এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

বুলবুল পাখির লড়াই’ প্রতিযোগিতায় মেতেছেন জঙ্গলমহলবাসী

নিজস্ব প্রতিনিধি,ঝাড়গ্রাম: মকর সংক্রান্তিতে ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুরে ৮ থেকে ৮০ সকলে মেতে উঠেছে ‘বুলবুলি পাখির লড়াই’ প্রতিযোগিতায়। স্থানীয় মানুষজনেরা বলে থাকেন বুলবুলি পাখির এই লড়াই এখানকার ঐতিহ্যবাহী এক অনুষ্ঠান। যেখানে দুটো বুলবুলি পাখিকে লড়াই লাগানো হয়। এই অনুষ্ঠান আজ থেকে প্রায় ৪০০ বছর ধরে চলে আসছে ঝাড়গ্রামের এই গোপীবল্লভপুরে রাধাগোবিন্দ মঞ্চের সামনে।

প্রতিবছর মকর সংক্রান্তির দিন এই অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়, সেই অনুষ্ঠানে বাংলার পার্শ্ববর্তী রাজ্য ওড়িশা থেকেও মানুষজনেরা বুলবুলি পাখি নিয়ে এখানে এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় হিসেবে পুরস্কার রাখা হয়। বংশপরম্পরা হিসাবে এই সমস্ত এলাকার মানুষজনেরা এই সংস্কৃতিকে ধরে রেখেছেন হাজার কাজের মধ্য দিয়ে ।এই দিনটি ধুমধাম করে মেতে উঠেন এই সমস্ত এলাকার মানুষজনেরা। এই বুলবুল পাখির লড়াই দেখতে গোপীবল্লবপুর(Gopiballavpur) রাধাগোবিন্দ মঞ্চের সামনে ছুটে আছেন। উনিশ শতকের শহর কলকাতায় বুলবুল পাখির লড়াই দেখতে ছাতুবাবুর মাঠ নাহলে দয়াল মিত্তির বাগান বাড়িতে জুড়ি গাড়ি চড়ে সেকালের বাবুরা আসতেন। সেই বাবু কালচার কালের নিয়মে হারিয়ে গেছে। কিন্তু এ রাজ্যের দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্ত বাংলার জঙ্গলমহলের (Jangalmahal)গোপীবল্লভপুরে পৌষ সংক্রান্তির সময় এখনও বছরের একটা দিন বুলবুল পাখির লড়াই হয় আজও।

মোবাইল(Mobile), ইন্টারনেটের যুগেও ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন বুলবুল পাখির লড়াই হারিয়ে যায়নি। এখনও চলে আসছে। বিরল এই পাখি লড়াই ঘিরে উন্মাদনা এখনও কমেনি।লড়াইকে ঘিরে কমেনি জঙ্গলমহলের বৈষ্ণবতীর্থ গোপীবল্লভপুরের আমজনতার লোকাচার, লোকবিশ্বাস। গোপীবল্লভপুরের গোস্বামীদের রাধাগোবিন্দ মন্দিরের কাছে চাঁদোয়া টাঙিয়ে হয় পাখি যুদ্ধ।সম্মুখ সমরে থাকার সময় হাউসিদের হাতে ধরা পাকা কলার টুকরো দেখিয়ে রাগানো হয় পাখিদের। সঙ্গে লড়াইয়ের দম বাড়াতে দেওয়া হচ্ছিল আখের রস।এভাবে একে একে পাখি এগিয়ে দিয়ে লড়াই এগিয়ে যায়।এবার শতাধিক পাখি লড়াইয়ের মঞ্চে এসেছিল।হেরে যাওয়া বুলবুলের ঝুঁটি কেটে তাদের ছেড়ে দিচ্ছিলেন সেনাপতি। দুটি দলের হয়ে যাঁরা এই পাখি লড়াই পরিচালনা করেন তাঁদের বলা হয় সেনাপতি। ঝুঁটি কাটার সঙ্গে মানমর্যাদা জড়িয়ে রয়েছে। গোপীবল্লভপুরেও পাখির লড়াই হয় দুটি পাড়া বাজারসাই ও দক্ষিণ সাইয়ের মধ্যে। সাই অর্থাৎ পাড়া। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই পাড়ার ব্যাপক উন্মাদনা থাকে।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

মুর্শিদাবাদের কোথাও রোদের তাপে ফাটছে বোমা ,কোথাও আবার উদ্ধার সকেট বোমা

‘রাজনীতিতে নেমেও মেকআপ করতে হচ্ছে, নয়তো কালো হয়ে যাব’: রচনা

সন্দেশখালিতে ইডি অফিসারদের ওপর হামলার ঘটনায় ধৃত ৩ জনের জামিন

মালদাতে ভোররাতে রহস্যজনকভাবে বাড়ি থেকে নিখোঁজ স্কুল ছাত্রী, তদন্তে পুলিশ

পুরুলিয়ার মাটিতে জ্যোতির্ময়ের পাশ থেকে সরে দাঁড়ালো আজসুও

ইজরায়েলে থাকা বোনের চিন্তায় ঘুম উবেছে জলপাইগুড়িতে থাকা দুই সহোদরার

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর