Comm Ad 2020-WB Tourism body

বাংলায় আবার রেকর্ড সংক্রমণ কোভিডের! ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৩ হাজার ৮৬৫জন

Share Link:

বাংলায় আবার রেকর্ড সংক্রমণ কোভিডের! ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৩ হাজার ৮৬৫জন

নিজস্ব প্রতিনিধি: পুজো যত এগিয়ে আসছে ততই যেন জোর বাড়ছে মারণ ভাইরাসের। নিত্যনতুন সে ছড়িয়ে পড়ার জন্য আরও বেশি বেশি করে মানুষ বেছে নিচ্ছে। আর তাতেই বাংলায় বেড়ে চলেছে সংক্রমণের বেগ। যা অবস্থা তাতে হয়তো আগামী সপ্তাহে শাস্ত্রীয়মতে পুজো শুরুর আগেই একদিনে রাজ্যে কোভিডে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজারের সীমা ছাড়িয়ে ফেলবে। মানে প্রতিদিন তখন রাজ্যের ৪ হাজার করে বা তার বেশি মানুষ আক্রান্ত হবেন কোভিডে। এই অনুমানের কারন রাজ্যে ক্রমশ চড়ছে দৈনিক সংক্রমণের হার ও সংখ্যা। শনি সন্ধ্যায় রাজ্য সরকার যে কোভিড তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৮৬৫জন। স্বাভাবিক ভাবেই তাই মনে করা হচ্ছে এই ভাবে সংক্রমণ বাড়তে থাকলে অচিরেই ৪ হাজারের ঘরও ছাপিয়ে যাবে কোভিড-১৯।
 
শনিবার রাজ্য সরকারের দেওয়া তথ্য বলছে গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে ৩ হাজার ৮৬৫জন মানুষ কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পাশাপাশি ৩ হাজার ১৮৩জন মানুষ সুস্থও হয়ে উঠেছেন। মৃত্যুর সংখ্যাও কার্যত গত কয়েকদিনের গড় হিসাব মতো ৬১তেই আটকে গিয়েছে। রাজ্যে সক্রিয় কোভিড কেসের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৩ হাজার ১২১। এই সক্রিয় কেসের সংখ্যা এখন যেমন রোজই বেড়ে চলেছে তেমনি রোজ একটু একটু করে বাড়ছে সংক্রমণের হারও। রাজ্যে এখন মোট সংক্রমিত সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩ লক্ষ ১৭ হাজার ৫৩। মোট সুস্থতার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লক্ষ ৭৭ হাজার ৯৪০। মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৯৯২। সুস্থতার হার দাঁড়িয়েছে ৮৭.৬৬ শতাংশ। সংক্রমণের হার দাঁড়িয়েছে ৮.০৩ শতাংশ। গত ২৪ ঘন্টায় কোভিড টেস্ট করিয়েছেন ৪৩ হাজার ৪২৮জন। মোট টেস্টের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৯ লক্ষ ৪৭ হাজার ৭৫০।
 
জেলাগুলির মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় সব থেকে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন উত্তর ২৪ পরগনায়, ৭৯২জন। তার গা ঘেঁষেই রয়েছে কলকাতা। সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৮৪জন। দক্ষিন ২৪ পরগনা জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৫৩জন ও হাওড়ায় ২৪৫জন। এরপরেই সব থেকে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন নদিয়ায়, ১৫৮জন। দুই মেদিনীপুরে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫৪জন করে। এই প্রথম দুই জেলায় একদিনে সমপরিমাণ মানুষ আক্রান্ত হলেন। এছাড়াও হুগলিতে ১৪৮জন, পূর্ব বর্ধমানে ১২৩জন, পশ্চিম বর্ধমানে ১২১জন, জলপাইগুড়িতে ১১৮জন ও দার্জিলিংয়ে ১০৪জন আক্রান্ত হয়েছেন। বাকিরা অনান্য জেলার। যে ৬১ জন মারা গিয়েছেন তাঁদের মধ্যে ১৫জন করে রয়েছেন কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনার। অর্থাৎ রাজ্যে যতজন মারা গিয়েছেন তাঁদের মধ্যে অর্ধেক এই দুই জেলার। আবার অনান্য জেলাগুলির মধ্যে হাওড়ায় ৭জন, হুগলি, নদিয়া ও দক্ষিন ২৪ পরগনায় ৪জন করে, পূর্ব মেদিনীপুরে ৩জন, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার ও মালদায় ২জন করে এবং দার্জিলিং, পশ্চিম বর্ধমান ও পশ্চিম মেদিনীপুরে ১জন করে মারা গিয়েছেন। রাজ্যে যত সক্রিয় কেস রয়েছে তার মধ্যে সব থেকে বেশি কেস রয়েছে যথারীতি কলকাতায়, ৭ হাজার ৩৪৯টি। উত্তর ২৪ পরগনাতেও সক্রিয় কোভিড কেসের সংখ্যা ৭ হাজারের ওপরে রয়েছে। সেখানে সক্রিয় কেসের সংখ্যা ৭ হাজার ২৫। এছাড়া দক্ষিন ২৪ পরগনায় ২ হাজারের বেশি এবং নদিয়া, দুই মেদিনীপুর, পশ্চিম বর্ধমান, হাওড়া ও হুগল জেলায় হাজারের ওপর সক্রিয় কোভিড কেস রয়েছে।

Comm Ad 018 Kalna

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Pujo2020-T01

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

corona 02

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

Voting Poll (Ratio)

Pujo2020-T01

Editors Choice

Comm Ad 026 BM