Comm AD 12 Myra

কোয়েসের পথে হেঁটে লাল-হলুদের ৭৬ শতাংশ শেয়ার কিনে নিল শ্রী সিমেন্ট

Share Link:

কোয়েসের পথে হেঁটে লাল-হলুদের ৭৬ শতাংশ শেয়ার কিনে নিল শ্রী সিমেন্ট

নিজস্ব প্রতিনিধি : ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্টের নামে আইএসএলে নাম নথিভুক্ত করতে গেলে আইনি অনেক সমস্যা রয়েছে। কেননা আগেই ফুটবলারদের চুক্তি হয়ে গিয়েছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব প্রাইভেট লিমিটেডের নামে। এবার অন্য কোম্পানি সেই একই চুক্তি করতে পারবে না, সেই নিয়ে জটিলতা তৈরি হবে। সেই হিসেবে প্রত্যাশা মতই ইস্টবেঙ্গলের নামেই আইএসএলে খেলার জন্য আবেদনপত্র জমা পড়েছে আয়োজক এফএসডিএল (ফুটবল স্পোর্টস ডেভলপমেন্ট লিমিটেড)-র কাছে। সোমবারই ক্লাবের তরফে তাদের ই-মেল করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে ১৪ কোটি টাকা ব্যাঙ্ক ট্রান্সফারও করে দেওয়া হয়েছে।

এতদিন ধরে যে জল্পনা চলছিল যে ইস্টবেঙ্গলের নাম বদল করে খেলতে হবে, তা আর সংশয় থাকল না। যদিও ইনভেস্টররা এবার আঁটঘাট বেঁধেই লাল হলুদ ক্লাবের দখল নিয়েছে। শ্রী সিমেন্ট কোম্পানি ইস্টবেঙ্গলের ৭৬ শতাংশ শেয়ার কিনে নিয়েছে, বাকি ২৪ শতাংশ শেয়ার থাকবে ক্লাব কর্তাদের কাছে। ফলে বলাই যায় লাল-হলুদের রাশ থাকবে শ্রী সিমেন্টের হাতে। ঠিক কোয়েসের হাতেই যেরকমভাবে ছিল ক্লাবের সিংহভাগ অংশীদারিত্ব। তাহলে কী সেই একই পথে যেতে চলেছে শ্রী-ইস্টবেঙ্গলের গাঁটছড়া।

এই প্রসঙ্গে ইস্টবেঙ্গলের এক শীর্ষকর্তা সোমবার জানান, আমরা তো এটাই চেয়েছিলাম নিজেদের নামে আইএসএলে খেলতে। সেটাই হচ্ছে এবার। ফলে আমরা খুশি। তবে ক্লাবের ৭৬ শতাংশ মালিকানা কিনে নেওয়া নিয়ে তিনি বলেন, 'যারা দুধ দেবে, তাদের লাথি খেতে সমস্যা কোথায়? এখন আর আগের ইগো নিয়ে থাকলে হবে না।' এর থেকেই স্পষ্ট কোয়েসের মতই ঘটনা ঘটতে চলেছে লাল-হলুদে। কিন্তু এবার কর্তারা আাপতত বুঝেছেন এই ছাড়া অন্য কোনও গতি নেই। ফলে তাঁদের ঘুম ভেঙেছে। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, লাল-হলুদ কর্তারা বুঝেছেন স্পনসরকে ক্ষমতা না দিলে কেউ এগিয়ে আসবে না। ফলে কার্যত কোয়েসের শর্তেই শ্রী সিমেন্টের কাছে আত্মসমর্পণ ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের।

ফলে এবার ক্লাবের হাতে বা কর্মকর্তাদের হাতে কী থাকল, সেটাও স্পষ্ট করে বলতে পারছেন না কোনও কর্তাই। কেন ইস্টবেঙ্গলের অধিকাংশ শেয়ার কিনে নিল ইনভেস্টররা? তার দুটি কারণ রয়েছে, এক ক্লাবের বেশিরভাগ সিদ্ধান্ত তারাই নিতে পারবে। আগামীবার আইএসএল খেললে কোম্পানির নামে নথিভুক্ত করলে সমস্যা থাকবে না। আর দ্বিতীয়টি এএফসি লাইসেন্সিং প্রক্রিয়ার জন্য। এবার এএফসি লাইসেন্সের জন্য শ্রী সিমেন্টের নাম থাকলেও সেটি গুরুত্ব পাচ্ছিল না, তার কারণ, ফেডারেশনের কাছে ক্লাবের নাম ছিল বলে। পরবর্তীকালে এই আইনি ফাঁক থাকবে না।

Comm Ad 005 TBS

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

2020 New Ad HDFC 05

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 023 MZP

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

#

#

Voting Poll (Ratio)

Mahalaya2020

Editors Choice

Comm Ad 025 Confed