Brand-Promo-tmc-win2

গ্রামে নেই কোনও পুরুষ, তাও মহিলারা জন্ম দেন সন্তানের

Share Link:

গ্রামে নেই কোনও পুরুষ, তাও মহিলারা জন্ম দেন সন্তানের

নিজস্ব প্রতিনিধি:  দীর্ঘ প্রায় তিরিশ বছর ধরে গ্রামের ত্রিসীমানায় নেই কোনও পুরুষ। নিজেদের মত জীবন অতিবাহিত করতে পুরুষের প্রয়োজন নেই তা প্রমাণ করে দিয়েছেন এই গ্রামের মহিলারাই। গ্রামের মহিলারাই জন্ম দেন সন্তানের, নিজেরাই লালন পালন করেন। কিন্তু শারীরিক মিলন ছাড়া, বিশেষত শুক্রাণু ডিম্বাণুর মিলন ছাড়া সন্তানের জন্ম দেওয়া কি সম্ভব? কিন্তু এমন গ্রামও রয়েছে, যেখানে মেয়েরা সন্তান ধারণ করেন পুরুষের সহযোগীতা ছাড়াই।
 
এই গ্রামটি অবস্থিত দক্ষিণ আফ্রিকার কেনিয়ায় অবস্থিত, নাম উমোজা। গ্রামটির অভিনবত্বই স্বতন্ত্র গড়ে তুলেছে। এই গ্রামে গত ২৭ বছর ধরে শুধু মহিলারাই বসবাস করছেন, কোনও পুরুষ প্রবেশ করেনি। কিন্তু সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হল এই গ্রামের মহিলারা সন্তানের জন্ম দেন পুরুষের সাহায্য ছাড়াই। কিন্তু কীভাবে তা সম্ভব এর নেপথ্যে রয়েছে অন্য ইতিহাস।
 
উমোজা গ্রামটি কেনিয়ার সাম্বুরুতে অবস্থিত। সারা বিশ্বের মধ্যে কেনিয়ার এই গ্রামটি বিখ্যাত হওয়ার কারণ কাঁটা-ঝোপ দ্বারা বেষ্টিত গ্রামে পুরুষের প্রবেশ নিষিদ্ধ। ইতিহাস বলছে, ১৯৯০ সালে, ব্রিটিশ সৈন্যরা ওই গ্রামের ১৫ জন মহিলাকে ধর্ষণ করে এবং ওই গ্রামটি তাঁদের থাকার জন্য বেছে দেয়। এরপর যত দিন গড়িয়েছে ততই এই গ্রামটি এইসব মহিলাদের আশ্রয়স্থলে পরিণত হয়েছিল যারা পুরুষদের লালসা ও অত্যাচারের শিকার হয়েছেন। ধীরে ধীরে সমাজের কাছে ব্রাত্য হয়ে এই গ্রামের বুকে আশ্রয় নিয়েছেন তারাই যারা ধর্ষণ, বাল্য বিবাহ এবং পারিবারিক হিংসার মতো ঘটনার শিকার হয়েছিলেন। প্রতিনিয়ত মহিলারা পুরুষদের নির্যাতনের শিকার হয়ে দমবন্ধকর পরিস্থিতির হাত থেকে রেহাই পেতে উমোজা গ্রামের দ্বারস্থ হন। বরাবরের মত এই গ্রামের দরজা মহিলাদের জন্য উন্মুক্তই ছিল, এখনও তা রয়েছে।
 
বর্তমানে প্রায় ২৫০ মহিলা ও শিশুর বাস এই গ্রামে। তবে প্রশ্ন একটাই যে, এই গ্রামের মহিলারা কীভাবে পুরুষ ছাড়াই সন্তানের জন্ম দেন? যেহেতু এই গ্রামে পুরুষের প্রবেশ নিষেধ, তাই মহিলারা রাতের অন্ধকারে গ্রামের বাইরে কোনও প্রিয় পুরুষের সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হন। এরপরেই একা হাতে সন্তানের লালন-পালন করেন।
 
গ্রামের মহিলারাই তাঁদের গ্রামে প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাংস্কৃতিক কেন্দ্র এবং সাম্বুরু জাতীয় উদ্যান পরিচালনা করেন। শুধু তাই নয়, গ্রামটির নিজস্ব একটি ওয়েবসাইটও রয়েছে। সেখানে গ্রামের মহিলারা তাদের জীবন-জীবিকার জন্য এবং তাঁদের গ্রামের উন্নতির জন্য ঐতিহ্যবাহী গয়না তৈরি করেন এবং তা বিক্রয় করেন। দেশ বিদেশ থেকে বহু পর্যটক আসেন এই গ্রামটি পরিদর্শনে। আগত পর্যটকদের জন্য গ্রামের মহিলারা সাফারির বন্দোবস্তও করেছেন। গ্রামে ঢোকার মুখেই প্রবেশ অনুমতির জন্য কিছু অর্থের বিনিময়ে টিকিট দিয়ে থাকেন তাঁরাই। এরপর তাঁরাই পর্যটকদের গোটা গ্রামটা ঘুরিয়ে দেখান। এইভাবেই তাঁদের জীবিকা নির্বাহ হয়। অন্যদিকে, গ্রামের মহিলাদের সংখ্যা ধারাবাহিকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে, আর এভাবেই এখানকার মহিলারা নিজেদের জন্য একটা আলাদা জগত তৈরি করে নিয়েছেন। এই জীবন তাঁদের কাছে আনন্দেরও বটে।
 

2020 New Ad HDFC 04

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

corona 02

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-LDC Egg

পূর্বস্থলী ১ নং ব্লকের দক্ষিণ শ্রীরামপুর বাজার স্যানিটাইজেশনে নামলেন বিধায়ক স্বপন দেবনাথ

পূর্বস্থলী ১ নং ব্লকের দক্ষিণ শ্রীরামপুর বাজার স্যানিটাইজেশনে নামলেন বিধায়ক স্বপন দেবনাথ

নির্বাচনের সময় থেকেই করোনা সচেতনতা প্রচারে জোর দিয়েছেন বিদায়ী মন্ত্রী

নির্বাচনের সময় থেকেই করোনা সচেতনতা প্রচারে জোর দিয়েছেন বিদায়ী মন্ত্রী

করোনা নিয়ে নিজের বিধানসভার একাধিক এলাকায় সচেতনতা প্রচার চালিয়েছেন স্বপন দেবনাথ

করোনা নিয়ে নিজের বিধানসভার একাধিক এলাকায় সচেতনতা প্রচার চালিয়েছেন স্বপন দেবনাথ

কোভিড বিধি মেনেই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০ তম জন্মবার্ষিকী পালন করলেন স্বপন দেবনাথ

কোভিড বিধি মেনেই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০ তম জন্মবার্ষিকী পালন করলেন স্বপন দেবনাথ

নিজের এলাকাতেই ২৫ শে বৈশাখ উদযাপন করেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

নিজের এলাকাতেই ২৫ শে বৈশাখ উদযাপন করেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

 আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-LDC Egg
Comm Ad 2020-LDC Egg