এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

২৯ জানুয়ারি কোচবিহার জেলা সফরে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী

Courtesy - Facebook and Google

নিজস্ব প্রতিনিধি: গত বছরের শেষ দিকে প্রায় ১ সপ্তাহের সফরে উত্তরবঙ্গে(North Bengal) গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। সেই সময় তিনি দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলায় পা রাখলেও তাঁর পা পড়েনি কোচবিহার জেলায়(Coachbehar District)। যদিও তিনি জানিয়েছিলেন খুব শীঘ্রই তিনি কোচবিহারে আসবেন। সেই কথা রাখতে চলেছেন তিনি। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ২৯ জানুয়ারি কোচবিহারে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। কোচবিহার শহরের রাসমেলা ময়দানে তিনি সরকারি পরিষেবা প্রদান অনুষ্ঠানে যোদ দেবেন। যদিও মুখ্যমন্ত্রীর আসার বিষয়ে এখনও কোনও সরকারি বার্তা আসেনি বলে জেলাশাসক অরবিন্দকুমার মিনা জানিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর সেই সভার পাশাপাশি মদনমোহন মন্দিরে পুজোও দিতে যেতে পারেন বলে জানা গিয়েছে।  

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী প্রশাসনিক প্রধান হিসেবে জেলা সফর করেন। আবার তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেত্রী হিসাবেও তিনি জেলায় সাংগঠনিক সভা করতে পারেন। সম্ভবত রাসমেলা মাঠেই সেই সভা হবে। পরিষেবা প্রদান অনুষ্ঠান হলেও তৃণমূলের দলীয় কর্মী-সমর্থকরাও সেই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করবেন। সাধারণ মানুষও সেখানে অংশ নেবেন। একই সঙ্গে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি পঞ্চানন বর্মার(Panchanan Burma) জন্মদিন। তাঁর জন্মভিটা খলিসামারিতে রাজ্য সরকারের অনগ্রসর শ্রেণিকল্যাণ দফতরের উদ্যোগে জন্মদিন সাড়ম্বরে পালন করা হয়। বিগত বছরগুলিতে রাজ্যের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী এলেও, পঞ্চানন অনুরাগী ও তাঁর বংশধররা চাইছেন এবছর খলিসামারিতে(Khalisamari) জন্মদিনের অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আসুন। ইতিমধ্যে এনিয়ে যোগাযোগও শুরু করেছেন পঞ্চানন বর্মা অনুরাগীরা। খলিসামারিতে পঞ্চানন বর্মার বংশধর যাঁরা রয়েছেন, তাঁরাও চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী খলিসামারিতে মনীষীর জন্মভিটা দেখে যান। তাই মুখ্যমন্ত্রী ২৯ জানুয়ারি আসবেন নাকি ১৪ ফেব্রুয়ারি আসবেন তা নিয়ে কিছুটা দ্বন্দ্ব রয়ে গিয়েছে।

তবে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, ১৪ ফেব্রুয়ারি যেহেতু সরস্বতী পুজো তাই ওই দিন মুখ্যমন্ত্রী সরকারি কোনও অনুষ্ঠান না রাখতে পারেন। ওই দিন পঞ্চানন বর্মার জন্মভিটেতে মুখ্যমন্ত্রী সেই কারণেই হয়তো যেতে পারবেন না। তবে তিনি যদি চলতি মাসের শেষে কোচবিহার যান তাহলে সেই সময় তিনি পঞ্চানন বর্মার জন্মভিটেতে যেতে পারেন। রাজবংশী সম্প্রদায়ের একাংশের অভিযোগ, খলিসামারি ও পঞ্চানন বর্মাকে নিয়ে বিজেপি গত লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকে নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসলেও, এখনও পর্যন্ত কোনওকিছুই করেনি। পঞ্চানন বর্মার বংশধরদের সামনে রেখে জন্মভিটায় শক্তিসঞ্চারিণী মন্দির প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও, সেই কাজও হয়নি। বিজেপি পঞ্চানন বর্মার ব্রোঞ্জের মূর্তি বসানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু সাংসদ, বিধায়ক থাকার পরও কোনও কাজই হয়নি। সেই তুলনায় মুখ্যমন্ত্রী নিজে যা কথা দিয়েছেন সেই কথা তিনি রেখেছেন। আসুন। তৃণমূলের আমলে খলিসামারিতে পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ক্যাম্পাস গড়ে উঠেছে। তাই স্থানীয় মানুষও চাইছে মুখ্যমন্ত্রী খলিসামারিতে আসুন। এতে পঞ্চানন বর্মাকে যেমন আরও প্রচারের আলোয় নিয়ে আসা যাবে, তেমনি সামনের লোকসভা নির্বাচনেও বাড়তি সুবিধা পাবে তৃণমূল।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

চাকরি খোয়ানো ঋণগ্রহীতাদের বাড়ি বাড়ি নোটিস যাবে

টাকা-পয়সা নিয়ে বিবাদ, ভাইয়ের হাতে খুন দাদা,গ্রেফতার অভিযুক্ত

তিন তোলাবাজ যুবককে গ্রেফতারের দাবিতে শান্তিপুর থানা ঘেরাও করে ডেপুটেশন দিলেন আমজনতা

জনজাতি সম্প্রদায়কে নিয়ে মায়াপুর ইসকনের তিনদিন ব্যাপী কনভেনশন

নিউটাউনে উদ্ধার হওয়া ক্ষতবিক্ষত যুবক করুণাময়ীর এইচএসবিসি ব্যাংকের কর্মী

মালদার চাঁচলে মিঠুনের রোড শোতে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান তৃণমূলের

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর