সত্যজিত রায়কে অভিনব শ্রদ্ধাঞ্জলি

Published by:
https://www.eimuhurte.com/wp-content/uploads/2021/09/em-logo-globe.png

Arani Bhattacharya

26th November 2021 11:31 am

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ পরিচালক অনিকেত মিত্র। কলকাতা এবং মুম্বই দুই জায়গাই তাঁর কর্মক্ষেত্র। তাঁর ছবি তৈরির আস্তানা। এই দুই মেট্রোপলিটন শহরেই চলে তাঁর নানা ছবির কাটাছেঁড়া।শুধু কি তাই?  এছাড়াও তাঁর নানারকম কাজ দর্শককে অবাক করার পাশাপাশি ভীষণভাবে মুগ্ধ করে। নানারকম পোস্টার, ও পেন্টিং ফুটিয়ে তুলতে পরিচালক অনিকেতের যে কি দারুণ এক দিক আমরা দিক দেখতে পাই তা বলাই বাহুল্য।

১৯৮৯ সালে সত্যজিত রায়ের এই ছবি মুক্তি পায়। কোভিড পরিস্থিতিতে পরিচালক অনিকেত মিত্র এই ছবির এক নতুন পোস্টার বানিয়ে তাক লাগিয়েছিলেন ।

এই পোস্টারে দেখাজাচ্ছে হস্পিতালের বেদে শুয়ে এক ব্যাক্তি। পোস্টারে লেখা আছে নায়ক। মহানায়ককে নিয়ে সত্যজিত রায়ের সেই অনবদ্য ছবি।

‘অশনি সংকেত’ সত্যজিতের এই সৃষ্টিতে আমরা দেখেছিলাম দুর্ভিক্ষের এক পরিস্থিতি। অনিকেত মিত্রের নতুন পোস্টারে দেখা যাচ্ছে হাতে অক্সিমিটার। যা গত কয়েক মাস আগে প্রতিটি পরিবারে রাখা অপরিহার্য হয়ে উথেছিল সেই বস্তুটি। দেখা যাচ্ছে অক্সিজেন লেভেল কমার ইঙ্গিত দিচ্ছে সেই ছবি। সঙ্গে লেখা অশনি সংকেত।

সত্যজিত রায়ের ১৯৬২ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ছবি। যেখানে আভিজাত্যের অহংবোধ ছিল বর্তমান যদিও তা ছাপিয়ে পড়ে মানবতা বড় হয়ে উঠেছিল। সেই ছবির নাম দেখা যাচ্ছে অনিকেতের বানানো পোস্টারে। সঙ্গে দেখা যাচ্ছে একটি পরিবারের অন্যত্র যাওয়ার ছবি।

সত্যজিত রায়ের এই ছবি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৬৩ সালে। মহানগর’ যা বলতে আমরা তিলোত্তমাকেই বুঝি। সেই মহানগরীর একঝলক নতুনভাবে অনিকেত মিত্র ফুটিয়ে তুলেছেন তাঁর এই পোস্টারে। 

১৯৫৫ সালে এতিই প্রথম ছবি সত্যজিত রায়ের। সেই ছবির নতুন এক পোস্টার বানিয়েছেন অনিকেত। পোস্টারে দেখা যাচ্ছে পিপিই কিট ও মুখে ফেশশিল্ড  পরিহিতএক ব্যাক্তি আম্ব্যুলেন্স চালাচ্ছেন। পোস্টারে লেখা ‘পথের পাঁচালি’। 

মণি শংকর মুখোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি হয়েছিল সত্যজিত রায়ের এই ছবি যা মুক্তি পেয়েছিল ১৯৭১ সালে। অনিকেত মিত্রের ভাবনায় সেই পোস্টার অন্যরূপ পেয়েছে। 

  সত্যজিত রায়ের ‘জনঅরণ্য’ ছবিটিও বিখ্যাত লেখক সাহিত্যিক মণিশংকর মুখোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি হয়েছিল। যা মুক্তি পেয়েছিল ১৯৭৩ সালে। অনিকেত মিত্রের ভাবনায় সেই পোস্টার অন্যরূপ পেয়েছে। 

সত্যজিতের ১৯৬০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই ছবিতে শর্মিলা ঠাকুর ও সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় জুটিকে পেয়েছিলেন দর্শক। সেই ছবির পোস্টার নতুনভাবে নিজের ভাবনায় বানিয়েছেন অনিকেত মিত্র। ছবিতে দেখা যাচ্ছে একজন হাসপাতালের এক কর্তব্যরত নার্স এক শিশুকে কোলে তুলে নিয়েছেন। 

রবি ঠাকুরের অনবদ্য উপন্যাস ‘ঘরে বাইরে’ অবলম্বনে রোমান্টিক ঘরানার এই ছবি এক অন্যরকম আবেগ সৃষ্টি করে সর্বকালের দর্শকদের মনে। সেই ছবির নতুন পোস্টারে অনিকেত মিত্র এই সময়ের এক অন্যতম ছবি তুলে ধরেছেন। সেখানে দেখা যাচ্ছে  অনলাইন ফুড সার্ভিসের জন্য ছুটে যাচ্ছে মোটর গাড়িতে এক ব্যাক্তি। 

সম্প্রতি জিৎের প্রযোজনায় নতুন ছবি ‘আয় খুকু আয়’তে যে পোস্টারটি আমরা দেখেছি তা অনিকেত মিত্রের হাতযশেই তৈরি। শুধু কী তাই? সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে এক অসাধারণ হাতের কাজ দেখা গিয়েছিল তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে। এবার বছরের শুরুর দিক ফিরে দেখলেন তিনি। গত মে মাসে যখন করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সাড়া দেশকে তোলপাড় করে দিচ্ছিল ঠিক সেই সময়েই সত্যজিত রায়ের জন্মশতবর্ষে তাঁকে স্মরণ করে তাঁর দশটি ছবির পোস্টার নিজের কারুকার্যে সাজিয়েছিলেন অনিকেত মিত্র। একে একপ্রকার রিক্রিয়েশন বলা যায়। প্রায় বছর শেষের দোরগোড়ায় আবার সেই পোষ্ট শেয়ার করলেন তিনি।

More News:

Leave a Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

নজরকাড়া খবর

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

Subscribe to our Newsletter

86
মিশন দিল্লি, পিকের চাণক্যনীতি কতটা কাজ দিল মমতার?