Comm Ad 2020-Valentine body

হাইকোর্টের রায়কে মান্যতা দিয়েই এবার হবে চন্দননগরের জগদ্ধাত্রী বন্দনা

Share Link:

হাইকোর্টের রায়কে মান্যতা দিয়েই এবার হবে চন্দননগরের জগদ্ধাত্রী বন্দনা

নিজস্ব প্রতিনিধি: সব জল্পনা কল্পনার অবসান। পুজো হচ্ছে ফরাসডাঙায়। চারদিন ধরেই হবে সেই পুজো। সপ্তমী থেকে দশমী পর্যন্ত হবে সিংহবাহিনীর আরাধনা। তবে হবে না পুষ্পাঞ্জলি, হবে না বিসর্জনের কার্ণিভাল। হবে না সিঁদুর খেলাও। সেই সঙ্গে মূল মন্ডপ থেকে ১০ ফুট দূরত্ব বজায় রেখেই চলবে মাতৃদর্শনের পালা। যাদের মনে হবে এবারে প্রতিমা নির্মাণ করে পুজো করা যাবে না তাঁরা ঘট পুজো করবেন আর যারা মনে করবেন প্রতিমা নির্মাণ করে পুজো করা সম্ভব তাঁরা ঐতিহ্য মেনে বড় করেই প্রতিমা নির্মাণ করেই পুজো করবেন। ছোট প্রতিমা নির্মাণ করে পুজো করা যাবে না। এইসব বিধিনিষেধ মেনেই এবার ফরাসডাঙা বা চন্দননগরের বুকে করতে হবে জগদ্ধাত্রী পুজোর আয়োজন। বুধবার চন্দননগর পুলিশ কমিশনারেটের আধিকারিকদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় জগদ্ধাত্রী পুজো কমিটির বৈঠকে তেমনই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।
 
দুর্গাপুজোর সময় কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ প্রায় সব বারোয়ারিকেই বিপাকে ফেলে দিয়েছিল। মাথায় হাত পড়েছিল পুজো কমিটির কর্তা থেকে পুজোর সঙ্গে জড়িত নেতা-মন্ত্রী-বিধায়ক-সাংসদের। তা দেখে অনেকেরই ধারনা হয়েছিল এবারে হয়তো আর হৈমান্তিকার আরাধনা হবে না ফরাসডাঙ্গার বুকে। এমনকি চন্দননগরের ১০-১২টি পুজো কমিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়ে দিয়েছিল তাঁরা এই কোভিড পরিস্থিতিতে প্রতিমা পুজোর আয়োজন করতে পারবে না, ঘট পুজো করবে। এরপরেই শুরু হয়ে যায় তীব্র বিতর্ক। তার জেরে মাঠে নামতে হয় চন্দননগরের কেন্দ্রীয় জগদ্বাত্রী পুজো কমিটিকে। বিশেষ বৈঠক ডেকে কমিটি জানিয়ে দেয়, যাঁরা চান তাঁরা মূর্তিপুজো করতে পারেন। তবে জগদ্ধাত্রী প্রতিমার স্বাভাবিক উচ্চতা ও ঐতিহ্য মেনেই তা করতে হবে। কোভিডের কারণ দেখিয়ে প্রতিমার উচ্চতা কমানো যাবে না। যে সমস্ত বারোয়ারি তা করতে রাজি নয় তাঁরা ঘটপুজো করতে পারেন। কিন্তু ছোট ঠাকুর কোনওভাবেই করা যাবে না। চন্দননগরের ঐতিহ্যের সঙ্গে তাল রেখে বারোয়ারির স্থায়ী কাঠামোয় মাতৃ প্রতিমা নির্মাণের মাধ্যমে পুজো করতে হবে। তবে স্বাভাবিক উচ্চতা সম্পন্ন পূজা আয়োজনে অনিচ্ছুকরা, স্থায়ী কাঠামোয় জগদ্ধাত্রী মাতার প্রতিচ্ছবি ফ্লেক্স স্থাপন করেও প্রতিমা বিহীন ঘটপূজার আয়োজন করতে পারবেন।
 
কমিটির এই মত শুনে ১১৯টি পূজা কমিটি চিরাচরিত স্বাভাবিক উচ্চতা সম্পন্ন প্রতিমা নির্মাণের মাধ্যমে পুজো করার মত দেয় এবং ৩৩টি পুজো কমিটি ঘটপূজার পক্ষে মতামত দেয়। চন্দননগর কেন্দ্রীয় জগদ্ধাত্রী পুজো কমিটির সাধারণ সম্পাদক শুভজিৎ সাউ জানান, ‘দুর্গাপুজোর ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার ও আদালত যে গাইডলাইন দিয়েছে তা মেনেই এখানে জগদ্ধাত্রী পুজো হবে। প্রত্যেক মণ্ডপের ১০ মিটার আগেই ব্যারিকেড করে দেওয়া থাকবে। পুলিশের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবকরাও থাকবেন গোটা বিষয়টা সামলাতে। ১০ ফুট দূরে দর্শনার্থী আটকালেও প্রতিমা তাঁরা দেখতে পাবেন। কারণ এখানকার মা’য়ের উচ্চতা অনেক বড়। অনেক দূর থেকেই দেখা যাবে চারদিক খোলা মণ্ডপ হলে। সে ক্ষেত্রে প্রতিমা দেখতে কোনও সমস্যা হবে না।’

Comm AD 12 Myra

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-LDC Egg

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 008 Myra

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC

Editors Choice

Comm Ad 006 TBS