এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

‘লাখপতি দিদি’ হওয়ার প্রস্তাব ফেরাচ্ছেন বাংলার মহিলারা, নাজেহাল বিজেপি

Courtesy - Twitter

নিজস্ব প্রতিনিধি: হায় রে এ কী দুর্দশা! ‘লাখপতি দিদি’ করার টোপ দিয়েও পদ্ম শিবিরে জুটছে না মহিলা। আর সেটাও কিনা লোকসভা নির্বাচনের(General Election 2024) মুখে। হ্যাঁ এটাই বঙ্গ বিজেপির(Bengal BJP) বর্তমান দুর্দশা। বাংলার মহিলাদের(Women of Bengal) কাছে আর নেই বিজেপির প্রতি ছিঁটেফোঁটাও ভরসা। নরেন্দ্র মোদি সরকারের(Modi Government) মাধ্যমে ‘লাখপতি দিদি’ হয়ে ওঠার সুযোগ দেখানো টোপ দিয়েও দলে বাংলার মহিলাদের টানতে পারছে না পদ্ম শিবির। বাংলা থেকে এবার ৩৫টি আসন জেতার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে বিজেপি। কিন্তু সেই জয় তো তখনই আসবে যখন বাংলার মহিলারা বিজেপির পাশে গিয়ে দাঁড়াবে। কিন্তু দাঁড়াচ্ছে কোথায়! তাঁরা তো মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। বাংলার মহিলা ভোটব্যাঙ্ক কব্জা করার লক্ষ্যে বিজেপির তরফে রাজ্যজুড়ে মহিলাদের দেওয়া হচ্ছে ঢাল প্রস্তাব। লাখপতি দিদি বানিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব। তবে এখনই লাখপতি হওয়ার সুযোগ নেই। লোকসভা ভোটে বিজেপি জিতে তৃতীয়বার মোদি সরকার ক্ষমতায় এলে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর লোনের মাধ্যমে ব্যবসা করে লাখপতি হওয়া যাবে। কিন্তু বিজেপির এমনই প্রস্তাবকে পত্রপাঠ খারিজ করে দিচ্ছেন বাংলার মহিলারা। আর তাতেই নাজেহাল বিজেপির নেতা থেকে কর্মীরা। 

কেন নাজেহাল দশা? কেননা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের নির্দেশে বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব দলের নেতা থেকে কর্মীদের জানিয়ে দিয়েছে, লোকসভা নির্বাচনের আগেই দলের প্রতিটি মন্ডল কমিটিতে ১০জন করে মহিলা কর্মীর যোগদান নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, বাংলার সিংহভাগ মহিলাই বিজেপির কর্মী হতে চাইছেন না। বিজেপিতে যোগ দিতে চাইছেন না। তাঁরা যাতে যোগ দেন বিজেপিতে তাঁর জন্য তাঁদের ‘লাখপতি দিদি’ বানানোর টোপও দেওয়া হচ্ছে পদ্মশিবিরের তরফে। কিন্তু তাতেও কোনও কাজ হচ্ছে না। প্রতি মণ্ডলে দশজন করে মহিলা আনতে হিমশিম খাচ্ছে গেরুয়া শিবির। মহিলা ভোটারদের কোনও ভাবেই প্রভাবিত করা যাচ্ছে না বুঝে এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকারের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের সুবিধা পাওয়া মহিলাদের সামনে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পদ্মশিবির। কিন্তু আনলে কী হবে, বিজেপিকেই তো পাত্তা দিতে চাইছেন না বাংলার মা-বোনেরা।

ওয়াকিবহাল মহলের দাবি, বাংলার ক্ষমতাসীন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের(Mamata Banerjee) সরকারের কাছ থেকে বাংলার মা-বোনেরা যে গুরুত্ব পাচ্ছেন, তার সিকিভাগ গুরুত্বও বিজেপি শাসিত রাজ্যে সেখানকার মহিলারা পান না। উপরন্তু দেশের বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে ধারাবাহিক ভাবে মহিলাদের ওপর নানা অত্যাচারের ঘটনা ঘটে চলেছে। সেই সব ঘটনা কার্যত বলেই দিচ্ছে, বিজেপি ঠিক কতটা মহিলা বিরোধী। আর তাই বাংলার মা-বোনেরাও বিজেপির দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে থাকছেন। সব থেকে বড় কথা বাংলার বুকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কাছ থেকে বাংলার মা-বোনেরা যেভাবে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার থেকে স্বাস্থ্যসাথী, কন্যাশ্রী থেকে রূপশ্রীর সুবিধা পাচ্ছে তার ধারে কাছেও কোনও সুবিধা বিজেপি দিতে পারবে না। আর সেখানেই কার্যত বিজেপি পিছিয়ে পড়ছে তৃণমূলের কাছে। প্রধানমন্ত্রী বাংলায় এসে গুচ্ছের সভা করে বাংলার বুকে মহিলা নির্যাতনের হাজারো ফিরিস্তি গাইলেও যে বাংলার মা-বোনেদের ভোট পাবে না সেটা একরকম নিশ্চিত। আর মহিলাদের সমর্থন না পেলে ৩৫টা আসন আসবে কোথা থেকে! প্রশ্ন ঘুরছে বিজেপিরই অন্দরে।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

১৯ লক্ষ মানুষের মাথায় পাকা ছাদ, ‘গৃহশ্রী’ পোর্টাল আনছে রাজ্য

কলকাতা সহ পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে আগামী ৫ দিন তাপপ্রবাহ চলবে

‘কালীঘাটের কাকু’র কণ্ঠস্বরের রিপোর্ট আদালতে জমা ইডির

নিউটাউনে পরিত্যক্ত বহুতল থেকে উদ্ধার যুবকের নিথর মৃতদেহ

ভোট পেতে কুণাল ঘোষকে ফোন কংগ্রেস প্রার্থী  প্রদীপ ভট্টাচার্যের

২৬ হাজার চাকরি বাতিলের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ, সুপ্রিম কোর্টে এসএসসি

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর