2020 New Ad HDFC 04

পেট ভরে খেয়েদেয়ে বলছে করবে না বিয়ে! ধর্নায় বসলো প্রেমিকা

Share Link:

পেট ভরে খেয়েদেয়ে বলছে করবে না বিয়ে! ধর্নায় বসলো প্রেমিকা

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভোজনরসিক বাবুটি খেতে বড় ভালোবাসেম। যখনই যা খান পেট ভরে খান, চেটেপুটে খান। কিন্তু সেই বাবু এবার পড়েছে মহা ফ্যসাদে। পুরাতন প্রেমিকা এসে বসে পড়েছে বাড়ির দাওয়ায়। জেদ ধরেছে তাঁকে করতে হবে বিয়ে। গিয়েছিল সে পুলিশেও। কিন্তু উর্দিবাবুদের সাফ কথা, তুমি নও নাবালিকা। সেই কথা শুনে এবার বিয়ের দাবি নিয়েই বাবুমশাইয়ের বাড়িতে এসে ধর্না শুরু করেছেন প্রাক্তন প্রেমিকা। করতে হবে মোরে বিয়ে, শুধু এই একটাই দাবি। ঘটনাস্থল মুর্শিদাবাদ জেলার কান্দি মহকুমার বড়ওয়ান থানার একপাহাড়িয়া গ্রাম।
 
জানা গিয়েছে, একপাহারিয়া গ্ৰামের যুবক একরাম শেখ কবুতরবাজিটা বেশ ভালই জানেন। একের পর এক কন্যা তার সেই কবুতরবাজিতেই বাঁধা ধরা কবুতর হয়ে ওঠে। সেরকম ভাবেই একরামের পাল্লায় পড়ে পূর্ব বর্ধমান জেলার কেতুগ্রামের বাসিন্দা বছর ২০’র কেতকী খাতুন। ফেসবুক থেকে আলাপ তারপর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট শেষে বিছানায় দেহালাপ। বেশ চলছিল। মাসের পর মাস। তারপর যেমন রাস্তা হয় আলাদা তেমনি গিয়েছিল দুজনে দুইদিকে। কিন্তু এখন আবার কেতকী এসেছে ফিরে একরামের বাড়ির উঠোনে। দাবি জানিয়েছে, করতে হবে তাঁকে বিয়ে। কিন্তু মানতে নারাজ একরাম আর তাঁর পরিবার। কারন কেতকীর আগেই বিয়ে হয়ে গিয়েছে। আছে দু-দুটি ছেলে। তাই একরামের সঙ্গে আর বিয়ে নৈব নৈব চ।
 
কিন্তু কেতকী কোনও কথাই শুনবে না। তাঁর দাবি আড়াই বছর ধরে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাঁর সঙ্গে দিনের পর দিন, মাসের পর মাস সহবাস করে গিয়েছে একরাম। তাঁর আর অন্য কোনও পুরুষে মন ধরে না। তাঁর একরামকেই চাই। কিন্তু একরামের পরিবার মানবে না সে দাবি। তাঁরা মঙ্গলবার বিকালেই ডেকেছিল পুলিশ। থানা থেকে লোক এসে কেতকীকে বলে ধর্না তুলে নিতে। কিন্তু কেতকী তা শোনেনি। তাই এখনও সে একরামের বাড়ির দাওয়াতে বসেই চালিয়ে যাচ্ছে ধর্না। যদিও একরাম আর তাঁর পরিবার বাড়িতে তালাচাবি মেরে আপাতত গা ঢাকা দিয়েছে। 

corona 01

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 026 BM

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 006 TBS

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

#

#

Voting Poll (Ratio)

2020 New Ad HDFC 05

Editors Choice

Comm Ad 023 MZP