Comm Ad 2020-Valentine body

মুকুলের বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে প্রশ্নের মুখে বিজেপি

Share Link:

মুকুলের বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে প্রশ্নের মুখে বিজেপি

নিজস্ব প্রতিনিধি: মুকুল রায়। আগে ছিলেন রাজ্যসভার সদস্য। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে জিতে হয়েছেন বিধানসভার সদস্য। তারপরে বিজেপি ছেড়ে তিনি সপুত্র চলে এসেছেন তৃণমূলে। যদিও খাতায় কলমে তিনি এখনও বিজেপির বিধায়কই রয়েছেন। বিধানসভার অধ্যক্ষ তাঁকে পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যানও নির্বাচিত করেছেন। কিন্তু তা নাপসন্দ বিজেপির। তাঁরা শুধু এই কারন দেখিয়ে বিধানসভার ৮টি কমিটির চেয়ারম্যান পদই ত্যাগ করেছেন তাই নয়, পিএসি’র বৈঠক বয়কট করার পাশাপাশি কলকাতা হাইকোর্টে মামলা ঠুকেছেন এই প্রশ্নে যে, মুকুল কেন পিএসি’র চেয়ারম্যান? তাঁর এই পদে থাকার কোনও অধিকার নেই। তাঁর এই নিয়োগ বেআইনি ও জনস্বার্থ বিরোধী। কিন্তু সেই মামলার জেরেই এবার বিজেপিও পাল্টা প্রশ্নের মুখে পড়েছে হাইকোর্টে। বিচারপতি বিজেপির হয়ে মামলাকারী আইনজীবী তথা বিধাযয়ক অম্বিকা রায় ও এই মামলায় তাঁর আইনজীবী পি এস নরসিংহের কাছে জানতে চেয়েছেন, কেন মুকুলের পিএসি’র চেয়ারম্যান পদে থাকার মামলাকে জনস্বার্থ বলা হচ্ছে? আগামী ৪ অগস্টের মধ্যে সংক্ষিপ্ত আকারে বিজেপির আইনজীবীকে তা লিখিত আকারে জমা দিতে হবে আদালতে।  
 
মুকুলের বিরুদ্ধে এই মামলা ঠুকে শেষে যে এমন প্রশ্নের মুখে দাঁড়াতে হবে সেটা বিজেপির আইনজীবী ঘুণাক্ষরেও বুঝতে পারেননি। আঁচ করতে পারেনি গেরুয়া শিবিরও। তবে তাঁরা এখনও দাবি করে চলেছে, এই মামলা জনস্বার্থ মামলা। কেননা বিধানসভার পিএসি-র চেয়ারম্যান পদটি সাধারণত বিরোধীদের জন্য বরাদ্দ। কিন্তু ওই পদে স্পিকার মুকুলকে মনোনীত করেছেন। মুকুল আবার বিরোধীদের দ্বারা মনোনীত নন। পাশাপাশি ওই কমিটির চেয়ারম্যান পদের কাজটি জনস্বার্থমূলক। সরকারের আয়ব্যয়ের সঙ্গে বিধানসভার ওই কমিটির সম্পর্ক রয়েছে। বিরোধীরা এর দাবিদার হলেও চেয়ারম্যান নির্ণয়ে স্পিকারের ভূমিকাও ‘নিরপেক্ষ’ ছিল না। শুক্রবার এই মামলাটি শুনানির জন্য কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে ওঠে। সেখানেই বিচারপতিরা বিজেপির হয়ে মামলাকারী ও তাঁদের আইনজীবী দুইজনের কাছেই জানতে চান কেন বিষয়টি জনস্বার্থ মামলা বলে দেখা হবে!
 
এদিন আদালত জানিয়ে দিয়েছে, আগামী ৪ আগস্টের মধ্যে লিখিত ভাবে জানাতে হবে কেন এই মামলা জনস্বার্থ মামলা হিসাবে দেখা হবে। তারপর রাজ্য সরকারকে সুযোগ দেওয়া হবে তাঁদের মতামত জানাবার জন্য। প্রয়োজনের বিধানসভার স্পিকার ও খোদ মুকুল রায়ের বক্তব্যও জানতে পারে আদালত। এর থেকেই এটা পরিষ্কার যে এই মামলার লড়াই অনেক দূর পর্যন্ত চলবে। যারাই হাইকোর্টে হারবে তাঁরাই মামলাটি নিয়ে যাবে সুপ্রিম কোর্টে। পাশাপাশি রাজ্যের সংবিধান বিশেষজ্ঞ ও আইনজীবীরা জানিয়েছেন, বিজেপির পক্ষে এই মামলায় জয় পাওয়া খুব কঠিন। কেননা, পরিষদীয় রাজনীতির রেওয়াজ অনুযায়ী ওই পদটি বিরোধীদের সাধারণত দেওয়া হলেও, এর কোনও আইনি বাধ্যবাধকতা নেই। তাছাড়া মুকুল খাতায় কলমে এখনও বিজেপি বিধায়ক। তাই শাসকদলের কোনও বিধায়ক ওই পদে মনোনীত হননি। মনোনীত হয়েছেন বিরোধী দলেরই এক বিধায়ক। এখন তিনি দলবদল করেছেন। যা নিয়ে বিধানসভায় শুনানি চলছে। সংবিধানের ২১২ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বিধানসভার অন্তর্বর্তী কোনও কমিটির চেয়ারম্যান নির্ণয়ের ক্ষমতা স্পিকারের রয়েছে। সাংবিধানিক বিধি অনুযায়ী এতে হস্তক্ষেপ করা যায় না। এর সঙ্গে জনস্বার্থ সম্পর্কিত কোনও বিষয় সরাসরি যুক্তও নয়। ওই কমিটিতে শাসকদলের পাশাপাশি বিরোধীরাও রয়েছেন। এদিন কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের বেঞ্চ জানায়, এই মামলা জনস্বার্থ হিসেবে আদৌও গ্রাহ্য হবে কি না তা বিচার্য বিষয়। কেন বিষয়টি জনস্বার্থের আওতায় পড়ে তা ৪ অগস্টের মধ্যে মামলাকারীকে সংক্ষিপ্ত আকারে জানিয়ে আদালতে জমা দিতে হবে। তারপরে আগামী ১০ অগস্ট ওই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন থাকছে।

Comm Ad 005 TBS

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

corona 02

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 026 BM

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-himalaya RC
Comm Ad 2020-himalaya RC