Comm AD 12 Myra

চুমু খেতে দেয় না, আদর করতে দেয় না! পাল্টা প্রশ্ন গ্রাহকদেরও

Share Link:

চুমু খেতে দেয় না, আদর করতে দেয় না! পাল্টা প্রশ্ন গ্রাহকদেরও

নিজস্ব প্রতিনিধি: আদিম রিপুর ডাক অগ্রাহ্য করার ক্ষমতা কয়জন পুরুষ রাখেন! তাই বোধহয় কোভিড কালেও গ্রাহকেরা এসে হাজির হন রাজ্যের অন্যতম সেরা বাজারে। যেখানে অর্থের বিনিময়ে নারী সঙ্গ উপভোগ করা যায়। শুধু উভভোগই নয়, বিছানায় শোয়াও যায়। যৌনতার আস্বাদ নিতেই তাই প্রতি রাতে কলকাতার সোনাগাছিতে পা পড়ে পুরুষের। একজন আধজনের নয়, হাজারো পুরুষের। এই কোভিড কালে সেই গ্রাহকদের মাধ্যমে যাতে যৌনপল্লীতে মারণ ভাইরাস এসে হানা না দেয় তার জন্য ‘দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটি’ সোনাগাছিতে চালু করেছে ‘কাস্টমার কেয়ার ডেস্ক’। ইতিমধ্যেই সোনাগাছিতে এমন দু’টি ডেস্ক খোলা হয়েছে। কিন্তু কে জানতো সেই ডেস্কেই এমন সব প্রশ্ন ধেয়ে আসবে! গ্রাহকদের প্রশ্নে এখন সেই ডেস্কেরই অবস্থা ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি।
 
তা কী বলছেন গ্রাহকেরা? দুর্বার সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ডেস্ক খোলার মূলে ছিল সোনাগাছিতে যাতে গ্রাহকের মাধ্যমে কোভিড প্রবেশ করতে না পারে তা সুনিশ্চিত করা। এর জন্য কাস্টমারদের থার্মাল গানের মাধ্যমে শরীরের তাপমাত্রা মাপা, তাঁদের মাস্ক পড়তে বাধ্য করা, স্যানিটাইজেশনে জোর দেওয়ার মতো বিষয় ঠিকভাবে করা হচ্ছে কিনা তা দেখা যেমন উদ্দেশ্য ছিল তেমনি দেখা হত যৌনকর্মীরা নিজেরা ঠিক মতন সব বিধি মেনে চলছেন কিনা। মানে তাঁরা মাস্ক ব্যবহার করছেন কিনা, ঘরে একাধিক গ্রাহক একসঙ্গে ঢোকাচ্ছেন কিনা, ঘরদোর নিয়মিত স্যানিটাইজড করছেন কিনা, বিছানার চাদর বদলাচ্ছেন কিনা এইসব। এসব দেখার জন্য ছিল দুর্বারের নিজস্ব কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকরা। কিন্তু এসব দেখতে গিয়ে এবার এই কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকরাই পাল্টা গ্রাহকদের প্রশ্নের মুখে পড়ছেন। গ্রাহকেরা পরিষেবা নিয়ে পাল্টা অভিযোগ করছেন। তাঁদের অভিযোগ, যৌনকর্মীরা সম্ভোগের সময় একদম চুমু খেতে দেন না, তাঁর আগে বা সেই সময় একটুও আদর করতে দেন না। গ্রাহককেও আদর করেন না চুমুই খান না। কয়েকজনের শরীর আর মুখে তো রীতিমত গন্ধ থাকে। আবার কেউ গুটখা খায় তো কেউ জর্দা চেবায়। কেউ কেউ তো আবার খৈনিও খায়। গ্রাহকদের এইসব না পসন্দ। তাঁরা চান স্মুথ পরিষেবা। স্বল্প মূল্যে ভালো পরিষেবা।
 
যৌনকর্মীরা কী বলছেন গ্রাহকদের এই সব অভিযোগ নিয়ে? তাঁদের দাবি, এই পেশায় টিকে থাকার মূল অবলম্বনই হল শরীর। তা ভেঙে গেলে গ্রাহক মিলবে না। না খেয়ে পেয়ে মরতে হবে তখন। তাই শরীর বেশি চটকাতে দেওয়া হয় না। বুকেও হাত দিতে দেওয়া হয় না। চুমু খেতে দেওয়া হয় না কারন মুখের লালারসের মাধ্যমে এডস এর মতো রোগ ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে। আর প্রশ্ন গুটখা, জর্দা, খৈনির – সে তো গ্রাহকদের সম্পর্কেও একই অভিযোগ করা যায়। তাঁদেরও তো মুখে শরীরে গন্ধ থাকে। তবে সোনাগাছি মানছে এই পেশাকে আগামী দিনে টিকিয়ে রাখতে গেলে বা গ্রাহককে আরও বেশি করে আকর্ষিত করতে হলে আধুনিকতা, পরিচ্ছন্নতা ও পরিষেবায় জোর দিতেই হবে। বিশেষ করে এখন যেভাবে সবাই হাতে হাতে স্মার্ট ফোন, নানা অ্যাপস, অনলাইন পেমেন্টে স্বচ্ছন্দ হয়ে উঠেছেন তাতে করে এরা ভালো পরিষেবা পেতে জোর দেন। সেই পরিষেবা ঠিক মতন না পাওয়ার জন্যই শহরে কলগার্লদের পরিষেবা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। ক্রেতা ও লক্ষ্মী দুই হারাচ্ছে সোনাগাছি। সোনাগাছির সামনে এখন তাই টেকসেভির হাতছানি। প্রয়োজনে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে দিন, সময় বুক করে যাতে গ্রাহক টানা যায় সেকথাও ভাবতে হচ্ছে দেশের প্রাচীনতম এই যৌনপল্লীকে। এমনকি সেক্ষেত্রে হোটেলের মতোই পরিষেবা দিতে চাইছেন তাঁরা। মানে থাকা, খাওয়া, যৌনতা মিলিয়ে দেড়-দুই হাজার টাকার প্যাকেজ। একই সঙ্গে তাঁর বিপণন ব্যবস্থা। আর সবটাই করানো হবে খুব বিশ্বস্ত লোকেদের নিয়ে যাতে ক্রেতারা বিপদে না পড়েব বা তাঁদের কাছে প্যাকেজ নিয়ে পৌঁছে যাওয়া যায়।

Comm Ad 2020-LDC epic

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 026 BM

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

corona 02

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-LDC Momo
Comm Ad 006 TBS