Comm Ad 2020-tantuja-body

বেলেঘাটা বিস্ফোরণকাণ্ডের তদন্ত নিজেদের হাতে নিতে পারে এনআইএ

Share Link:

বেলেঘাটা বিস্ফোরণকাণ্ডের তদন্ত নিজেদের হাতে নিতে পারে এনআইএ

নিজস্ব প্রতিনিধি: জল বেশ ভালই ঘোলা হতে চলেছে বেলেঘাটা কাণ্ডে। হয়তো খুব শীঘ্রই এই ঘটনার তদন্তভার নিজেদের হাতে বিতে চলেছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা বা এনআইএ। ইতিমধ্যেই এই ঘটনা নিয়ে দিল্লিতে একটি রিপোর্ট পাঠিয়েছেন এনআইএ’র আধিকারিকেরা। এরপর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সবুজ সঙ্কেত দিলেই মাঠে নেমে পড়বে এই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাটি। তবে কলকাতা পুলিশ এখন এই ঘটনার তদন্তে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে। সেক্ষেত্রে দুই বাহিনী একযোগে তদন্ত চালিয়ে নিয়ে যেতে পারে। আবার রাজ্য সরকার প্রয়োজন মনে করলে এক্ষেত্রে এনআইএ’র তদন্তের বিরোধীতাও করতে পারে। যদিও এর আগে সেই ধরনের কোনও ঘটনা ঘটেনি। তাই এবারে সেই রকম কিছু নাও ঘটতে পারে, রাজ্য সহযোগীতার পথেই হাঁটতে পারে বলে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে।
 
মঙ্গলবার সাত সকালে বেলেঘাটার গাঁধীভবন সংলগ্ন গাঁধীমাঠ ফ্রেন্ডস সার্কল ক্লাবের তিনতলায় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণের অভিঘাতে হতাহতের কোনও ঘটনা না ঘটলেও তিনতলার ঘরের ছাদ উড়ে যায়, দেওয়াল ধ্বসে পড়ে ও আশেপাশের বেশ কিছু বাড়ির কাঁচের দরজাজানলা ভেঙে পড়ে বা ক্ষতিগ্রস্থ হয়। ঘটনার পরেই ক্লাবের সদস্যরা দাবি করেছিলেন বাইরে থেকে ক্লাবে বোমা ছোঁড়া হয়েছে। এলাকার বাসিন্দারাও পুলিশকে জানান ঘটনার পরে পরেই দুই অচেনা যুবককে তাঁরা পালিয়ে যেতে দেখেন। যদিও ঘটনার তদন্তে নামা বেলেঘাটা থানার পুলিশ প্রথম থেকেই মনে করছিল বাইরে থেকে বোমা ছোঁড়া হয়নি। ঘরের মধ্যে বোমা বাঁধার সামগ্রি মজুত ছিল। তা থেকেই কোনঅভাবে বিস্ফোরণ হয়েছে।
 
মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাস্থলে যান কলকাতা পুলিশের ফরেন্সিক দলের আধিকারিকেরা। তাঁরা বিস্ফোরণস্থল থেকে বেশ কিছু নমুনা সংগ্রহ করেন। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, বোমা বা বোমা তৈরির মালমশলাই মজুত ছিল ক্লাবঘরের ভিতরে। সেখান থেকেই বিস্ফোরণ ঘটেছে। বিস্ফোরণের অভিঘাতে বাড়ির কংক্রিটের একাংশ-সহ অ্যাসবেসটসের ছাদ এবং ঘরের দু’দিকের দেওয়াল ধ্বসে গিয়েছে। দেশি বোমায় ব্যাবহার করা হয় এমন প্রচুর সপ্লিন্টার ঘরের মধ্যে পাওয়া গিয়েছে। বিস্ফোরণস্থলে মিলেছে সালফার বা গন্ধকের উপস্থিতিও। দেশি বোমা তৈরি করতে এই সালফার ব্যবহার করা হয়। কলকাতা পুলিশের ডিসি অজয় প্রসাদ জানিয়েছেন, ‘পুলিশ বিস্ফোরক আইনে স্বতঃপ্রণোদিত একটি মামলা দায়ের করেছে। এফআইআরে ক্লাবের নাম থাকছে। ক্লাবের কে কোন পদে আছেন, কারা কী কাজ করেন, কার কী ভূমিকা সেই সব কিছু খতিয়ে দেখা হবে।’  

Comm AD 12 Myra

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC

Editors Choice

Comm Ad 006 TBS