Brand Ad20-Bijoya

পুজো কমিটিকে ৫০,০০০, দায়িত্ব ও মানবিকতার মেলবন্ধনে কল্পতরু মমতা

Share Link:

পুজো কমিটিকে ৫০,০০০, দায়িত্ব ও মানবিকতার মেলবন্ধনে কল্পতরু মমতা

নিজস্ব প্রতিনিধি: মা আসছেন। শরৎ আর হেমন্তের সন্ধিক্ষনে। তাই মর্ত্যধামে আজ খুশির আলো। সেই খুশির আলোকে এদিন আরও প্রসারিত করে দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলা দেখলো কল্পতরু মমতাকে। যিনি দায়িত্ব আর মানবিকতার মেলবন্ধন ঘটিয়ে দিলেন অনায়সেই। তাঁর সেই মমতার আঁচল থেকে বাদ গেল না কেউই। পুজো কমিটি, হকার ভাইয়েরা, আশাকর্মীরা, সিভিক ভলেন্টিয়ার, ভিলেজ পুলিশ, অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী কেউই বাদ গেলেন না এদিন মুখ্যমন্ত্রীর স্নেহের আঁচল থেকে। তবে সব থেকে বড় ঘোষনা রাজ্যের সব পুজো কমিটিকে ৫০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে রাজ্য সরকারের তরফে।

এদিন কলকাতার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই বৈঠকের মঞ্চেই তিনি কল্পতরু হয়ে ওঠার পাশাপাশি মেলবন্ধন ঘটালেন দায়িত্ব ও মানবিকতার। দায়িত্ব ছিল প্রশাসক হিসাবে আর মানবিক ভাবে মানুষের পাশে দাঁড়াবার আর্তি ছিল। সেই দুই দায়িত্বের সফল মেলবন্ধন ঘটিয়ে এবারের পুজোর মহানায়িকা কিন্তু বাংলারই মুখ্যমন্ত্রী। কোভিড কালে এইবারে ল্কার্যত সব পুজো কমিটিকে আর্থিক টানাটানিত মধ্যে পড়তে হচ্ছে। অনেকে পুজো কার্যত করবেন না বলে ঠিকই করে ফেলেছিলেন, অনেকে আবার নমঃ নমঃ করে পুজো করার কথা ভেবেছিলেন। বড় বাজেটের পুজোও এবার ছোট করে করার চিন্তাভাবনা নেওয়া হয়েছে।

এদের সবার কথা ভেবে মানবিক মুখ্যমন্ত্রীর মানবিক ঘোষণা সব পুজো কমিটিকে রাজ্যের তরফে দেওয়া হবে ৫০ হাজার করে আর্থিক সাহায্য। ভুলে গেলে চলবে না রাজ্য পুলিশের অধীনে ৩৪,৪৪৭টি, কলকাতা পুলিশের অধীনে ২৫০৯টি এবং সারা রাজ্যে ১,৭০৬টি মহিলা পরিচালিত পুজো হচ্ছে। কাজেই কী বিপুল পরিমাণ অর্থ লাগবে এই ঘোষণাকে বাস্তবায়িত করতে তা সহজেউ অনুমেয়। প্রায় ২০০ কোটি টাকা।
 
একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী এদিন জানিয়েছেন এবারে পুজো করার জন্য যে সব জায়গায় কর দিতে হয়, সেখানে বেশ কিছু ছাড় দেওয়া হচ্ছে। পুজোর জন্য এবার দমকল কোন টাকা নেবে না। একই রকম ভাবে কোনও পুরনিগম বা পুরসভা বা পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষও কোনও কর নেবে না। বিদ্যুৎ সংযোগের ক্ষেত্রে সিইএসসি ও রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন পর্ষদ উভয়েই ৫০ শতাংশ করে টাকা ছাড় দেবে। পুজোর অনুমতি নিতে যাতে কোথাও ভিড না হয় তার জন্য আগামী ২ অক্টোবর থেকে রাজ্যে চালু হয়ে যাচ্ছে ‘আসান’ প্রকল্প যেখানে অনলাইনেই পুজোর অনুমতি প্রদান করা হবে। পুজোকমিটিগুলিকে যারা এখনও পুজোর অনুমতি নেননি তাঁদের সেখানেই অনলাইনে অনুমতি নিতে হবে। লক্ষ্যণীয় পদক্ষেপ এবারে মুখ্যমন্ত্রী আরও একটি নিয়েছেন। বিগত ১০ বছর ধরে পুজো হচ্ছে কিন্তু তার প্রশাসনিক অনুমতি এখনও মেলেনি সেই সব পুজোকে এবারে অনুমতি দিতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এই পুজোগুলি এদিনের ঘোষিত আর্থিক অনুদান পাবে কিনা তা জানা যায়নি। 

তবে মানবিক মুখ্যমন্ত্রী এদিন দাঁড়িয়েছেন রাজ্যের হকার ভাইদের পাশেও। তিনি জানিয়েছেন, রাজ্য সরকারের কাছে নথিবদ্ধ ৮১ হাজার হকারকে পুজোর মাসে ২ হাজার টাকা সরকারি অনুদান দেওয়া হবে। সেই সঙ্গে আশাকর্মী, সিভিক পুলিশ, ভিলেজ পুলিশ, গ্রিন পুলিশের বেতন পুজোর মাস থেকেই ১ হাজার টাকা করে বাড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী এদিন আরও জানিয়েছেন এবার থেকে রাজ্যের সব অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীদের অবসরের পরে এককালীন ৩ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে। রাজ্য সরকারের নথিভুক্ত পুরোহিত, ইমাম, ফাদারদের নিজস্ব জমি থাকলেও যারা বাড়ি করতে পারছেন না তাঁদের রাজ্য সরকার এককালীন ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা করে দেবে। মুখ্যমন্ত্রীর এই আর্থিক ঘোষণা নিঃসন্দেহে এই সব মানুষগুলির মুখে হাসি ফোটাবে। পাশাপাশি এদিন মুখ্যমন্ত্রী মূল অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগে পুরোহিত ভাতা প্রদান যেমন চালু করে দেন তেমনি হিন্দি অ্যাকাদেমি ও দলিত অ্যাকাদেমির জনু ৫ কোটি টাকা করে আর্থিক অনুদান তুলে দেন যথাক্রমে বিবেক গুপ্তা ও মনোরঞ্জন ব্যাপারির হাতে। ইসলামিয়া হাসপাতালের উন্নয়নের জন্যও ৩ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা এদিন তিনি তুলে দেন হাসপাতালের সঙ্গে জড়িত রাজ্যের দুই মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও জাভেদ খানের হাতে।

Brand Ad20-Bijoya

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

2020 New Ad HDFC 05

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

2020 New Ad HDFC 05

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 008 Myra

Editors Choice

Comm Ad 026 BM