Comm Ad 018 Kalna

মাদকদ্রব্যের ব্যবহারকে কখন অসুস্থতা বলবেন? জেনে নিন লক্ষণ গুলি

Share Link:

মাদকদ্রব্যের ব্যবহারকে কখন অসুস্থতা বলবেন? জেনে নিন লক্ষণ গুলি

নিজস্ব প্রতিনিধি: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মাদকদ্রব্যের সংজ্ঞা দিয়ে বলে যে, এটি হলো বাইরের কোনো বস্তু, যা গ্রহণ করলে জীবের বিভিন্ন কাজকর্মের পরিবর্তন বা পরিমার্জন ঘটে। ড্রাগ অ্যাডিকশন বলতে বোঝায় শারীরবৃত্তীয় আসক্তি এবং মানসিক নির্ভরতা।

শারীরবৃত্তীয় আসক্তির বৈশিষ্ট্য হলো, এগুলি নিয়মিত সেবনে অভ্যাস গঠন হয় এবং সেবন না করলে বা প্রত্যাহার করলে, ঘাম হওয়া, উত্তেজনার সৃষ্টি হওয়া, ইত্যাদির মতো প্রত্যাহার জনিত লক্ষণ দেখা দেয়।

মানসিক নির্ভরতার কারণ হলো নেশা উদ্রেককারী ড্রাগ সেবন। অভ্যাস গঠনের ফলে তা গ্রহণের পরিমাণ দিনের পর দিন বাড়তে থাকে, এবং নির্দিষ্ট স্তর পর্যন্ত এর কার্যকারিতা বজায় রাখার প্রয়োজন দেখা দেয়। আর হঠাৎ যদি ব্যক্তি ড্রাগ গ্রহণ বন্ধ করে দেয় তাহলে তার মধ্যে নানা রকমের উইথড্রল সিম্পটম দেখা দেয় যার ফলে তার জীবন সংশয় হতে পারে।

সাবস্টেন্স অ্যাবিউজ ডিজে অর্ডারের ক্ষেত্রে ড্রাগ, মদ, কোকেন, হিরোইন ইত্যাদি মাদক দ্রব্যের ব্যবহার এবং অপব্যবহারের ফলে মানুষের চিন্তা, অনুভূতি এবং আচরণের ক্ষেত্রে পরিবর্তন ঘটে।

ডিএসএম অনুযায়ী সাবস্টেন্স অ্যাবিউজ ডিজঅর্ডারের দুটি ভাগ উল্লেখ করা যেতে পারে।

১) সাবস্টেন্স ডিপেন্ডেন্ট ডিজঅর্ডার - বাহ্যিক মাদকাসক্তির ফলে ব্যক্তির আচরণে এক ধরনের নির্ভরতা জনিত তাৎপর্যপূর্ণ অসঙ্গতি দেখা যেতে পারে। এই ধরনের ব্যক্তিদের জ্ঞান মূলক, আচরণ মূলক এবং শারীর বৃত্তীয় ক্ষেত্রে কিছু বিশেষ লক্ষণ দেখা দেয়। বিশেষ একটি বস্তুর প্রতি তাদের আসক্তি দিন দিন বেড়ে যায়। ঐ বস্তু ব্যবহারের ফলে ব্যক্তি নানা সমস্যার সম্মুখীন হলেও তারা ঐ বস্তুর ব্যবহার বন্ধ করতে পারে না। পরবর্তী ক্ষেত্রে ওই বস্তুর একই ধরনের কার্যকারিতা পেতে তার গ্রহণের পরিমাণ বাড়াতে হয়। এর একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হলো টলারেন্স অর্থাৎ সংশ্লিষ্ট বস্তুর ব্যবহারের পরিমাণ বাড়ানো, যাতে একই ধরনের কার্যকারিতা বা প্রভাব বজায় থাকে। কারণ দীর্ঘদিন ব্যবহারের ফলে একই পরিমানে ওই সাবস্টেন্স এর একই রকম কার্যকারিতা অনুভূত হয় না।

এর আরেকটি বৈশিষ্ট্য হলেও উইথড্রল। ব্যক্তি যখন বিশেষ বস্তু ব্যবহার করা বন্ধ করে দেয়, তখন কিছু দৈহিক লক্ষণ দেখা দেয়, একে বলা হয় প্রত্যাহার জনিত লক্ষণ। এক্ষেত্রে এর হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ব্যক্তি সেই বস্তু আবার গ্রহণ করতে শুরু করে। ফলে তার নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা বা পরিহারের চেষ্টা ব্যর্থ হয়। ধীরে ধীরে সামাজিক, পেশাগত, আনন্দদায়ক কর্মসূচি বাতিল হতে থাকে। নেশাকারক বস্তু গ্রহণ তার কাছে প্রধান এবং বাধ্যতামূলক হয়ে পড়ে।

২) সাবস্টেন্স অ্যাবিউজ ডিজঅর্ডার - কোন বাইরের বস্তু গ্রহণের ফলে ব্যক্তির মধ্যে ধারাবাহিক এবং তাৎপর্যপূর্ণ কুফল দেখা দিলে তাকে বলা হয় সাবস্টেন্স অ্যাবিউজ এবং এই ধরনের কুফল সত্বেও ব্যক্তি যখন ঐ বস্তু গ্রহণ চালিয়ে যায় তখন সেটা অসঙ্গতিপূর্ণ হয়ে পড়ে। এর ফলে ব্যক্তি বিভিন্ন কাজে ও সফল হতে থাকে দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ হয়। দৈহিক দিক থেকেও নানা অসুবিধার সম্মুখীন হয়। নিয়মিতভাবে এই ধরনের বস্তু গ্রহণের ফলে সামাজিক এবং সম্পর্কের ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

মদের নেশা সাধারণত দুই ধরণের মাত্রা অতিরিক্ত মদ খাওয়া এবং মদের প্রতি আসক্তি।

এটি যুক্তি শক্তি স্মৃতিশক্তি বিচার শক্তিকে প্রভাবিত করে। শ্বাস কার্য, হৃদস্পন্দনের হার, শরীরের তাপমাত্রা বজায় রাখা ইত্যাদি কে প্রভাবিত করে। দীর্ঘদিন ধরে মাদকাসক্ত ব্যক্তির ভেতরে বিষক্রিয়া দেখা দিতে পারে। হাত পা কাঁপা ইত্যাদি উইথড্রল সিমটম দেখা দেয়। উৎকণ্ঠা ও আতঙ্ক বাসা বাঁধে।

লক্ষণ -
  • সঞ্চালনমূলক কাজকর্মে অক্ষমতা
  • অতিরিক্ত উত্তেজনা অতিরিক্ত সচেতনতা পালস রেট বাড়া, রক্তচাপ বাড়া
  • কখনো ঝিমুনি ভাব দেখা যায় ভ্রান্ত প্রত্যক্ষণ অমূলক প্রত্যক্ষণ বাস্তবের সঙ্গে সংযোগ হীনতা
  • অপসংগতিমূলক আচরণ অসংলগ্ন কথাবার্তা স্মৃতির অক্ষমতা মনোযোগের অক্ষমতা কাজকর্মে ভ্রান্তি

উত্তেজনা, অবসাদগ্রস্থ অবস্থা ও কারণ -

১) বংশগত কারণ - এরিকসন রজার্স প্রমূখ মনোবিদগণ মনে করেন নেশা গ্রহণের প্রবণতা ব্যক্তি বংশগত সূত্রে ব্যক্তি লাভ করে। গবেষণায় দেখা গেছে 40 থেকে 50 শতাংশ নেশাগ্রস্থ ব্যক্তির পিতা-মাতাও মাদকাসক্ত।

২) পরিবেশগত কারণ - গৃহ পরিবেশে মদ খাওয়ার অভ্যাস থাকলে পারিবারিক বন্ধুদের চাপে অনেক সময় মাদক আসক্ত হয়ে পড়ে ব্যক্তি।

৩) অসুস্থ নির্দেশ দান - সন্তান পরিচালনায় পিতা-মাতার ত্রুটিপূর্ণ পন্থা অবলম্বন সন্তানদের বিপথগামী করে তোলে। ধীরে ধীরে তারা বেপরোয়া জীবনের পথে পা বাড়ায় এবং মদ ড্রাগের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে। গুরুজনদের কাছ থেকে পাওয়া নৈতিকতা ও নৈতিক শিক্ষা শৈশবাবস্থা থেকে শিশুমনে প্রভাব বিস্তার শুরু করে।

৪) মানসিক অসহায়তা নিরাপত্তাহীনতাবোধ - কিছু কিছু ব্যক্তি মানসিক চাপ মুক্ত হওয়ার জন্য অন্যকোনো প্রতিরক্ষণ কৌশল অনুসরণ না করে মাদকদ্রব্য গ্রহণ করতে থাকে। বিষন্নতা উদ্বেগ ইত্যাদির জন্য অনেকে মাদকদ্রব্যের প্রতি আসক্ত হয়।

৫) সম্পর্কে সমস্যা - বিবাহিত জীবন ও অন্যান্য অন্তরঙ্গ সম্পর্কের ক্ষেত্রে যদি সমস্যা থাকে এবং সেই কারণে যদি বেশি আঘাত পায় তাহলে অনেক সময় অতিরিক্ত মদ্যপান করে।

৬) সামাজিক সাংস্কৃতিক কারণ - কোন কোন সমাজ সংস্কৃতিতে মদ খাওয়াকে খারাপ চোখে দেখা হয়না। উপরন্তু সামাজিক মর্যাদার সূচক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে মাদকাসক্ত ব্যক্তির সংখ্যা বাড়ে।

প্রথম ধাপ হলো আপনাকেনেশাগ্রস্থ অবস্থা থেকে বের করতে হবে। ডিটক্স ফিকেশন তথা ধীরে ধীরে নেশার বস্তু প্রত্যাহারের ব্যবস্থা করা এবং এর ফলে যখন উইথড্রল সিমটম দেখা দেয় তার জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে হবে। এছাড়া ব্যক্তিকে মদ্যপান জনিত অসঙ্গতি বিষয়ে সচেতন করতে হবে।

লেখক : পুষ্পিতা মুখার্জি (মনোবিদ ও শিক্ষিকা)

Comm Ad 2020-tantuja-body

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-himalaya RC

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

2020 New Ad HDFC 05

কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধা 
জানালেন ফিরহাদ হাকিম

কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধা জানালেন ফিরহাদ হাকিম

শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের আবক্ষ মূর্তীতে মাল্যদান করে বিশেষ শ্রদ্ধা জানালেন পুরপ্রশাসক ও রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম

শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের আবক্ষ মূর্তীতে মাল্যদান করে বিশেষ শ্রদ্ধা জানালেন পুরপ্রশাসক ও রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম

দায়িত্ব নেওয়ার পরেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে নতুন মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব

দায়িত্ব নেওয়ার পরেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে নতুন মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব

দায়িত্ব নেওয়ার পরেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে নতুন মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব

দায়িত্ব নেওয়ার পরেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে নতুন মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব

কোভিড হাসপাতালে পরিণত হল ইসলামিয়া হাসপাতাল, উদ্বোধন করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম

কোভিড হাসপাতালে পরিণত হল ইসলামিয়া হাসপাতাল, উদ্বোধন করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম

জামিনে মুক্ত হয়েই শুক্রবার রাত থেকেই কাজে নামেন ববি হাকিম, আজ এক হাসপাতালের উদ্বোধনে হাজির রাজ্যের মন্ত্রী ও পুরপ্রশাসক

জামিনে মুক্ত হয়েই শুক্রবার রাত থেকেই কাজে নামেন ববি হাকিম, আজ এক হাসপাতালের উদ্বোধনে হাজির রাজ্যের মন্ত্রী ও পুরপ্রশাসক

করোনার সময় এই অতিরিক্ত করোনা হাসপাতাল সাধারণ মানুষের উপকারে লাগবে বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম

করোনার সময় এই অতিরিক্ত করোনা হাসপাতাল সাধারণ মানুষের উপকারে লাগবে বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-himalaya RC
Comm Ad 2020-LDC Egg