2020 New Ad HDFC 04

বিজেপিতে না খুশ বনি! দিলীপ-কৌশানিকে নিয়ে খুললেন মুখ

Share Link:

বিজেপিতে না খুশ বনি! দিলীপ-কৌশানিকে নিয়ে খুললেন মুখ

নিজস্ব প্রতিনিধি: টলি পাড়ায় কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে মিঁয়া-বিবি সেফ সাইডের গেম খেলে দিলেন। একজন গেলেন বিরুদ্ধে অন্যজন থাকলেন শাসকের শিবিরেই। দুইজন দুইদিকে। কিন্ত দিন যতই গড়াচ্ছে ততই যেন নতুন শিবিরে অস্বচ্ছন্দ বোধ করছেন মিঁয়া। তা সে বিবির ভিডিও ভাইরাল হওয়া প্রসঙ্গ নিয়েই হোক কী দলের রাজ্য সভাপতির টলিপাড়ার শিল্পীদের 'রগড়ে' দেওয়ার মন্তব্য নিয়েই হোক। এখন থেকেই কিন্তু সুর কাটছে তাঁর নতুন দলে থাকা নিয়ে। আর তাই ফিসফিসানি শুরু হয়ে গিয়েছে রাজ্য রাজনীতি থেকে টলিপাড়ায় ভোট মিটলেন বিবিজানের হাত ধরে ফের ঘাসফুলেই ফিরছেন বনি। মানে বনি সেনগুপ্ত। সেই সম্ভাবনা আরও জোরদার হয়েছে রাজ্যের প্রথম শ্রেনির এক দৈনিক সংবাদপত্রকে দেওয়া তাঁর এক সাক্ষাৎকারে। যদিও ফের দলবদলের সম্ভাবনা নাকচ করেছেন নায়ক নিজেই। 
 
বনি এক দেড় মাস আগেই যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে। শোনা গিয়েছিল, গেরুয়া শিবির তাঁকে প্রার্থী করতে চাইলেও তাতে তিনি রাজি হননি। বরঞ্চ নিজেকে দলের প্রচারের কাজে লাগাবেন বলেই জানিয়েছিলেন। কিন্তু সেই সুর তাল ঠিক মিলছে না। বিজেপির প্রচারে সেভাবে দেখা যাচ্ছে না বনিকে। আর এবার যে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তারপর বিজেপিতে তিনি আর কয়দিন থাকছেন তা নিয়েই কার্যত প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। শোনা যাচ্ছে রাজ্য বিজেপির নেতৃত্ব বেশ ক্ষুব্ধই হয়েছে তাঁর প্রতি। সাক্ষাৎকারের দুটি বিষয় নিয়ে মূলত বিতর্ক ছড়িয়েছে। এক, কৌশানীর ভিডিও কাণ্ডে বনি কাঠগড়ায় তুলেছেন বিজেপিকেই। আর দুই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সাম্প্রতিক কালের মন্তব্য টনিপাড়ার শিল্পীদের 'রগড়ে' দেওয়া মানতে পারেননি বনি।  
 
কিছুদিন আগে বনির বান্ধবী তথা অভিনেত্রী ও তৃণমূলের প্রার্থী কৌশানীর একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। কৃষ্ণনগর উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী হয়ে প্রচারে বেড়িয়েছিলেন কৌশানী। সেখানেই তাঁকে এক জায়গায় বলতে শোনা গিয়েছিল, 'বাড়িতে কিন্তু সকলেরই মা-বোন আছে। ভোটটা বুঝে দিস।' সেই মন্তব্য নিয়ে জলঘোলা হয়েছিল। এখন বনি এই ঘটনায় সরাসরি কাঠগড়ায় তুলেছেন বিজেপিকে। তাঁর দেওয়া সাক্ষাৎকারে বনি বলেছেন, 'খুব খারাপ লাগছে। যা হয়েছে, একেবারেই ঠিক হয়নি। আমি বলেছি, পুরো ভিডিয়ো না দেখিয়ে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে কিছু অংশ কেটে নিয়ে ভাইরাল করা পরিণতমনস্কতা নয়। এটা বিজেপি-কে মানায় না। পাশাপাশি এটাও কৌশানীকে বলেছি, তোমার বলার ভঙ্গি, শরীরী ভাষা ঠিক ছিল না। বোঝাই, কিছু বিষয় আছে সেটা নিয়ে মুখ না খোলাই ভাল। আসলে, কথার পিঠে কথায় অনেক অপ্রিয় প্রসঙ্গ মুখ ফসকে বেরিয়ে যায়। ওরও সেটাই হয়েছে। তার জন্য এ ভাবে টার্গেট করাটাও ঠিক হয়নি।' কৌশানীকাণ্ডে বিজেপিকে নিয়ে বনির এহেন মন্তব্যে ক্ষুব্ধ রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব।
 
