এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

প্রধানমন্ত্রীর গলায় এই সমস্ত চিপ পলিটিকস মানায় না : ফিরহাদ হাকিম

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাজেটের পুস্তিকাতে একটা ভুল হয়েছে। যে অ্যাডেড অঞ্চলে ফুয়েল চার্জ ৫০০ টাকা করা হয়েছিল, সেই টাকাকে আমরা তুলে দিচ্ছি। কোথাও ফিস লাগবে না। তাই এটা অ্যাডেড অঞ্চলেও থাকবে না বলে শনিবার কলকাতা পুরস্কার বাতিল সাংবাদিকদের জানান মেয়র। ফিরহাদ হাকিম(Firhad Hakim) আরো বলেন, বিল্ডিং প্ল্যানিং নিয়ে একটা সমস্যা হচ্ছে। যারা ফিজিক্যাল প্ল্যান অনুমোদনের জন্য দিয়েছিল তাদেরকে ফিজিক্যাল প্ল্যান অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে। প্ল্যানের ক্ষেত্রে কিছু সমস্যা হচ্ছে। যাদের ম্যানুয়াল সি সি নেওয়া হয়েছিল, তাদের কে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে সি সি দেওয়া হবে। অনলাইনে সব দেখা সম্ভব হয় না। তাই এটা ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে হবে বলে জানালেন মেয়র(Mayor)।

তিনি বলেন,আমার এক বন্ধুর সম্পত্তি দখল হয়েছে। বারুইপুরে তাদের সম্পত্তি। আমার থেকে সিনিয়র দাদা তার স্ত্রী থাকেন বৃদ্ধা আশ্রম। যে কেয়ারটেকার ছিলেন সে নিজের নামের করে নিয়েছেন। মেয়র বলেন,যেখানে পে এন্ড ইউজ আছে। তার আসে পাশে বেআইনি ভাবে আছে সেটা ভেঙে দিতে বলা হয়েছে। কারণ অনেক জায়গায় গুটকা খেয়ে ফেলে দিয়ে নোংরা করে দেওয়া হচ্ছে বলে জানান মেয়র।আমরা ডিজিটাল ম্যাপ(Digital Map) করছি নিকাশি বিভাগের। এর সাথে জলের একটা ম্যাপ করা হবে। পরবর্তী কালে যারা আসবে, তারা ডিজিটালাইজড মাধ্যমে ১০০বছর পর কলকাতা ম্যাপ কে জানতে পারবে।আমি একটা জিনিষ বুঝতে পারিনা। বিজেপি ভোটের সময় এই ঢোল কেন বাজায়? আমরা তো মতুয়া দের বলেছি যে আপনারা তো বিদেশি নয়। তাহলে আপনাদের ভোটে যে জন প্রতিনিধি সেও তো বেআইনি হয়ে গেল। সে যে বিল পাস করল সেও বেআইনি হয়ে গেল। মতুয়া কে যদি ক্যান্সেল করতে হয়, তাহলে শান্তনু ঠাকুর ও বেআইনি মন্ত্রী হয়ে গেল। এই ভেদাভেদ কেন হবে আমরা সবাই ভারতীয়। এইগুলোকে নিয়ে কেন ভেদাভেদ হবে।অমিত শাহ বলেছিলেন ৩৫ টি আসন।আগে বলেছিলেন ২০০ পার আবার বলছে ৪০০ পার।

এখনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee) আছে। তিনিই থাকবেন। সামাজিক সংস্কার করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এইসব হচ্ছে প্রচার। বিজেপি যে ১০০০ হাজার কোটি টাকা পাচার করেছে। মমতা বন্দোপাধ্যায় হচ্ছে সততার প্রতীক। তারা এইসব প্রচারের জন্য বলছে।বাংলায় যদি তোলাবাজ থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে অভিষেক বন্দোপাধ্যায় বলেছিলেন ,সে দোষ করেছে। তাকে শাস্তি দিন। বাংলার মানুষকে কেন বঞ্চিত করছেন ?পাল্টা প্রশ্ন ফিরহাদ হাকিমের। তিনি বলেন,এটা অনেক আগেই সব প্রকল্প হয়েছে। কল্যানী আইমস অনেক আগে হয়েছে। আমি আমি বলা কৃতিত্ব নয়। বলতে হয় আমরা। এই আমি ওনাকে খেয়ে নেবে।প্রধানমন্ত্রী গলায় এই সমস্ত চিপ পলিটিকস মানায় না।যদি অমিত শাহ বলে। থাকে তাহলে সি এ এ তাহলে শান্তনু ঠাকুর বেআইনি মন্ত্রী।আমাদের মানুষ ভোট দেবেন মানুষের মনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রয়েছেন। বাংলার মানুষের বাংলার উন্নয়ন দেখে ভোট দেবে।আমি আগেই বলেছি ওরা কেন্দ্রীয় বাহিনী(Central Force) দিকে তাকিয়ে থাকে নির্বাচন কমিশনের দিকে তাকিয়ে থাকে। আমরা মমতা দিকে তাকিয়ে থাকি। বাংলার মানুষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিকে তাকিয়ে আছে তার উন্নয়নের দিকে তাকিয়ে আছে।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

কলকাতা সহ পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে আগামী ৫ দিন তাপপ্রবাহ চলবে, এপ্রিল মাসের শেষে তাপমাত্রা আরোও বাড়বে

‘কালীঘাটের কাকু’র কণ্ঠস্বরের রিপোর্ট আদালতে জমা ইডির

নিউটাউনে পরিত্যক্ত বহুতল থেকে উদ্ধার যুবকের নিথর মৃতদেহ

ভোট পেতে কুণাল ঘোষকে ফোন কংগ্রেস প্রার্থী  প্রদীপ ভট্টাচার্যের

২৬ হাজার চাকরি বাতিলের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ, সুপ্রিম কোর্টে এসএসসি

আচমকাই জেগে উঠল গুরু প্রেম, প্রয়াত অজিত পাঁজার বাড়িতে হাজির ‘দলবদলু’ তাপস

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর