এই মুহূর্তে

‘গরিব মানুষের প্রাপ্য টাকা দিন’, শাহকে পত্রবাণ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের

নিজস্ব প্রতিনিধি: দীর্ঘ ৯ বছর বাদে কলকাতায় প্রকাশ্য সভা করতে বুধবার শহরে পা রাখছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আর মহানগরীতে পা রাখার আগেই মোদি সরকারের দ্বিতীয় শক্তিশালী পদাধিকারীকে রাজ্যের বকেয়া পাওয়া মেটানোর আর্জি জানিয়ে চিঠি দিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। ওই চিঠিতে অবিলম্বে গরিবদের প্রাপ্য বকেয়া মেটানোর আর্জি জানানোর পাশাপাশি কর্মসংস্থান নিয়েও খোঁচা দেওয়া হয়েছে।

শাহকে চিঠিটি পাটিয়েছেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য। চিঠির প্রতি ছত্রে কেন্দ্রকে খোঁচা দেওয়া হয়েছে। চিঠিতে লেখা হয়েছে, ‘নির্বাচন এলেই দেশের প্রধানমন্ত্রী-সহ আপনাদের দিল্লির সব নেতাদের এই বাংলার পবিত্র মাটিতে বিদ্যুতের গতিতে আনাগোনা বৃদ্ধি পায়। ফলত বাংলার মানুষ প্রচুর ধুলো ওড়ানো হেলিকপ্টার আর আধুনিক অস্ত্রধারী কেন্দ্রীয় বাহিনী দেখতে পায়। এতে তাদের মনোরঞ্জন ঘটে বটে, তার চেয়ে বেশি কিছু বাংলার মানুষের প্রাপ্তি হয় না।’ কর্মসংস্থান নিয়ে খোঁচা দিয়ে লেখা হয়েছে, ‘দেশের আইনসভায় আপনারাই স্বীকার করেছেন, স্বাধীনতার পরে সবচেয়ে বেশি বেকারত্বের রেকর্ড আপনারাই গড়ছেন। আপনাদের সময়ে ব্যাঙ্কগুলি সঙ্কুচিত হয়েছে, তাতে চাকরির সুযোগ কমেছে। রেল, বিএসএনএল-সহ সরকারী সংস্থাগুলির বেসরকারিকরণ করেছেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার সঙ্গে ‘ওএলএক্সের’ কোনও পার্থক্য রাখেননি।’

চিঠির শেষাংসে বাংলার প্রতি মোদি সরকারের ঘৃণা আর বিদ্বেষের কথা উল্লেখ করে লেখা হয়েছে, ‘আপনি বাংলার মানুষকে একবারই পছন্দ করেন না। আপনি গতবার বিধানসভা ভোটের আগে বলেছিলেন, অবকি বার ২০০ পার। কিন্তু আপনার দলের জেতা বিধায়করা পাঁচিল টপকে তৃণমূলে আসছেন, তাতে বাংলার মানুষের দোষ কী বলুন? বাংলার গরিব মানুষ ১০০ দিনের কাজ করেছেন, তাদের বৈধ জব কার্ড রয়েছে। সাথে আধার নম্বর থাকলেও কিছুতেই প্রাপ্য টাকা পাচ্ছেন না। আপনার দলের নেতারা বলছেন, তৃণমুল চুরি করেছে, কিন্তু কেউ থানায় গিয়ে এফআইআর করছেন না। কী অদ্ভুত পরিস্থিতি বলুন তো? আপনাকে অনুরোধ করছি, গরিব মানুষের প্রাপ্য টাকা দিয়ে দিন। কলকাতায় আসুন, সভা করুন, প্রতিশ্রুতি দিন, কিন্তু তার সিকিভাগ অন্তত পুরণ করুন।’  

Published by:

Sundeep

Share Link:

More Releted News:

যাদবপুরের সার্ভে পার্ক এলাকাতে ভুয়ো কল সেন্টার চক্রের হদিশ, ধৃত ৮

২৭ ফেব্রুয়ারি দুই ঘণ্টার জন্য বন্ধ দ্বিতীয় হুগলি সেতু

শিশুদের বিরল রোগ দূরীকরণে বিশেষ উদ্যোগ নিল কলকাতা পুরসভা

কেন্দ্রের রিপোর্টেই ফাঁস বাংলাকে নিয়ে গেরুয়ার মিথ্যা প্রচার

রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি কেমন, জানতে চাইলেন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক

দলের মুখ পুড়িয়ে দিলেন কোনঠাসা দিলীপ, উগরে দিলেন ক্ষোভ

Advertisement

এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর