এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

জেতার আশা করেনি বিজেপি! স্বীকারোক্তি দিলীপের

নিজস্ব প্রতিনিধি: তিনি বিগত ৬ বছর ধরে বঙ্গ বিজেপির হাল ধরে রেখেছিলেন। এই ৬ বছরে তাঁর বাণীর সঙ্গে বঙ্গবাসীর বিলক্ষণ পরিচিতি ঘটেছে। সেই সব বাণীর ঠেলায় বঙ্গবাসী শুধু ক্ষুব্ধই হয়নি তাই নয়, কার্যত বিজেপিকেও একুশের বিধানসভা নির্বাচনে কড়াগন্ডায় দাম চোকাতে হয়েছে। সম্প্রতি তাঁর হাত থেকে কেড়ে নেওয়া হ্যেছে বঙ্গ বিজেপির নেতৃত্বের দায়িত্ব। তবুও তিনি যে বদলাননি এতটুকুও সেটা বেশ বোঝা গেল সোমবার সকালে রাজারহাট নিউটানের ইকো পার্কে। নিজের স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে মর্নিং ওয়াক সেরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন, উপনির্বাচনে জেতার আশা করেনি বিজেপি। তিনি দিলীপ ঘোষ। এখন তাঁর এহেন স্বীকারোক্তিতে কার্যত আরও প্রকট হল বঙ্গ বিজেপির দুর্দশা।

এদিন দিলীপ সাংবাদিকদের জানান, ‘প্রথম থেকেই ভয়ের পরিবেশে ভোট হয়েছে। বিরোধী ভোটাররা ভয়ে ভোট দিতে বেরতেই পারেননি। তবে তৃণমূলকে আমরা খোলা মাঠে ছেড়ে দিইনি। জোর টক্কর হয়েছে। তবে ভবানীপুরে কখনই জেতেনি বিজেপি। তাই যেমনটা আশা করা হয়েছিল তেমনই হয়েছে ফলাফল। ভবানীপুরে জেতার আশা সে ভাবে করেনি বিজেপি, তবে লিড যে বেশি পেয়েছে তৃণমূল তার জন্য হিংসা ও ভয়ের পরিবেশই দায়ী। লিড বেশি হয়েছে একটু। আমরা আশা করেছিলাম কম হবে। কিন্তু লোকে ভয়ে বেরোয়নি ভোট দেয়নি বিরোধী ভোটাররা, সেই জন্য লিডটা বেশি হয়েছে।’ দিলীপের এহেন দাবি ঘিরেই এখন জোর তর্ক বেঁধেছে বঙ্গ বিজেপির অন্দরে। কেননা দলেরই প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি যদি এটা বলে বসেন প্রকাশ্যেই যে দল জেতার আশা করেনি, তাহলে আগামী দিনের নির্বাচনগুলিতে কীভাবে মাঠে নামবে বিজেপি। সবাই তো এটাই ধরে নেবে বিজেপি জেনেশুনে হারের জন্য মাঠে নামছে। তাতে করে তো দলের ভোট আরও কমে যাবে। দলের কঙ্কাল দশা আরও প্রকট হয়ে যাবে।

তবে যে যাই বলুক, দিলীপবাবু যে বিন্দুমাত্র পরিবর্তন হননি সেটা এদিন ওনার স্বীকারোক্তিই বুঝিয়ে দিয়েছে। তিনি শুধু বিরোধী তৃণমূল বা পুলিশকেই কটু বাক্যে আক্রমণ শানতে পারেন তাই নয়, প্রয়োজনে দলের মুখ পোড়াতেও পারেন। এখন তো অনেকেই বলছেন, পদহীন দিলীপ এখন বঙ্গ বিজেপির কাছেই মস্ত বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠতে চলেছেন। কবে কোনদিন কী কথা বলে দেবেন আর তার ঠেলা সামলাতে বিবৃতির পর বিবৃতি জারি করতে হবে বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বকে। একই সঙ্গে একথাও সত্যি যে আগামী দিনে বঙ্গ বিজেপিতে দল ছাড়ার ঘটনা কার্যত আরও বড় আকার নিতে চলেছে। যত দিন গড়াবে বঙ্গ বিজেপির প্রতি বঙ্গবাসীর সমর্থন আর ভরসা দুটিই সমানুপাতিক হারে কমতে থাকবে। দিলীপ সেই সম্ভাবনার চূড়াটুকু তুলে ধরেছেন।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

১জুন শেষ দফার ভোটের দিন কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস জারি

মোদির রোড-শোর পাল্টা পদযাত্রা মমতার, সাক্ষী উত্তর কলকাতা

‘আর সাত-আট দিন প্রধানমন্ত্রী বলতে পারবেন, তার পর আর থাকবেন না’, মোদিকে কটাক্ষ মমতার

রত্না হাজির সভায়, নাম না করে শোভনকে তুলে ধরলেন মমতা

‘এখন বার বার আসছে, ভোট মিটলে আর দেখা মিলবে না’, মোদিকে কটাক্ষ অভিষেকের

Cyclone Rimal জীবন কেড়েছে ৩ শত গাছের, ৫গুণ ক্ষতিপূরণ চায় শহর কলকাতা

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর