Comm Ad 018 Kalna

কোভিডে ভালো থাকার দিশা

Share Link:

কোভিডে ভালো থাকার দিশা

নিজস্ব প্রতিনিধি: বর্তমানে কোভিড পরিস্থিতিতে আমরা সবাই নাজেহাল। উদ্বেগ, দুশ্চিন্তা, মন খারাপ, পেরিয়ে এই দীর্ঘ সময় পর আমাদের আবেগ কেমন চুপ করে গেছে। কিছুই অনুভব করতে পারছে না। মাঝে মাঝে মনে হচ্ছে আমরা একটা ভিডিও গেমের মধ্যে, যেখানে প্রথম স্ট্রেন, দ্বিতীয় স্ট্রেন, পেরিয়ে তৃতীয় স্ট্রেনের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আছি। আবার বাইরে শত্রু হিসেবে সাইক্লোন, ব্ল্যাক ফাঙ্গাস, আক্রমণ করে চলেছে। মনে প্রশ্ন একটাই। এই অবস্থার কি কোনো শেষ নেই? অতিমারি থেকে কবে বের হব আমরা?

রইল এই পরিস্থিতিতে ভালো থাকার কিছু টিপস

(১) ভালো থাকতে গেলে প্রথমেই অতীত এবং ভবিষ্যৎ থেকে মনটা সরিয়ে বর্তমানের দিকে আনতে হবে। অতীতে যা হয়ে গেছে আমরা ফেরাতে পারবোনা এবং ভবিষ্যৎ এর উপরেও আমাদের নিয়ন্ত্রন নেই। শুধু বর্তমান টুকুকে আমরা ভালো রাখতে পারি। এই যে বর্তমানে আমি লিখতে পারছি ও আপনারা পড়তে পারছেন এই টুকুই আশীর্বাদ। এই মুহূর্তটা ভালোভাবে কাটান। আজকের দিনটা আনন্দ করে সবাই মিলে কাটান। কালকে কি হতে চলেছে সেই ভেবে আজকের মুহূর্ত নষ্ট করবেন না। মনে রাখুন এই মুহূর্তে অনেকের থেকে আপনি ভালো আছেন। সুস্থ আছেন।

(২) এই সময় একটা বড় সমস্যা হল ওয়ার্ক ফ্রম হোম বা বাড়ি থেকে কাজ এর সমস্যা। অনেকের বাড়িতে এমন জায়গা নেই যে নির্জনে বসে কাজ করা যায়। যেহেতু আমরা বাড়ির প্রত্যেক সদস্যরাই বাড়িতে উপস্থিত এবং প্রত্যেকেরই কিছু না কিছু নির্দিষ্ট কাজের তালিকা রয়েছে, এবং ছোট বাচ্চাদের ও এখন অনলাইন ক্লাস চলছে, সকলেরই তাদের নিজেদের মতন করে ফাঁকা জায়গা চাই। এটা একসাথে অ্যারেঞ্জ করা অনেক সময় সম্ভব হচ্ছে না। তার জন্য কাজের উপযুক্ত মন ও দেওয়া যাচ্ছে না। এর সমাধানের জন্য প্রয়োজনে ঘরের ব্যবস্থাপনাকে একটু পরিবর্তন করতে হবে। ঘরের মধ্যে একটি নির্দিষ্ট জায়গা ঠিক করতে হবে, যেটা অপেক্ষাকৃত নির্জন এবং যিনি ওয়ার্ক ফ্রম হোম করবেন তিনি তখন সেই জায়গাতে বসে করবেন। নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে প্রয়োজনে আসবাবপত্রের পরিবর্তন করে এটি করা যেতে পারে।

(৩) এই সময় মেজাজ অনেক সময় খিটখিটে হয়ে যাচ্ছে বা রাগ বেশি হয়ে যাচ্ছে। রাগ বেশি হলে প্রথমেই ভেবে দেখতে হবে, যে রাগের কারণের তুলনায় রাগের প্রকাশ কি অতিরিক্ত বেশি হয়ে যাচ্ছে। সে ক্ষেত্রে এর কারণটা একটু ভেবে দেখতে হবে। হয়তো কাজের চাপ বেড়ে গেছে। আবার সকলের একসাথে উপস্থিতি নিজের নিজস্বতা বা স্বাধীনতা কমিয়ে দিচ্ছে। কারণটা ঠিকমতো ভেবে তার সমাধানের দিকে এগোতে হবে। অতিরিক্ত রেগে গেলে ঠিক সেইসময় কিছু করা থেকে বিরত থাকুন। প্রয়োজনে উল্টোদিকের মানুষটাকে বলুন এখন আপনি একটু বিরতি চাইছেন। বাড়ির সবার সাথে প্রয়োজনে আলোচনায় বসুন।

(৪) ঘুমের সমস্যা অনেক সময় বেড়ে যেতে পারে। রাত্রে ঠিক ঘুম না হলে সারাদিনই একটা ঝিমুনি ভাব থেকে যাচ্ছে। যেহেতু এই সময় অফিস এবং ঘরের কাজ একসাথে চালাতে হচ্ছে এবং কোন কাজেরই নিদৃষ্ট সীমারেখা বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছে না, সেইহেতু আমাদের প্রত্যেকেরই, সময়, দিন, রাত ইত্যাদি একটু গুলিয়ে যাচ্ছে। দিনের কাজের সময় যতটা সম্ভব বিছানাকে এড়িয়ে চলুন। বিছানা টুকু শুধু রাত্রে ঘুমানোর জন্য ব্যবহার করুন। যখন আপনি কাজে বেরোতেন, সেই সময় যেই রুটিনটা মেনে চলতেন যতটা সম্ভব সেই রুটিন টাই মেনে চলার চেষ্টা করুন। তবে কোনো কিছুর জন্যই নিজের ওপর চাপ দেবেন না। যদি কোনদিন একটু ঢিলেমি লাগে সেদিন নিজের ওই অবস্থা টাকেই মেনে নিন। রাত্রে ঘুম না হলে, দিনে কোনো সময় ঘুম পেলে, সেই সময়ই ঘুমিয়ে নিন। সময়ের ব্যাপারে এই সময়গুলোতে একটু ফ্লেক্সিবল হওয়া যেতে পারে। কেন ঠিক মতো হচ্ছে না এই নিয়ে অতিরিক্ত চাপ নেবেন না। এই সময়টাই একটু অন্যরকম। তাই দিন রাত বা কাজকম্মের এই 'একটু অন্যরকম' ব্যাপারগুলো হতেই পারে।

(৫) অনেক সময় দেখা যাচ্ছে সম্পর্কের খুঁটিনাটি গুলো এ সময় আমাদের বেশি চোখে পড়ছে। অনেকটা সময় একসাথে কাটানোর জন্য, যা দেখেও দেখিনি বা বুঝেও বুঝি নি, সেগুলো দেখতে এবং বুঝিতে আমরা বাধ্য হচ্ছি। অনেক ভুল-ত্রুটি চোখে পড়ছে, অনেক না পাওয়া মেলে ধরছে , অনেক ইচ্ছে পূরণ হতে চাইছে। নিজেকে সময় দিন। এই সময়টা একদিন কেটে যাবে। জীবনে কোন কিছুই চিরস্থায়ী নয়। তাই সমস্যাও চিরস্থায়ী নয়। সম্পর্কের এই ছোট ছোট চাহিদা এবং পাওয়া, না পাওয়া গুলি কে নিয়ে এক্ষুনি কোনো সিদ্ধান্ত না নেওয়াই বুদ্ধিমানের। নেতিবাচক, ইতিবাচক কোনটাই নয়।

নিজের ভালো লাগার জায়গাগুলো নিয়ে ভাবুন। পরিবারের সকলে মিলে একসাথে সময় কাটানো নিয়ে ভাবুন।ব্যস্ততা থাকার জন্য যে কাজ করা যায়নি সেই কাজ করা নিয়ে ভাবুন। আবার প্রডাক্টিভ কিছু একটা রোজ করতেই হবে, এই নিয়েও নিজেকে চাপ দেবেন না। নিজের ব্যাপারে, নিজের মনে হওয়ার ব্যাপারে, নিজের আবেগ, চিন্তার ব্যাপারে, ফ্লেক্সিবল হন। সমস্যা, ভালো না লাগা, মানেই তা অসুস্থতা নয়।

লেখক : পুষ্পিতা মুখার্জি (মনোবিদ ও শিক্ষিকা)

Comm Ad 005 TBS

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 006 TBS

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 026 BM

কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধা 
জানালেন ফিরহাদ হাকিম

কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধা জানালেন ফিরহাদ হাকিম

শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের আবক্ষ মূর্তীতে মাল্যদান করে বিশেষ শ্রদ্ধা জানালেন পুরপ্রশাসক ও রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম

শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের আবক্ষ মূর্তীতে মাল্যদান করে বিশেষ শ্রদ্ধা জানালেন পুরপ্রশাসক ও রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম

দায়িত্ব নেওয়ার পরেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে নতুন মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব

দায়িত্ব নেওয়ার পরেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে নতুন মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব

দায়িত্ব নেওয়ার পরেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে নতুন মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব

দায়িত্ব নেওয়ার পরেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে নতুন মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব

কোভিড হাসপাতালে পরিণত হল ইসলামিয়া হাসপাতাল, উদ্বোধন করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম

কোভিড হাসপাতালে পরিণত হল ইসলামিয়া হাসপাতাল, উদ্বোধন করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম

জামিনে মুক্ত হয়েই শুক্রবার রাত থেকেই কাজে নামেন ববি হাকিম, আজ এক হাসপাতালের উদ্বোধনে হাজির রাজ্যের মন্ত্রী ও পুরপ্রশাসক

জামিনে মুক্ত হয়েই শুক্রবার রাত থেকেই কাজে নামেন ববি হাকিম, আজ এক হাসপাতালের উদ্বোধনে হাজির রাজ্যের মন্ত্রী ও পুরপ্রশাসক

করোনার সময় এই অতিরিক্ত করোনা হাসপাতাল সাধারণ মানুষের উপকারে লাগবে বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম

করোনার সময় এই অতিরিক্ত করোনা হাসপাতাল সাধারণ মানুষের উপকারে লাগবে বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-LDC Momo
Comm Ad 2020-WBSEDCL RC