Comm Ad 020 Tantuja

পদ্মের উপর বসে দেবী হংসেশ্বরী, পূজিতা হন কন্যারূপে

Share Link:

পদ্মের উপর বসে দেবী হংসেশ্বরী, পূজিতা হন কন্যারূপে

অনিরুদ্ধ মজুমদার: ১৮১৪ খ্রীষ্টাব্দে হংসেশ্বরী মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন রাজা নৃসিংহদেবের স্ত্রী রানি শঙ্করী। প্রাচীন সপ্তগ্রামের বংশবাটি বর্তমানে বাঁশবেড়িয়া। হুগলি জেলার এই এলাকাতেই রয়েছে দুই প্রাচীন মন্দির। হংসেশ্বরী এবং অনন্ত বাসুদেব মন্দির। শুধু ধর্মীয় নয়, স্থাপত্যের দিক থেকেও এই দুই প্রাচীন মন্দির ইতিহাসের পাতায় অন্যতম জায়গা দখল করেছে। সেই সঙ্গে রয়েছে এই মন্দিরের বিগ্রহ। যা অন্যান্য কালী মূর্তির থেকে ব্যতিক্রম এবং স্বতন্ত্র।

রামেশ্বর দত্তরায়ের আদি বাড়ী বর্ধমান জেলার পাটুলিতে। পরবর্তীকালে বাঁশবেড়িয়ায় রাজধানী স্থানান্তর করেন। রামেশ্বরের পুত্র রঘুদেব, রঘুদেবের পুত্র গোবিন্দদেব। এই গোবিন্দদেবের পুত্র নৃসিংহদেব। নৃসিংহদেবই হংসেশ্বরী মন্দিরের প্রতিষ্ঠারম্ভ করেন। ১৭৯২ খ্রীষ্টাব্দে নৃসিংহদেব কাশী যাত্রা করেন। কাশীতে থাকাকালীনই মাতৃরূপে দৈব দর্শন হয় রাজা নৃসিংহদেবের। মা হংসেশ্বরী দেবীকে দেখলেন জগজ্জননী মাতৃরূপে। এরপরই তিনি স্থির করলেন, রাজকোষে জমানো টাকা দিয়ে তিনি আর কিছু না, বংশবাটিতে মন্দির তৈরি করবেন। সংসার তো ত্যাগ করেছিলেন অনেক দিন আগেই, এবার তিনি সন্ন্যাস গ্রহণ করেন। ১৭৯৯ খ্রীষ্টাব্দে তিনি ফিরলেন কাশী থেকে। মন্দির তৈরির জন্যে আনলেন সাত নৌকা চুনা-পাথর। উত্তরাখণ্ড, রাজস্থান থেকে আসলেন প্রস্তর শিল্পীরা। কিন্তু ১৮০২ খ্রীষ্টাব্দে মন্দির অসমাপ্ত রেখেই ভবলীলা সাঙ্গ করেন সন্ন্যাসী নৃসিংহদেব। মন্দিরের কাজ অবশ্য নিজের কাঁধে তুলে নেন রানি শঙ্করী দেবী। বহু বাধা বিঘ্ন কাটিয়ে রানিমা অবশেষে পাঁচ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সমাপ্ত করেন হংসেশ্বরী মন্দির নির্মাণ।

১৩ টি চুড়া বিশিষ্ট ৭০ ফুট উঁচু এই মন্দির। মন্দির দক্ষিণমুখী এবং এর চুড়াগুলি পদ্মকোরাকৃতি। গঠনভঙ্গিতে রয়েছে যৌগিক ষটচক্রভেদের রহস্য। মন্দিরের বর্তমান সেবায়েতরা জানান, মানুষের দেহে যেমন ইড়া, পিঙ্গলা, সুষুম্না, বজ্রাক্ষ এবং চিত্রিনী নামক পাঁচটি নাড়ী আছে, এই মন্দিরের পাঁচটি চুড়া তার প্রতীক। এবং দেবী হংসেশ্বরী মন্দিরে রয়েছেন কুলকুণ্ডলিনী রূপে। এখানে দেবীর বর্ণ নীল। এমনকি তাঁর জিহ্বা বের করা নয়। পঞ্চমুণ্ডির আসনের উপর সহস্রদল পদ্ম। তার উপর শায়িত শিবের নাভি থেকে বেরিয়েছে পদ্ম। সেই পদ্মের উপর বাঁ পা মুড়ে ডান পা ঝুলিয়ে বসে আছেন দেবী। মূর্তি নিমকাঠের তৈরি। সারা বছর দেবী এখানে কন্যা রূপে পূজিতা হন। মাথায় কোনও মুকুট পরানো হয় না। পরিবর্তে থাকে ঘোমটা। কালীপুজোর দিনই বছরে একবার সোনার জিভ এবং মুকুট পরানো হয় দেবীকে। এদিন বলিও হয়। বছরে দীপান্বিতা অমাবস্যার দিনই দেবীকে কালীরূপে তন্ত্রমতে পুজো করা হয়।

Comm Ad 020 Tantuja

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

2020 New Ad HDFC 05

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 025 Confed

নবান্নের কন্ট্রোলরুমে মুখ্যসচিবের সঙ্গে আলোচনায় মুখ্যমন্ত্রী।

নবান্নের কন্ট্রোলরুমে মুখ্যসচিবের সঙ্গে আলোচনায় মুখ্যমন্ত্রী।

বুধবার সারারাত নবান্নে থেকেই পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী।

বুধবার সারারাত নবান্নে থেকেই পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন মুখ্যসচিব, ডিজি-সহ অন্য কর্তারা।

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন মুখ্যসচিব, ডিজি-সহ অন্য কর্তারা।

মঙ্গলবারের পর বুধবার বিকেলেও শহরের বিভিন্ন জায়গায় যান মুখ্যমন্ত্রী।

মঙ্গলবারের পর বুধবার বিকেলেও শহরের বিভিন্ন জায়গায় যান মুখ্যমন্ত্রী।

তাঁর সঙ্গে ছিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা ও মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

তাঁর সঙ্গে ছিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা ও মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

এদিন খিদিরপুর, পার্ক সার্কাস, বালিগঞ্জ ফাঁড়ির মতো দক্ষিণ কলকাতার একাধিক জায়গায় যান।

এদিন খিদিরপুর, পার্ক সার্কাস, বালিগঞ্জ ফাঁড়ির মতো দক্ষিণ কলকাতার একাধিক জায়গায় যান।

এদিনও স্থানীয়দের লকডাউন মেনে চলার অনুরোধ করেন তিনি।

এদিনও স্থানীয়দের লকডাউন মেনে চলার অনুরোধ করেন তিনি।

এই নিয়ে পরপর দু'দিন শহরের বিভিন্ন জায়গায় গেলেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই নিয়ে পরপর দু'দিন শহরের বিভিন্ন জায়গায় গেলেন মুখ্যমন্ত্রী।

তাঁর এই কাজকে তীব্র ভাষায় বিঁধেছেন বিরোধীরা।

তাঁর এই কাজকে তীব্র ভাষায় বিঁধেছেন বিরোধীরা।

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 008 Myra

Editors Choice

Comm Ad 026 BM