Comm Ad 005 TBS

আজ আসল চ্যালেঞ্জের মুখে এফ সি গোয়া

Share Link:

আজ আসল চ্যালেঞ্জের মুখে এফ সি গোয়া

নিজস্ব প্রতিনিধি: সবচেয়ে কঠিন  পরীক্ষার সামনে  এফসি গোয়া। মঙ্গলবার স্প্যানিশ কোচ হুয়ান ফেরান্দোর দলের সামনে গ্রুপের সবচেয়ে শক্তিশালী দল, গতবারের রানার্স ইরানের পার্সেপোলিস এফসি। এর আগের দুই প্রতিপক্ষ আল রাইয়ান ও আল ওয়াহদাও কম শক্তিশালী ছিল না। তবে দুই ক্লাবকেই গোলশূন্য ড্রয়ে রুখে দিয়ে তাদের গ্রুপ ই-র লিগ টেবলে তিন ও চার নম্বরে পাঠিয়ে নিজেরা দু’নম্বরে উঠে পড়েছে এফসি গোয়া। অন্য দুই দলকেই হারানোর পরে পার্সেপোলিস আজ ভারতীয় ক্লাবের বিরুদ্ধে তাদের বিজয়রথ সচল রাখার লক্ষ্য নিয়েই যে নামবে, এই নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।
 
অন্যদিকে, প্রথম দুই ম্যাচে ভাল খেলে  আত্মবিশ্বাস অর্জন করা এই কঠিনতম ম্যাচে কাজে লাগানোর জন্য প্রস্তুত এফসি গোয়া। দলের কোচের কথায়, ‘যদি শুধু স্কোর নিয়ে কথা বলি, তা হলে এটা ঠিকই যে চার পয়েন্ট আমরা খুইয়েছি। তবে আমি এই লিগ আর আমার দল সম্পর্কে জানি। আমাদের অভিজ্ঞতা, অন্য দলগুলির বাজেট, ভারতের তুলনায় অন্য লিগগুলোর মান। এগুলোও মাথায় রাখতে হবে। যথাসম্ভব পয়েন্ট অর্জন করাই আমাদের লক্ষ্য। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল দলের উন্নতি। এফসি গোয়ার লক্ষ্য আরও অভিজ্ঞতা অর্জন করা এবং আরও বড় লক্ষ্যে সেগুলোকে কাজে লাগানো’। ফেরান্দো আরও বলেন, ‘তবে (এখনই) তা সম্ভব নয়। কারণ, সেটা খুবই কঠিন কাজ। এখন আমাদের প্রতি ম্যাচ ধরে ধরে এগাতে হবে। কাল আমাদের প্রতিপক্ষ যে খুবই কঠিন, তা আমরা জানি। ওরা গতবারে কেমন খেলেছিল, তাও জানি’।

ইরানের শক্তিশালী একটা দলকে কী ভাবে আটকাবেন, তা নিয়ে গোয়ার কোচের জবাব, ‘ওদের খেলোয়াড়রা এই লিগে খেলার ব্যাপার যথেষ্ট অভিজ্ঞ। প্রায় তিনটি মরশুম ওরা একসঙ্গে খেলছে। আর আমাদের দলের ছেলেরা মাস চারেক ধরে একসঙ্গে খেলছে। সুতরাং, বলতে পারেন ওদের চেয়ে প্রায় তিন ধাপ পিছিয়ে রয়েছি আমরা। আমাদের দল যে একাধিক বিষয়ে উন্নতি করেছি, সেটা ঠিকই। দলের ছেলেদের ওপর আমার পূর্ণ আস্থা রয়েছে। কিন্তু ওদের মতো দলের বিরুদ্ধে নামার আগে প্রস্তুতির যে সময়টা দরকার ছিল, সেটা পাইনি।’

ইরানের এই ক্লাব তাদের দেশের লিগে ২০ ম্যাচ পরে আপাতত শীর্ষে রয়েছে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে তাদের ইতিহাসও বেশ ভাল। দু’বার ফাইনালে খেলেছে তারা। ১৩ বার শীর্ষ লিগের ট্রফি নিজেদের ঘরে তুলে দেশের সেরা ক্লাবের তকমা অর্জন করে নিয়েছে তারা। গত চার বছর ধরেই তারা দেশের এক নম্বর দল।
 
চলতি লিগে আল ওয়াহদার বিরুদ্ধে জালাল হোসেইনির একমাত্র গোলে জেতে তারা। আল রাইয়ানকে ৩-১ গোলে হারায় শাহরিয়ার মোঘানলুর জোড়া গোল ও কামাল কামিয়াবিনিয়ার গোলে। মঙ্গলবারের ম্যাচে দলগত দ্বৈরথের পাশাপাশি একাধিক ব্যক্তিগত প্রতিদ্বন্দিতাও দেখা যেতে পারে। যেমন মোঘানলুর সঙ্গে লড়াই হতে পারে ইভান গঞ্জালেসের। ২৬ বছর বয়সি দীর্ঘদেহী সেন্টার ফরোয়ার্ড মোঘানলুকে সামলানো মোটেই সোজা হবে না গঞ্জালেসের পক্ষে। গত দুই ম্যাচে গঞ্জালেস সেরা ছন্দে থাকলেও মোঘানলুর মতো এত ক্ষিপ্র ও সুযোগসন্ধানী ফরোয়ার্ডকে সামলানোর অভিজ্ঞতা বোধহয় এখনও হয়নি। তাই তাঁকে আগের দুই ম্যাচের চেয়েও ভাল পারফরম্যান্স দেখাতে হবে এ দিন। মোঘানলুকে সামান্য জায়গা ছাড়লেই বিপদ।
 
