তাঁদের হাসপাতালের ভেতরে তাঁরা ঢুকতে দিচ্ছেন। সব থেকে বড় কথা একজন কোভিড আক্রান্তের পাশে এই নিয়মবিধি না মানা মানুষগুলি যান কীভাবে!
 
এদিকে হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, দিলীপবাবু এখন আগের থেকে কিছুটা সুস্থ আছেন। জ্বর কিছুটা কমেছে তাঁর। সেইসঙ্গে শরীরে অক্সিজেনের মাত্রাও অনেকটা স্বাভাবিক হয়েছে। কিন্তু ফুসফুসে সমস্যা হওয়ায় বুকের সিটি স্ক্যান করা হয়েছে। সিটি স্ক্যানের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরেই চিকিৎসার পরবর্তী ধাপ ঠিক করবেন চিকিৎসকরা। তাঁর অন্যান্য ভাইটাল প্যারামিটারও স্থিতিশীল রয়েছে। স্বাভাবিক ডায়েটে রাখা হয়েছে দিলীপ ঘোষকে।

Comm Ad 018 Kalna

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 008 Myra

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

2020 New Ad HDFC 05

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-LDC Momo

Editors Choice

Comm Ad 2020-himalaya RC