WBLDC Adv 005

মোদি বাহিনীকে ছেড়ে কথা বলবেন না! ইঙ্গিত জহরের

Share Link:

মোদি বাহিনীকে ছেড়ে কথা বলবেন না! ইঙ্গিত জহরের

নিজস্ব প্রতিনিধি: দীনেশ ত্রিবেদীর ছেড়ে যাওয়া রাজ্যসভার আসনে আগামী ৯ আগস্ট রয়েছে উপনির্বাচন। সেই নির্বাচনে তৃণমূলের জয়ও কার্যত নিশ্চিত। তাই আগ্রহ তৈরি হয়েছিল রাজ্যের শাসক দলের তরফে কে প্রার্থী হন তা নিয়ে। কেননা তাঁর নাম ঘোষণা মানেই তিনি সুনিশ্চিত ভাবেই জয়ী হচ্ছেন। বিজেপি প্রার্থী দিলেও ২০০’র ওপর আসন পাওয়া তৃণমূলের প্রার্থীকে হারাবার ক্ষমতাও তাঁরা রাখেন না। তাই সুনিশ্চিত জয়ের নিশানায় থাকা আসনে তৃণমূলের প্রার্থী কে হবেন তা নিয়ে বাংলা জুড়েই আগ্রহ ছিল। জল্পনা ছড়িয়েছিল ওই আসনে প্রার্থী হতে পারেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী যশবন্ত সিনহা বা মুকুল রায়। এদিন বেলার দিকেই অবশ্য সেই জল্পনার অবসান হয়েছে। তৃণমূলের তরফে টুইট করে জানিয়ে দেওয়া হয় দীনেশের ছেড়ে যাওয়া আসনে প্রার্থী হচ্ছেন প্রসার ভারতীর প্রাক্তন সিইও জহর সরকার। এরপরে বর্ষীয়াণ এই বঙ্গসন্তান ইঙ্গিত দিলেন, দিল্লিতে মোদি বাহিনীকে এক ইঞ্চিও জমি ছেড়ে কথা বলবেন না।
 
এদিন বাংলা থেকে নির্বাচিত হতে চলা রাজ্যসভার হবু সাংসদ জানিয়েছেন, ‘আমাকে হঠাৎ করেই বলা হল রাজ্যসভার সাংসদ হওয়ার জন্য প্রার্থী হতে। আমার মনে হল আমাকে একটা সুযোগ করে দেওয়া হল। সময় নিয়ে আমি ভেবে দেখলাম, এরকম সুযোগ তো আর কেউ দেবে না। তাই রাজি হয়ে গেলাম। অনেকেই জানেন আমি মোদী সরকার থেকে ইস্তফা দিয়ে চলে এসেছি ৫ বছর আগে। তারপর থেকে আমি ক্রমাগত তাঁর নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করে গিয়েছি, লিখেছি, বক্তব্য রেখেছি। আমার উপর তাঁরা বিভিন্ন রকমের স্নায়ুর চাপও রেখেছে। এই মোদী সরকারের দুর্নীতি ও ত্রুটি মানুষের সামনে তুলে ধরার আরেকটা সুযোগ দেওয়া হল আমাকে। সেই সঙ্গে বাংলার প্রতিনিধিত্ব করারও সুযোগ পেলাম। তাই রাজ্যসভায় কেন্দ্রীয় সরকারের বিরোধিতার কোনও সুযোগই হাতছাড়া করব না।’ উল্লেখ্য জহরবাবু শুধু প্রাক্তন আইএএস অফিসারই নন, তিনি বাংলার সেলস ট্যাক্স কমিশনারও ছিলেন। হয়েছিলেন ভারত সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রকের সচিব, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের সচিব এবং প্রসার ভারতীর সিইও।
 
সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুলের প্রাক্তনী জওহর সরকার প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতক পাশ করেন। এরপর প্রাচীন ভারতীয় ইতিহাস এবং সমাজবিদ্যা নিয়ে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডবল এমএ এবং পরবর্তীতে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় ও সাসেক্স বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও উচ্চশিক্ষা লাভ করেন। জওহরবাবুর পেশাগত জীবন শুরু হয় আশির দশকে। ১৯৭৫ সালে তিনি আইএএস অফিসার হন। নয়ের দশকে পশ্চিমবাংলার সেলস ট্যাক্স কমিশনার পদে আসেন। এরপর ২০০৬ সালে দিল্লিতে ডেভলপমেন্ট কমিশনার ফর মাইক্রোর অ্যাডিশনাল সেক্রেটারিও হন। ২০০৮ সালে ভারত সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রকের সচিবের পদে আসীন হন জওহরবাবু। কিছু দিন কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকেরও সচিব ছিলেন। প্রশাসক হিসেবে দীর্ঘ ৪১ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর। এদিন তাই তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে টুইট করে জানানো হয়েছে, ‘সংসদের উচ্চকক্ষে জহর সরকারকে মনোনীত করতে পেরে আমরা আনন্দিত। তিনি প্রায় ৪২ বছর পাবলিক সার্ভিসে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি প্রসার ভারতীয় প্রাক্তন সিইও। পাবলিক সার্ভিসের ক্ষেত্রে তাঁর অমূল্য অবদান দেশের সেবায় আরও ভালোভাবে কাজে লাগবে।’

Comm Ad 2020-Valentine body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

WBLDC Adv 008

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

WBLDC Adv 010

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

Voting Poll (Ratio)

WBLDC Adv 010
2020 New Ad HDFC 05