Comm Ad 2020-LDC Haringhata Meet

বাংলায় কাকে সুবিধা করে দিতে ৮ দফায় ভোট! প্রশ্ন মমতার

Share Link:

বাংলায় কাকে সুবিধা করে দিতে ৮ দফায় ভোট! প্রশ্ন মমতার

নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রশ্ন যে উঠবেই সেটাই জানা ছিল। কার্যত কমিশনের ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই সেই প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। সব থেকে বড় বিষয় বাংলার মতো এত বেশি দফায় ভোট এর আগে দেশের অন্য কোনও রাজ্যে হয়েছে কিনা তা নিয়ে যেমন প্রশ্ন উঠে গিয়েছে তেমনি প্রশ্ন উঠেছে বাংলার এক একটি জেলাকে যেভাবে ভেঙে ভেঙে ভোট করান হচ্ছে তা কার্যত নজীরবিহীন। এদিন সেই প্রশ্নটাই তুলে ধরলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একই সঙ্গে নিজের ক্ষোভের কথাও জানিয়ে দিলেন। সোজা বাংলায় প্রশ্ন তুলে দিলেন কমিশনের কাছে, 'কাদের সুবিধা করে দিতে এভাবে জেলা ভেঙে ভেঙে রাজ্যে ৮ দফায় ভোট নেওয়া হচ্ছে?'

কালিঘাটে এদিন নিজের বাড়িতে সংক্ষিপ্ত সাংবাদিক সম্মেলনে মমতা কার্যত নিজের ক্ষোভ উগরে দেন। নজীরবিহীন ভাবে যেভাবে বাংলায় ৮ দফায় ভোট ঘোষণা করা হয়েছে তা নিয়েই প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে মমতা বলেন, 'ভোটের দিনক্ষন কী নরেন্দ্র মোদি আর অমিত শাহ ঠিক করে দিয়েছে? এটা লজ্জার যে কমিশন একটি রাজনৈতিক দলের দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছে। বাংলার সঙ্গে বাকি যে চারটি রাজ্যে ভোট হচ্ছে সেখানেও এত দফায় ভোট করানো হচ্ছে না। তাহলে শুধু বাংলার জন্য কেন ৮ দফায় ভোটগ্রহণ করা হবে? আমাদের শক্ত ঘাঁটি দক্ষিন ২৪ পরগনায় ৩ দফায় ভোট হবে, কেন? কাকে সুবিধা করে দিতে এই সিদ্ধান্ত? এর আগে বাংলায় কোনওদিন জেলাগুলিকে ভেঙে ভেঙে ভোট করানো হয়নি। তবুও কমিশনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাবো। আর যারা বাংলা দখল করার ছক কষছেন তাঁদের বলে রাখছি যত নেতা আছে সব নিয়ে চলে আসুন, কুছ পরোয়া নেহি। ছাত্র রাজনীতি করে উঠে এসেছি। বাংলাকে সবার থেকে ভাল চিনি। ৮ দফায় ভোটও হবে খেলাও হবে।'

তবে বিরোধীরা বিশেষ করে বিজেপির নেতারা কমিশনের ৮ দফার ভোটের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন। বাম ও কংগ্রেসের পক্ষ থেকেও কমিশনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানানো হয়েছে। এদিন মমতা বেশ ক্ষোভের সঙ্গে জানিয়েছেন, 'কোথাও কোথাও একটা প্রশ্ন এসে যাচ্ছে। বিহারে ২৪০টি আসনে ৩টি দফায় নির্বাচন হয়েছিল। অসমে ৩ দফায় ভোট হচ্ছে। তামিলনাড়ুতে ২৩৪টি আসনে একদিনেই নির্বাচন। কেরলে সিপিএমের সরকার, সেখানেও এক দফায় ভোট। বাংলার ২৯৪টি আসনে কেন ৮ দফায় ভোট? কাকে সুবিধা করে দেওয়ার জন্য? তারা রাজ্যকে সুবিচার না দিলে কোথায় যাবে জনগণ? আমি অত্যন্ত ক্ষোভের সঙ্গে বলতে বাধ্য হচ্ছি, বিজেপির অনুরোধেই এটা করা হয়েছে। এমনকি গোটা জেলায় একদিনে নির্বাচন হচ্ছে না। ২৭ মার্চ নির্বাচন করছেন পুরুলিয়ায়। বাঁকুড়াটা ভাগ করেছে। পূর্ব মেদিনীপুরের পার্ট ওয়ান পার্ট টু শেখাচ্ছে। ৩০ দিনের খেলা খেলবেন? আমাদের যায় আসে না। হারিয়ে ভূত করে দেব।'

একই সঙ্গে এদিন মোদি-শাহকে রীতিমত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে মমতা বলেছেন, 'আপনারা জেলাকে ভাঙছেন। ভাইকে ভাইকে ভাঙছেন। হিন্দু-মুসলিমকে ভাঙছেন। আপনারা বাঙালি-রাজবংশী ভাঙছেন। আপনারা টোটাল দেশটাকে ভাঙছেন। আমি বাংলার নিজের মেয়ে। আমি বাংলাকে ভালো করে চিনি। জেলা থেকে বিধানসভা কেন্দ্র সব চিনি। বাংলাকে অশান্ত করার চেষ্টার জবাব বাংলার মানুষই দেবে। বহিরাগত গুন্ডারা বাংলা শাসন করবে না। বিজেপির চোখ দিয়ে বাংলাকে দেখবেন না, অনুরোধ করছি নির্বাচন কমিশনকে। ২০১৯ সালে বিবেক দুবে পর্যবেক্ষক ছিলেন। তিনিই ফের পর্যবেক্ষক হলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যেন ক্ষমতার অপব্যবহার না করেন। প্রধানমন্ত্রীকেও তাই বলছি। বিজেপির সবাই মিলে মনে করে, বাংলাকে নিগৃহীত করব! বাংলাকে বঞ্চনা করব! যত নেতা আছে নিয়ে আসুন। ন্যাতা ও নেতা। আমরা নেতা নই, ন্যাতা। আমরা ধানক্ষেতের লোক। ঘরে কাজ করার লোক। এর জন্যে জবাব দিতে হবে। এত ভয় আমাকে! পুরো কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত সংস্থাকে নিয়ে এই পরিকল্পনা তৈরি করেছে। নির্বাচনের পর পুরস্কার দিতে হবে।'
 

Comm AD 12 Myra

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 008 Myra

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 008 Myra

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

 আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

পূর্বস্থলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১ নং ব্লকের, বেগপুর অঞ্চলের পাথর ডাঙ্গায় সংখ্যালঘু দপ্তরের বরাদ্দ ১৫,১৯,০০০ টাকায় নির্মিত জল প্রকল্প উদ্বোধনে মন্ত্রী

পূর্বস্থলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১ নং ব্লকের, বেগপুর অঞ্চলের পাথর ডাঙ্গায় সংখ্যালঘু দপ্তরের বরাদ্দ ১৫,১৯,০০০ টাকায় নির্মিত জল প্রকল্প উদ্বোধনে মন্ত্রী

এই বিশেষ প্রকল্পের উদ্বোধনে হাজির ছিলেন রাজ্যের প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

এই বিশেষ প্রকল্পের উদ্বোধনে হাজির ছিলেন রাজ্যের প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

এই বিশেষ জল প্রকল্পের ফলে উপকৃত হবেন এলাকাবাসী

এই বিশেষ জল প্রকল্পের ফলে উপকৃত হবেন এলাকাবাসী

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 006 TBS
Comm Ad 008 Myra