ইশান পন্ডিতা গত দুই ম্যাচেই প্রথম এগারোয় শুরু করলেও সুপার সাব হিসেবে যতটা আলোড়ন ফেলে দিয়েছিলেন, ততটা এ বার পেরে ওঠেননি। মঙ্গলবার তাঁকে সামলানোর জন্য যদি জালাল হোসেইনিকে নিয়োগ করা হয়, তা হলে সেই লড়াইটা তরুণ ভারতীয় স্ট্রাইকারের পক্ষে কঠিন হয়ে উঠতে পারে। ৩৯ বছর বয়সি সেন্টার ব্যাক জালাল অভিজ্ঞতার ঝুলি নিয়ে মাঠে নামেন। তিন বছর আগে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে বিদায় নিলেও ক্লাবের রক্ষণে তিনি এখনও স্তম্ভের মতো। তাঁর চেয়ে ১৭ বছরের বড় এই ডিফেন্ডারকে পরাস্ত করে বিপক্ষের গোলে বল রাখাটা ইশানের পক্ষে কঠিন ঠিকই। কিন্তু হিরো আইএসএলে যে ক্ষিপ্রতা দেখা গিয়েছে তাঁর মধ্যে, তা ফিরে এলে কিন্তু এই দ্বৈরথটা জমে যেতে পারে।
 
ইরানীয় দলের অন্যতম সেরা তারকা মেহদি তোরাবিকে সামলানোর দায়িত্ব নিতে পারেন সেরিটন ফার্নান্ডেজ। ২৬ বছর বয়সি এই বিপজ্জনক উইঙ্গারকে আটকানোর দায়িত্ব যদি তিনি নেন, তা হলে সেরিটনকে জীবনের সেরা পারফরম্যান্স দেখাতে হবে। তোরাবি ইরানের জাতীয় দলের নিয়মিত খেলোয়াড়, যাঁকে সে দেশের ফুটবলে সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার আখ্যাও দেওয়া হয়। আগ্রাসী শরীরী ভাষা ও প্রবল গতিতে বল নিয়ে দৌড়নোর ক্ষমতাই এই তারকার সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট। সেরিটনের একার পক্ষে তোলাবিকে আটকানো সম্ভব কি না, সেটাও প্রশ্ন। বাঁ দিকের উইং দিয়ে তোরাবি বল নিয়ে দৌড় শুরু করলে তাঁর বিপক্ষের বক্সে ঢোকা আটকানো বেশ কঠিন কাজ। তাঁকে নিজেকে ছাপিয়ে গিয়ে মার্ক করতে পারলে সফল হতে পারেন সেরিটন।
 
তরুণ গোলকিপার ধীরজ সিংয়ের ওপর অনেক ভরসা করতে হবে ফেরান্দোকে। প্রবল চাপও থাকবে তাঁর ওপর। গত দুই ম্যাচেই অসাধারণ গোলকিপিং করেছেন ২০ বছরের ধীরজ। একাধিক নিশ্চিত গোল আটকে ‘ক্লিন শিট’ বজায় রেখেছেন তিনি। এই ম্যাচেও তাতে আঁচড় পড়তে দিতে না চাইলে ধীরজকে জীবনের সেরা পারফরম্যান্স দিতে হবে মঙ্গলবার। আত্মবিশ্বাসী গোলপ্রহরীকে আরও উৎসাহ জোগাতে সাংবাদিক বৈঠকে তাঁকে সঙ্গে করে নিয়ে এসেছিলেন কোচ। অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপে দেশের জার্সি গায়ে মাঠে নামা ধীরজ বলেন, “আমি তো শুধু ক্লাবের প্রতিনিধিত্ব করছি না, সারা দেশেরও প্রতিনিধিত্বও করছি। আমার দিকে আসা যে কোনও বলই আমাকে আটকাতে হবে। তবে এটা দলের খেলা, আমাদের দল হিসেবে লড়াই করতে হবে। তবে আমাকে অযথা বিশাল উচ্চতায় তুলে ধরবেন না। নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করছি। এখনও অনেক উন্নতি করতে হবে আমাকে’।

Comm Ad 2020-LDC Haringhata Meet

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-WB Tourism RC

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 006 TBS

পূর্বস্থলী ১ নং ব্লকের দক্ষিণ শ্রীরামপুর বাজার স্যানিটাইজেশনে নামলেন বিধায়ক স্বপন দেবনাথ

পূর্বস্থলী ১ নং ব্লকের দক্ষিণ শ্রীরামপুর বাজার স্যানিটাইজেশনে নামলেন বিধায়ক স্বপন দেবনাথ

নির্বাচনের সময় থেকেই করোনা সচেতনতা প্রচারে জোর দিয়েছেন বিদায়ী মন্ত্রী

নির্বাচনের সময় থেকেই করোনা সচেতনতা প্রচারে জোর দিয়েছেন বিদায়ী মন্ত্রী

করোনা নিয়ে নিজের বিধানসভার একাধিক এলাকায় সচেতনতা প্রচার চালিয়েছেন স্বপন দেবনাথ

করোনা নিয়ে নিজের বিধানসভার একাধিক এলাকায় সচেতনতা প্রচার চালিয়েছেন স্বপন দেবনাথ

কোভিড বিধি মেনেই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০ তম জন্মবার্ষিকী পালন করলেন স্বপন দেবনাথ

কোভিড বিধি মেনেই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০ তম জন্মবার্ষিকী পালন করলেন স্বপন দেবনাথ

নিজের এলাকাতেই ২৫ শে বৈশাখ উদযাপন করেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

নিজের এলাকাতেই ২৫ শে বৈশাখ উদযাপন করেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

 আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 026 BM
corona 02