Comm Ad 005 TBS

বৈশাখীকে গুরুত্ব দিতে গিয়ে কী শোভন রাজনীতিতে ব্রাত্য হয়ে যাচ্ছেন! উঠছে প্রশ্ন

Share Link:

বৈশাখীকে গুরুত্ব দিতে গিয়ে কী শোভন রাজনীতিতে ব্রাত্য হয়ে যাচ্ছেন! উঠছে প্রশ্ন

নিজস্ব প্রতিনিধি: যে প্রশ্নটা আগে মুখে মুখে ঘুরছিল সেটাই এবার প্রকাশ্যে আসতে শুরু করে দিল। সেই প্রশ্নের অভিমুখে আপাতত শোভন চট্টোপাধ্যায়। নেপথ্যে অবশ্যই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রশ্নটা আর কিছুই নয়, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাড়তি গুরুত্ব দিতে গিয়ে শোভন নিজেই রাজ্য রাজনীতিতে ব্রাত্য হয়ে যাবেন না তো! নিজের গুরুত্ব হারিয়ে হারিয়ে ফেলবেন না তো! এই প্রশ্নটা ওঠার মূলে রয়েছে রবিবার রাজ্য বিজেপির নেতৃত্বের ডাকা বিজয়া সম্মিলনির প্রীতিভোজ এড়িয়ে যাওয়ার ঘটনা। সেই প্রীতিভোজের জন্য রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব শোভনবাবুকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। কিন্তু আলাদা করে বৈশাখীকে ফোন আর কেউ করেনি। এতেই শোভন ও বৈশাখীর ধারনা কলকাতার প্রাক্তন মেয়রকে যতটা গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে তার ছিঁটেফোঁটা গুরুত্বও পাচ্ছেন না তাঁর বান্ধবী। আর তাই শোভন গেলেনই না রাজ্য বিজেপির আমন্ত্রণে। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠছে শোভনের তাহলে এখন অবস্থানটা ঠিক কী? তিনি বিজেপিতে আছেন না নেই! দিনের পর দিন এভাবে দলের কর্মসূচী, সভা এড়িয়ে গেলে দল কী আর পিছনে থাকবে। সেক্ষেত্রে শোভনের রাজনৈতিক ভবিষ্যত কী হবে! তার থেকেও বড় প্রশ্ন সর্বত্র বৈশাখীকে গুরত্ব দিতে গিয়ে শোভন নিজেই ব্রাতের তালিকায় চলে যাবেন না তো!    
 
শোভন অবশ্য এই সব বিষয় নিয়ে একদমই ভাবছেন না। বরঞ্চ বুঝিয়ে দিচ্ছেন তাঁর সমান গুরুত্বই বৈশাখীকেও দিতে হবে। আর এখানেই রাজ্য বিজেপির নেতাদের প্রশ্ন, বৈশাখী কে? তিনি অধ্যাপিকার পাশাপাশি শোভনের বান্ধবী। কিন্তু তাঁর কোনও রাজনৈতিক পরিচিতি নেই। তিনি কোনওদিন প্রত্যক্ষভাবে রাজনীতি করেননি। শোভনবাবুর সঙ্গে বন্ধুত্বে জড়ানোর আগে ও তাঁকে কেন্দ্র করে শোভনবাবুর সংসারে অশান্তি শুরু হওয়ার আগে পর্যন্ত রাজ্যের কেউ বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিনতই না। আজও বৈশাখীর সেটাই পরিচয়। তিনি এর বাইরে আর কোনও পরিচয় গড়ে তুলতে নিজেই চাইছেন না। তিনি বিজেপির কোনও সভায় আসবেন না, কোনও কর্মসূচীতে অংশ নেবেন না, কোনও বৈঠকে যোগ দেবেন না, তাহলে তিনি করবেনটা ঠিক কী? তিনি কি এটাই চাইছেন যে বিজেপি তাঁর জন্য আসন সাজিয়ে রেখে দেবে আর শোভন চট্টোপাধ্যায়ের কাঁধে ভর দিয়ে তিনি সেখানে এসে বসবেন! যদি তিনি এই কথাই ভেবে থাকেন তো তা ভুল। দল যাকে প্রয়োজন মনে করবে তাঁকে ঠিকই ডেকে নেবে। কোনও দলই নেতানেত্রী তৈরি করে দিতে পারে না যদি না সে নিজে থেকে মাঠে নামে। বৈশাখী বন্ধ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে আপাতত এটাই রাজ্য বিজেপির নেতাদের একাংশের অভিমত যা রবিবার প্রকাশ্যে চলে এসেছে শোভন চট্টোপাধ্যায় প্রীতিভোজে অংশ না নেওয়ায়।  
 
এহেন পরিস্থিতিতে রাজ্য রাজনীতির অভিজ্ঞরা মনে করছেন, শোভন চট্টোপাধ্যায় ভুল করছেন। বন্ধুত্ব থাকুক সম্পর্কের জায়গায়, রাজনীতির কেরিয়ার চলুক রাজনীতির পথে। শোভনবাবু যদি জিদ ধরে ঘরে বসে থাকেন যে বৈশাখী বিনা তিনি বিজেপির কোনও কর্মসূচীতে যোগ দেবেন না তাহলে আখেরে তিনি নিজের পায়েই কুড়ল মারছেন। দিনের পর দিন ধরে দলের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে বসে থাকলে একসময় দলও বাধ্য হবে তাঁর দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে। তখন তাঁর রাজনৈতিক ভবিষ্যত কী হবে? না বিজেপি, না তৃণমূল। যাবেনটা তাহলে কোথায়। সংসার ভেঙেছে, পুরাতন দল ছাড়ায় বিধায়ক পদ, মেয়র মন্ত্রীত্ব সবই গিয়েছে। হাতে রইল তালে কী! যে দিক থেকে পেতে পারতেন সেদিক থেকেও মুখ ফিরিয়ে বসে থাকলে ভবিষ্যত কী! ভাবতে হবে কলকাতার প্রাক্তন মেয়রকে। সময় বড়ই নিষ্ঠুর, কাউকে ছেড়ে কথা বলে না। প্রাক্তন মেয়রকেও ছেড়ে কথা বলবে না।

Comm Ad 2020-WB Tourism body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 008 Myra

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-LDC Egg

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-LDC Momo

Editors Choice

Comm Ad 008 Myra