corona 01

কোচরা হাত বাড়ালেন আইএফএ'র দিকে

Share Link:

কোচরা হাত বাড়ালেন আইএফএ'র দিকে

নিজস্ব প্রতিনিধি : বাংলার ফুটবলের উন্নতিতে দিনরাত এক করে লড়ে যাচ্ছেন আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখার্জি। খোলনালচে বদলে ফেলতে চাইছেন সচিব। প্রাক্তন ফুটবলারদের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন জয়দীপ। এবার বাংলার কোচদের সঙ্গে বৈঠক করলেন জয়দীপ।

সর্বভারতীয় ফুটবল স্তরে এবং অন্যান্য রাজ্যে কোচদের সেন্ট্রাল‍ রেজিষ্ট্রেশন সিস্টেমের (সিআরএস) আওতায় থাকা বাধ্যতামূলক। এতে কোচরা একই সঙ্গে একাধিক দলের সঙ্গে কোচিংয়ে যুক্ত থাকতে পারেন না। একটি দলের হয়েই তঁাকে কোচিং করাতে হয়। কিন্তু কলকাতা ফুটবলে কোচদের সিআরএস নেই। একজন কোচ একাধিক দলের সঙ্গে কাজ করেন। কলকাতা ফুটবলে এবার কোচদের সিআরএসে নথিবদ্ধ করার প্রস্তাব দিল বঙ্গ ফুটবলের কোচদের সংগঠন ‘কোচেস হু কেয়ার’। এছাড়াও ঘরোয়া লিগে টিডিদেরও লাইসেন্স বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাব দিয়েছে তারা।

শুক্রবার দুপুরে আইএফএ সচিবের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে পাওয়ারপয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে নিজেদের পরিকল্পনা তুলে ধরেন কোচেস হু কেয়ারের সদস্যরা। ছিলেন সঞ্জয় সেন, কুন্তলা ঘোষদস্তিদার, শঙ্করলাল চক্রবর্তী, অভিজিৎ মণ্ডল, গৌতম ঘোষ, ইয়ান ল–রা। জেলা ফুটবল, মহিলা ফুটবল, অ্যাকাডেমিতে কী ধরনের কোচিং–নীতি অনুসরণ করা দরকার তা আইএফএ–কে ব‍লেছেন কোচরা। সঞ্জয় সেন বলেন, ‘ভাল ছাত্র গড়তে গেলে ভাল শিক্ষকও প্রয়োজন। বাংলায় লাইসেন্স করা কোচদের ব্যবহার করতে হবে। তাতে খেলার মান বাড়বে।’ কোচ গৌতম ঘোষ বলেন, ‘লাইসেন্সধারী কোচদের কাজের সুযোগ দিতে হবে। বাংলার লাইসেন্স করা অনেক কোচ রয়েছে। অনেক টাকা খরচ করে তঁারা লাইসেন্স করেন। কাজের সুযোগ না পেলে তঁারা হতাশ হয়ে পড়বেন।’ অভিজিৎ মণ্ডল বলেন, ‘বাংলায় অনেক অ্যাকাডেমি রয়েছে। সেখানে লাইসেন্স করা কোচরা কাজের সুযোগ পেলে বাংলার কোচদের জন্য ভাল হবে।’ ইয়ান ল পাওয়ারপয়েন্ট প্রেজেন্টেশন দেখিয়েছেন। সেখানে তিনি কোচদের কীভাবে ব্যবহার করা যাবে, কলকাতা লিগে কোন ডিভিশনে কী লাইসেন্স কোচ রাখতে হবে, তা পাওয়ারপয়েন্ট প্রেজেন্টেশন মারফত দেখিয়েছেন ইয়ান ল।
 

corona 01

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 025 Confed

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

2020 New Ad HDFC 05

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 006 TBS

Editors Choice

2020 New Ad HDFC 05