Comm AD 12 Myra

গুজরাটের থেকে বিলগ্নি কার্যকরে 'এগিয়ে বাংলা' দাবি মুখ্য়মন্ত্রীর

Share Link:

গুজরাটের থেকে বিলগ্নি কার্যকরে 'এগিয়ে বাংলা' দাবি মুখ্য়মন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গুজরাটে যে পরিমাণ বিলগ্নির প্রস্তাব রয়েছে তার থেকে বেশি আমাদের রাজ্য়ে কার্যকর হয়েছে । বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিটের প্রাক্কালে দাবি মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের। মঙ্গলবার ধর্না মঞ্চে ইতি টানার পর এবার বাণিজ্য় সম্মেলনে নজর রাজ্য় সরকারের। বূহস্পতিবার রাজারহাটে বসছে বিশ্ববাংলা বাণিজ্য় সম্মেলন ২০১৯-২০-র আসর। ইতিমধ্যেই বেশকিছু রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রী ও তাদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলেছেন এ রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রী। তিনি আরও জানান, প্রায় ৩৬ টি দেশের রাষ্ট্রদূত সহ তাদের প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। বিশ্ববাংলা বাণিজ্য় সম্মেলনের আগে যে বিলগ্নির প্রস্তাব এসেছিল তা নিয়ে বিরোধীরা রাজ্য়ের শাসকদলকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি। তবে লোকসভা নির্বাচনের আগে চলতি বাণিজ্য় সম্মেলনের দিকে তাকিয়ে সব পক্ষই।  তার আগে গত চার বছরে এ রাজ্য়ে বিলগ্নির চিত্রটা ঠিক কেমন একবার দেখে নেওয়া যাক,
  • ২০১৫ সালে লগ্নি প্রস্তাব ছিল ২ লক্ষ ৪৩ হাজার ১০০ কোটি টাকা।
  • ২০১৬ সালে লগ্নির প্রস্তাব আসে ২ লক্ষ ৫০ হাজার ২৫৩ কোটি টাকা।
  • ২০১৭ সালে লগ্নি প্রস্তাব কিছুটা কমে যায় ।  যার পরিমাণ ছিল ২ লক্ষ ৩৫ হাজার ২৯০ কোটি টাকা।
  • ২০১৮ সালে লগ্নির প্রস্তাব ছিল ২ লক্ষ ১৯ হাজার ৯২৫ কোটি টাকা।
লগ্নি প্রস্তাব নিয়েও বিরোধীদের কটাক্ষ,  ঘটা করে বিজনেস সামিট করা হচ্ছে কিন্তু তার বাস্তব রূপায়ণ হচ্ছে কোথায়? বামফ্রন্ট আমলের শেষ বছরেও শিল্পে ১৫ হাজার কোটি টাকা লগ্নি হয়েছিল বলে শেষ বাণিজ্য় সম্মেলনের অগে দাবি করেছিলেন সিপিএম-এর বর্তমান রাজ্য় সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। যদিও রাজ্যের অর্থ ও শিল্পমন্ত্রী অমিত মিত্রের বক্তব্য়, গত চারটি বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিটে মোট ৯ লক্ষ্য় ৪৮ হাজার ৫৬৯ কোটি টাকা রাজ্যে লগ্নি করার প্রস্তাব এসেছে এবং এর অর্ধেক বাস্তবায়নের বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে।

বূহস্পতিবার ফ্রান্স, ইতালি, জার্মানি, ব্রিটেন সহ ১২টি দেশের প্রতিনিধিরা যোগ দেবেন এই সম্মেলনে। ফ্রান্সের ২২ জনের প্রতিনিধি দল এবং ইউকে-ইন্ডিয়া বিজনেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ও ব্রিটিশ ট্রেড কমিশনারও আসবেন। থাকবেন রিলায়েন্স গোষ্ঠীর কর্ণধার মুকেশ আম্বানি, গোদরেজ গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান আদি গোদরেজ, হিরো মোটর সংস্থার সুনিল কান্ত মুঞ্জল, ভারতী এয়ারটেল সংস্থার রাজন অথবা রাকেশ মিত্তল, জেএসডব্লিউ স্টিলের সজ্জন জিন্দলের মতো দেশের প্রথম সারির শিল্পপতিরা। এছাড়াও চিন ও লাতিন আমেরিকার প্রায় ১৮টি দেশকে পঞ্চম গ্লোবাল বিজনেস সামিটে অমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ভোটের বছরে লগ্নিকারীরা রাজ্য় সরকারের প্রত্যাশা পূরন করবে বলেই মনে করছেন অমিত মিত্র।

 

Comm AD 12 Myra

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

corona 02

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 026 BM

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

Voting Poll (Ratio)

Pujo2020-T01

Editors Choice

2020 New Ad HDFC 05