Comm Ad 005 TBS

আত্মঘাতী কৃষক পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সমাবেশ সিপিএমের

Share Link:

আত্মঘাতী কৃষক পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সমাবেশ সিপিএমের

রাজনৈতিক সংবাদদাতা : লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যে নিজেদের মাটি ফিরে পেতে বামেদের ভরসা কৃষকরাই। সফল ব্রিগেড সমাবেশের পর এবার আত্মঘাতী কৃষক পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সমাবেশ করার পরিকল্পনা সিপিএমের।
একসময় যে কৃষক আন্দোলনের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল বামেরা, এখন সেই কৃষক আন্দোলনের হাত ধরেই ঘুরে দাঁড়াতে চাইছে তারা। আর সেই লক্ষ্যেই কৃষকদের দাবি নিয়ে  সিঙ্গুর থেকে রাজভবন অভিযান ও উত্তরকন্যা অভিযানের পর, এবার রাজ্যে আত্মঘাতী কৃষক পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কলকাতার  রানি রাসমণি রোডে সমাবেশ করবে সিপিএমের কৃষক সংগঠন কৃষকসভা ও সারা ভারত খেতমজুর ইউনিয়ন।
গত কয়েক বছর ধরে গোটা দেশেই কৃষক আত্মহত্যার ঘটনা ও কৃষক সমস্যা নিয়ে রাজনৈতিক বিতর্ক তুঙ্গে। কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি সরকারকে এই প্রশ্নে  প্রায় সব বিরোধীরাই কাঠগড়ায় তুলেছে। এই ইস্যুতে সর্বভারতীয় স্তরে সিপিএম সহ বাম দলগুলির কৃষক সংগঠন ইতিমধ্যে বারবার রাস্তায়ও নেমেছে। রাজ্য ভিত্তিক লং মার্চ সহ পরপর দু'বার দিল্লিতে বড় জমায়েত করে কৃষকদের দাবি আদায়ের লড়াইয় সংগঠিত করেছে তারা। তবে কেবল মোদি সরকারই নয়, কৃষক আত্মহত্যা নিয়ে বাম শিবিরের একই অভিযোগ রয়েছে এ রাজ্যের তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধেও। বামেদের দাবি, তৃণমূল জমানায় শেষ সাত বছরে বাংলায় এখন পর্যন্ত ১৯১ জন কৃষক ও খেতমজুর আত্মহত্যা করেছেন। তার মূল কারণ  চাষের জন্য নেওয়া ঋণের টাকা শোধ করতে না পারা ও ফসলের ন্যায্য দাম  না পাওয়া।  
এই প্রসঙ্গে  সারা ভারত কৃষকসভার রাজ্য সম্পাদক অমল হালদারের দাবি, ‘সিঙ্গুর থেকে রাজভবন অভিযানের সময়ই আত্মঘাতী কৃষক পরিবারদের নিয়ে আমাদের এই কর্মসূচির কথা জানিয়েছিলাম। কৃষকদের কাছে আমাদের সব সময়ের আবেদন, আত্মহত্যা কোনও পথ হতে পারে না। লড়াই, সংগ্রাম করেই আদায় করতে হবে দাবি।’ এর পাশাপাশি তিনি আরও জানান, 'শেষ সাত বছরে রাজ্যে ১৯১জন কৃষক ও খেতমজুর আত্মহত্যা করেছেন। সবক’টি আত্মহত্যার নেপথ্য কারণ, ফসলের দাম না পাওয়া। সেই সঙ্গে ঋণজালে জড়িয়ে পড়ে সর্বস্বান্ত হয়ে কৃষক বাধ্য হচ্ছেন আত্মহত্যার মতো নির্মম পথ বেছে নিতে। এবার সেই আত্মঘাতী পরিবারের সদস্যরা নিজেরাই তুলে ধরবেন তাঁদের জীবনযন্ত্রণার কথা।'

corona 01

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

2020 New Ad HDFC 05

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC

Editors Choice

Comm Ad 026 BM