Comm Ad 005 TBS

বাবা-মাকে খুন করে ঘরে বসে রইলো উচ্চশিক্ষিত ছেলে! চাঞ্চল্য শিবপুরে

Share Link:

বাবা-মাকে খুন করে ঘরে বসে রইলো উচ্চশিক্ষিত ছেলে! চাঞ্চল্য শিবপুরে

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাবা-মার একমাত্র ছেলে। এমসিএ পাশ করেও কোথাও পায়নি চাকরি। আর তা থেকেই শুরু হয়েছিল মানসিক সমস্যা যা একসময় পাড়াপ্রতিবেশী থেকে আত্মীয়রা বুঝতে পারলেও বুঝতে চাননি ছেলেটির বাবা-মা। ঠিক সময়ে চিকিৎসা করালে হয়তো এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটতো না, ছেলেকেও জেলে যেত হত না। বাবা-মাকে খুন করার ঘটনায় পুলিশ বুধবার গ্রেফতার করেছে সেই এমসিএ পাশ করা ছেলেকে। তবে পুলিশও এটা বুঝতে পারছে যে, সেই ছেলে যে এখন বছর ৪৫’র মধ্যবয়স্ক ব্যক্তি সে স্বাভাবিক নয়। তার মানসিক সমস্যা রয়েছে। নাহলে বাবা-মাকে খুন করে সেই দেহ চারদিন ধরে আগলে রেখে বদ্ধ ঘরে কেউ পড়ে থাকতে পারে! চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়া শহরের শিবপুর থানার কৈপুকুর এলাকায়। একই সঙ্গে এই ঘটনার জেরে আবারও ফিরে এসেছে রবিনসন স্ট্রিটের ছায়া।
 
জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিন ধরেই কৈপুকুর এলাকায় ১৭ নম্বর কৈপুকুর লেনের একটি আবাসনের চারতলার একটি ফ্ল্যাটে থাকতেন বোস দম্পতি প্রদ্যুত বোস ও গোপা বোস। একমাত্র ছেলে শুভজিৎকে নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই তাঁরা সেখানে আছেন। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, গত শনিবার থেকেউ প্রদ্যুতবাবু ও তাঁর স্ত্রীকে দেখতে পাননি কেউ। তবে তাঁরা প্রতিবেশীদের সঙ্গে খুব একটা মিশতেন না বলে প্রথম দিকে কারও মনেই সন্দেহ দানা বাঁধেনি। কিন্তু গত দু’দিন ধরেই তীব্র পচা দুর্গন্ধ পাচ্ছিলেন আবাসনের অন্যান্যরা। বুধবার দুর্গন্ধ তীব্র হতেই সন্দেহ হয় তাঁদের। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পুলিশ এসে বাইরে থেকে বেল বাজালেও কেউ দরজা খোলেনি। তখন পুলিশ দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে দেখে সোফায় পড়ে রয়েছে পচা গলা গোপাদেবীর দেহ ও পাশের ঘরে পড়ে রয়েছে প্রদ্যুতবাবুর দেহ। অন্য একটি ঘরে জবুথবু হয়ে বসেছিল শুভজিতবাবু। তার হাতে ও গায়ে ছিল রক্তের দাগ।
 
পুলিশ দুইজনেরই দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। সেই সঙ্গে গ্রেফতার করা হয় শুভজিতবাবুকে। প্রাথমিক ভাবে পুলিশের অনুমান শুভজিতবাবুই এই দুটি খুনের ঘটনা ঘটিয়েছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে খুনের কথা স্বীকারও করেছঅন তিনি। তবুও নিজেদের মতো করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। প্রতিবেশীদের মাধ্যমে জানা গিয়েছে, প্রদ্যুতবাবু একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করতেন। ভালো মাইনেও পেতেন। নিজের আয়েই ফ্ল্যাট কিনে স্ত্রী ও ছেলেকে নিয়ে থাকতেন। শুভজিৎ অত্যন্ত মেধাবি ছাত্র ছিল সে। এমসিএ পাশ করেছিল। কিন্তু বোস দম্পতি কোনওদিনই কারোর সঙ্গে শুভজিতকে মিশতে দিত না, নিজেরাও কারোর সঙ্গে মিশতো না। আর তা থেকেই শুভজিতের মানসিক সমস্যার শুরু। সবাই তা বুঝতে চাইলেও বোস দম্পতিতে তা কোনওদিনই স্বীকারই করতেন না। শুভজিত স্বাবলম্বী না হওয়ায় ও কোথাও কোনও চাকরি না পাওয়ায় প্রদ্যুতবাবুর অবসরের পরে সংসারে অভাব নেমে আসে। লকডাউনের জেরে সেই অভাব কার্যত চূড়ান্ত আকার ধারন করে। তার পরে পরেই এই ঘটনা নাড়া দিয়ে গেল শিবপুরবাসীকে। পুলিশের ধারনা কালিপুজোর রাতেই খুনের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। তারপর বাবা-মার মৃতদেহ আগলে ফ্ল্যাটের সব দরজা জানলা বন্ধ করে একাই পড়েছিল শুভজিৎ বোস। পুলিশ অবশ্য তাঁকে গ্রেফতার করলেও তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থাও করেছে। তবে এই ঘটনার জেরে শিবপুরবাসীর কাছে রবিনসন স্ট্রিটের ঘটনা আরও একবার মনে পড়ে গিয়েছে।

Comm Ad 2020-LDC epic

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

2020 New Ad HDFC 05

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-LDC Momo

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 006 TBS

Editors Choice

Comm Ad 026 BM