আবার সেই ক্ষোভ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে খোদ দিলীপ ঘোষকে নিয়ে বনি মুখ খোলায়। দিলীপের টলি শিল্পীদের 'রগড়ে' দেওয়া মন্তব্য প্রসঙ্গে বনি তাঁর সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, 'আমি বুঝতেই পারলাম না, কেন এমন মন্তব্য করলেন রাজ্য সভাপতি। খুব খারাপ লেগেছে। ওঁর মুখ থেকে এ ধরনের কথা আশা করিনি। দলের সবাই যথেষ্ট সম্মান করছিলেন। হঠাৎ এ রকম একটা মন্তব্য শিল্পীদের নিয়ে! একেবারেই ঠিক নয়। যিনি যে পেশাতেই থাকুন, দিনের শেষে তিনি মানুষ। দিলীপ ঘোষ নিজেই বলেছেন, সবাই দেশের নাগরিক। এর পর এই কথা আমি অন্তত মেনে নিতে পারছি না।'
 
আর এই জায়গা থেকেই প্রশ্ন উঠে আসছে দলের সঙ্গে যদি মানাতে নাই পারেন তাহলে পদ্মশিবিরে আর কয়দিন থাকবেন? যদিও দলবদলের সম্ভাবনা খারিজ করেছেন নায়ক। এমনকি দলের হয়ে প্রচারে সেভাবে তাঁকে দেখা যাচ্ছে না সেই নিয়েও মুখ খুলেছেন তিনি। বলেছেন, '১০ বছর ধরে আমার মা পিয়া সেনগুপ্ত তৃণমূল করছেন। এ বছর তাঁকে টিকিট দেওয়া হবে বলেও দেওয়া হল না। খারাপ লেগেছে। আমায় প্রত্যন্ত অঞ্চলে পাঠানো হত প্রচারে। মুখ বুজে চলে যেতাম। তার পরেও দেখছি, দলে যেন জায়গা নেই! কোনও কথা থাকে না। বিপদে সাহায্য চেয়েও পাইনি। সুপ্রিমোর সঙ্গে কথা বলতে হত তাঁর অধস্তনদের মাধ্যমে। একটা সময়ের পরে আত্মসম্মানে বাধছিল। প্রতি পদে যেন অপমানিত হচ্ছিলাম। সেখানে বিজেপি-র সদস্য, নেতা-মন্ত্রীরা যথেষ্ট বিনয়ী, আন্তরিক। তাই ভেবেচিন্তে সরে গেলাম। ওঁরা সম্মান দিচ্ছেন আমায়। গুরুত্ব দিচ্ছেন। দিলীপ ঘোষ, সব্যসাচী দত্ত, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে, ওঁদের অনুরোধে একদম শেষ মুহূর্তে বিজেপি-তে যোগ দিলাম। দল টিকিট দিতে চেয়েছিল। আমি রাজি হইনি। হাতে খুব অল্প সময়। যে অঞ্চলেই দিক, সেখানে নিজের পরিচিতি তৈরি করে জেতাটা চাপ ছিল। একটা টিকিট পাওয়ার জন্য দলে ঢুকেই এত বড় ঝুঁকি নিতে চাইনি। তার থেকে এই নির্বাচনে প্রচারের দায়িত্ব সামলানোই সঠিক সিদ্ধান্ত বলে মনে হল। আর আমি কিন্তু প্রচারে যাচ্ছি। শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে যাচ্ছি না হয়তো। কিন্তু ওঁর হয়েই প্রচারে গিয়েছি। ২৮ থেকে ৩০ মার্চ নন্দীগ্রামে ছিলাম। পর পর যাব ডোমজুড়, সিঙ্গুর, আদিসপ্তগ্রাম, চুঁচুড়া।'

Comm Ad 005 TBS

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-Valentine RC

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

corona 02

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

 আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

পূর্বস্থলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১ নং ব্লকের, বেগপুর অঞ্চলের পাথর ডাঙ্গায় সংখ্যালঘু দপ্তরের বরাদ্দ ১৫,১৯,০০০ টাকায় নির্মিত জল প্রকল্প উদ্বোধনে মন্ত্রী

পূর্বস্থলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১ নং ব্লকের, বেগপুর অঞ্চলের পাথর ডাঙ্গায় সংখ্যালঘু দপ্তরের বরাদ্দ ১৫,১৯,০০০ টাকায় নির্মিত জল প্রকল্প উদ্বোধনে মন্ত্রী

এই বিশেষ প্রকল্পের উদ্বোধনে হাজির ছিলেন রাজ্যের প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

এই বিশেষ প্রকল্পের উদ্বোধনে হাজির ছিলেন রাজ্যের প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

এই বিশেষ জল প্রকল্পের ফলে উপকৃত হবেন এলাকাবাসী

এই বিশেষ জল প্রকল্পের ফলে উপকৃত হবেন এলাকাবাসী

Voting Poll (Ratio)

corona 02
Comm Ad 008 Myra