Comm Ad 2020-tantuja-body

মমতার দাবি মেনে নিলেন মোদি! আর নয় ‘সামাজিক দূরত্ব’, থাকছে ‘শারীরিক দূরত্ব’

Share Link:

মমতার দাবি মেনে নিলেন মোদি! আর নয় ‘সামাজিক দূরত্ব’, থাকছে ‘শারীরিক দূরত্ব’

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর দাবি মেনে নিলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। জিত হল সেই মমতারই। নিজে উপলব্ধি করেছিলেন কোভিডের আবহে মানুষের মধ্যে বেড়ে যাচ্ছে সামাজিক ভেদাভেদ। দীর্ঘদিনের চেনাপরিচিত মানুষগুলিই হয়ে যাচ্ছেন চূড়ান্ত অপরিচিত। প্রতিবেশী হোক কী আত্মীয়স্বজন, সবাই মুখ ফেরাচ্ছেন যেই শুনছেন ঘরে হানা দিয়েছে কোভিড। বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া, বাড়ির দরজায় বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে দেওয়া। জল নেওয়া বন্ধ করে দেওয়া এবং মারধর, এসবেই সাক্ষী থেকেছে কলকাতা সহ রাজ্য। কোভিড আক্রান্তদের দাঁড়াতে হয়েছে কঠিন কঠোর বাস্তবের সামনে। আর তা দেখেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনে করেছিলেন এই কোভিডকালে ‘সামাজিক দূরত্ব’ কথাটি ব্যবহার করা উচিত নয়, ব্যবহার করতে হবে ‘শারীরিক দূরত্ব’। সেই মতো নিজের অভিমত দিয়ে তিনি চিঠি পাঠিয়েছিলেন কেন্দ্রে মোদি সরকারকে। এবার সেই দাবিই প্রধানমন্ত্রী নিজে মেনে নিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রক জানিয়েছে এবার থেকে আর ‘সামাজিক দূরত্ব’ কথাটি ব্যবহার করা হবে না, পরিবর্তে ব্যবহৃত হবে ‘শারীরিক দূরত্ব’।
 
বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, কোভিডকালে বিধি মানার ক্ষেত্রে ‘সামাজিক দূরত্ব’ শব্দদুটি ব্যবহার করা শুরু হয়। কিন্তু দেখা যাচ্ছে সেই শব্দজোড়ার অন্তর্নিহিত অর্থ বুঝতেই পারছেন না একশ্রেনীর মানুষ। তাঁরা কোভিড আক্রান্তদের সামাজিক ভাবে বয়কট করার পাশাপাশি তাঁদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে চলেছেন ক্রমাগত। একই সঙ্গে মারধর, ঘর থেকে বার করে দেওয়া, জল সংগ্রহে বাধা দেওয়া এসবই তারা চালিয়ে গিয়েছে কোভিড আক্রান্তদের সঙ্গে। দেশের মধ্যে একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই প্রথম এই শব্দজোড়া নিয়ে আপত্তি জানান। পাশাপাশি তাঁর দলের রাজ্যসভার সাংসদ তথা ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ডঃ শান্তনু সেন বিষয়টি রাজ্যসভাতেও তোলেন। এরপরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে বিষয়টি দেখতে বলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রককে। সেই সুবাদেই এবার থেকে ‘সামাজিক দূরত্ব’ শব্দ জোড়ার পরিবর্তে ‘শারীরিক দূরত্ব’ শব্দজোড়া কোভিড বিধির ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হবে।
 
‘সামাজিক দূরত্ব’ শব্দটি নিয়ে আপত্তি ছিল অনেকেরই। এই শব্দটির বহুল ব্যবহারের ফলে করোনা রোগীদের সামাজিকভাবে বয়কট করার প্রবণতা ক্রমশ বেড়ে চলেছিল বলে দাবি করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। অথচ এই মহামারীর আবহে পারস্পারিক সহযোগিতা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। অসুস্থ অবস্থায় সামাজিক বয়কটের শিকার হয়ে করোনা আক্রান্তদেরই মানসিক সমস্যা তৈরি হতে শুরু করে দিয়েছিল। তাতে বিপদ আরও বাড়ার আশঙ্কা দেখা যায়, কারন মানুষ সংক্রমণের কথা লুকিয়ে যেতে শুরু করেন ও কোভিড টেস্ট করাতেও অস্বীকার করা শুরু করে দিয়েছিলেন। সেই অবস্থার পরিবর্তন ঘটাতে ‘সামাজিক দূরত্ব’ শব্দদুটি বাদ দিতেই হতো। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো সর্বভারতীয় স্তরে পরিচিত ব্যক্তিত্ব সেই সমস্যার কথা তুলে ধরায় কেন্দ্রের পক্ষেও তা পরিবর্তন করা সহজসাধ্য হয়ে গিয়েছে। বস্তুত শুধু এই শব্দের প্রয়োগ বন্ধ হওয়াই নয়, মমতার বাংলার অনেক কিছুই এখন দেশের অনেক রাজ্য মায় কেন্দ্র সরকারও গ্রহণ করেছে। তার মধ্যে যেমন কো-মর্বিডিটি স্টাডিজ বা সেফ হোমের মতো বিষয়গুলি রয়েছে তেমনি মেট্রো রেলের ক্ষেত্রে ই-পাস, সাপ্তাহিক লকডাউন আজ সারা দেশে সমাদৃত হচ্ছে। এখানেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর সরকারের সব থেকে বড় জয়। বাংলা আজ যা ভাবে তা কাল গোতা দেশ ভাববে, একথাকে সত্যি করে দেখিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

corona 01

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 026 BM

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-WB Tourism RC

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 006 TBS

Editors Choice

Comm Ad 2020-himalaya RC