এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine




প্রয়াত কলকাতা পুরসভার প্রাক্তন ডেপুটি মেয়র ইকবাল আহমেদ




নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রয়াত কলকাতা পুরসভার প্রাক্তন ডেপুটি মেয়র তথা মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাবের প্রাক্তন কর্তা ইকবাল আহমেদ। দীর্ঘ অসুস্থতার পরে শুক্রবার মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তৃণমূলের অন্যতম সংখ্যালঘু মুখ। বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। ইকবাল আমেদের মৃত্যুর খবরে শোকপ্রকাশ করেছেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম-সহ তৃণমূলের বিভিন্ন স্তরের নেতারা।

দাদা প্রয়াত সাংসদ তথা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ডাকাবুকো নেতা সুলতান আমেদের হাত ধরেই রাজনীতিতে পা রেখেছিলেন ইকবাল আমেদ। প্রথমে কংগ্রেসে ছিলেন। আর কংগ্রেসে থাকার সুবাদেই প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের ঘনিষ্ঠ অনুচর হয়ে উঠেছিলেন। পরে দাদার হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন। দীর্ঘদিন কলকাতা করপোরেশনের কাউন্সিলরের দায়িত্ব পালন করার পাশাপাশি তৃণমূলের টিকিটে হুগলির খানাকুল থেকে বিধায়ক হিসাবেও নির্বাচিত হয়েছিলেন। তবে গত সাত বছর ধরেই শারীরিক অসুস্থতার কারণে সক্রিয় রাজনীতি থেকে অনেকটাই দূরে সরে ছিলেন। অসুস্থতার কারণেই কলকাতা পুরসভার ডেপুটি মেয়রের পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দিয়েছিল তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব।

রাজনীতির পাশাপাশি কলকাতা ময়দানের সঙ্গেও নিবিড়ভাবে জড়িয়ে পড়েছিলেন ইকবাল মহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের সঙ্গে দীর্ঘ ২৩ বছর জড়িত ছিলেন। প্রথমে মাঠ সচিব হিসাবে দায়িত্ব সামলেছিলেন। পরবর্তীকালে সাদা-কালো শিবিরের ফুটবল সচিবের দায়িত্বও সামলান। যদিও মধুমেহের কারণে গত চার বছর কার্যত নিজের বাড়িতেই ‘গৃহবন্দি’ হয়েছিলেন ইকবাল আমেদ। ২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটের আগে নারদ কাণ্ড নিয়ে উত্তাল হয়েছিল রাজ্য রাজনীতি। ওই ঘটনাতেও জড়িয়ে পড়েছিল তাঁর নাম। নারদ স্টিং অপারেশনের মূল পাণ্ডা ম্যাথু স্যামুয়েলকে তৃণমূলের একাধিক নেতার কাছে ইকবালই নিয়ে গিয়েছিলেন। নারদ কাণ্ডের তদন্তে বেশ কয়েকবার ইডির জেরার মুখে পড়তে হয়েছিল।




Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

বিদ্যুতের খরচ বাঁচাতে সরকারি দফতর থেকে স্কুল মায় অফিসেও পদক্ষেপ

শিয়ালদহে তিনটি প্লাটফর্ম থেকে চালু হল ১২ কামরার ট্রেন

গার্স্টিন প্লেসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বিক্ষোভের মুখে সুজিত

অভিষেকের ডায়মন্ডে ঢুকল ৩ টন ইলিশ, আসছে কলকাতার বাজারে

গার্স্টিন প্লেসের বহুতলের আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও ভেঙে পড়েছে বাড়ির একাংশ

সোনারপুরে অনেক জায়গায় বেআইনি নির্মাণ হচ্ছে, পরিবেশ দফতরকে দেখতে হবে : ফিরহাদ

Advertisement




এক ঝলকে
Advertisement




জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর