Comm Ad 018 Kalna

বানরের ‘সেলফি’ সহ হারানো ফোন ফিরে পেলেন মালিক

Share Link:

বানরের ‘সেলফি’ সহ হারানো ফোন ফিরে পেলেন মালিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: কারও বদমায়েশি? হতে পারে। বাঁদরামো? তাও হতে পারে। তবে যাই হোক না কেন, মালয়েশিয়ার এক ব্যক্তির জীবনে যা ঘটেছে, তার ব্যাখ্যা খোঁজা অন্ধকারে হাতড়ে বেড়ানো ছাড়া যে আর কিছু নয়, তা হলফ করেই বলা যায়। শুনলে মনে হতে পারে, গাঁজাখুরি গপ্পো। কিন্তু বিশ্বাস করুন, গল্প নয়, একদম সত্যি। নির্ভেজাল সত্যি।

তাহলেই খোলসা করেই বলা যাক ঘটনাটি। ব্যস্ততার যুগে সামান্য অমনযোগী হওয়ার কারণেই হোক কিংবা চোর-পকেটমারদের হার সাফাইয়ের ফলেই হোক, সঙ্গের সঙ্গী ফোন প্রায়শই হারিয়ে ফেলি আমরা। হারিয়ে যাওয়া ফোন খুঁজে পেতে অত্যাধুনিক ট্র্যাকিং পদ্ধতিও চালু করেছে মোবাইল ফোনের নির্মাতারা। অনেকে হারানো ফোন ভাগ্যক্রমে ফিরেও পেয়েছেন। কিন্তু চুরি যাওয়ার পরে চোরের ছবি সহ ফোন ফিরে পাওয়া গিয়েছে, এমন সচরাচর শোনা যায় না। কিন্তু মালয়েশিয়ার সৌভাগ্যবান জ্যাক্রিডজ রোডজির জীবনে তাই ঘটেছে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘বিবিসি’ জানিয়েছে, ‘গত শনিবার সকাল ১১টার দিকে বাড়িতে ঘুম থেকে উঠে নিজের স্মার্টফোন খুঁজে পাচ্ছিলেন না রোডজি। নিখোঁজ ফোনের খোঁজে গোটা বাড়ি তন্নতন্ন করে খুঁজেছিলেন। কিন্তু খোঁজাই সার হয়েছিল। এক সময়ে হতাশ হয়েই ফোন খোঁজা বন্ধ করে দিয়েছিলেন রোডজি। কিন্তু তাঁর মনে একটা খটকা ছিল। কেননা, বাড়িতে কোনও ধরনের চুরি-ডাকাতির চিহ্ন ছিল না। তাহলে কীভাবে বেমালুম গায়েব হয়ে গেল ফোনটি?’

সব সময়ের সঙ্গী ফোনটি হারিয়ে কিছুটা মন খারাপ হয়েছিল রোডজির। পরের দিন রবিবার বিকালে রোডজির বাবা বাড়ির বাইরে একটি বাঁদর দেখতে পান। মনে সন্দেহ হওয়ায় ছেলের হারিয়ে যাওয়া ফোনে কল করেন। আর তখন যা ঘটল, তাকে বিস্ময়কর বললেও কম বলা হয়। রোডজির ফোনের রিং টোন শুনতে পান তিনি। বাড়ির পিছনের জঙ্গলের ভেতর থেকে রিংটোনের আওয়াজ পেতেই শুরু হয় খোঁজাখুঁজি। খুঁজতে খুঁজতে অবশেষে একটি পাম গাছের নিচে কাদা মাখানো অবস্থায় পাওয়া যায় হারিয়ে যাওয়া ফোন। হারিয়ে যাওয়া ফোন ফিরে আনন্দে যখন মাতোয়ারা তোডজি, তখন মজাচ্ছ্বলেই তাঁর কাকা বলেই ফেলেন, ‘ভাল করে দেখো, এর ভেতরে চোরের ছবি থাকতেও পারে!’

রসিকতা যে সত্যি হবে কে জানত? ফোনটি পরিষ্কার করে গ্যালারি খুলতেই সবার চোখ ছানাবড়া! ফোনের ক্যামেরায় এমন কিছু ছবি আর ভিডিও আছে যা কখনই আগে তোলা হয়নি। ভিডিয়ো চালিয়ে দেখা যায়, ফোন হারিয়ে যাওয়ার দিন, অর্থাৎ শনিবার দুপুর ২টা ১ মিনিটে ফোনটি খাওয়ার চেষ্টা করছে একটি বানর। ফোনের দিকে অবাক বিস্ময়ে তাকিয়ে থাকা বাঁদরের বেশ কয়েকটি নিজস্বীও গ্যালারিতে রয়েছে।

বাঁদরের এমন কাণ্ডের ছবিগুলি টুইটারে শেয়ার করেছিল রোডজি। দ্রুতই তা ভাইরাল হয়ে যায় সেগুলো। তবে ঘর থেকে ওই বানরই ফোন নিয়ে গিয়েছিল কিনা, নাকি অন্য কিছু ঘটেছে সেই রহস্যের যবনিকাপাত ঘটেনি। রহস্য থেকেই গিয়েছে।

Comm Ad 020 Tantuja

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 026 BM

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

corona 02

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

#

#

Voting Poll (Ratio)

2020 New Ad HDFC 05

Editors Choice

Comm Ad 023 MZP