Brand-Promo-tmc-win2

নন্দীগ্রামে মমতা নন, জয়ী শুভেন্দু! শুরু তীব্র বিতর্ক

Share Link:

নন্দীগ্রামে মমতা নন, জয়ী শুভেন্দু! শুরু তীব্র বিতর্ক

নিজস্ব প্রতিনিধি: চূড়ান্ত বিতর্কিত ঘটনা। জয়ী বলে ঘোষণা করার পরেও পরে নির্বাচন কমিশনের তরফে জানানো হল, নন্দীগ্রামে জয়ী হননি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বরঞ্চ জয়ী হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। তাও ১৯৫৩ ভোটে। এটাই নন্দীগ্রামের রায়। কমিশনের বক্তব্য, সার্ভার বসে যাওয়ায় নাকি তাঁদের কাছে পূর্ণ তথ্য আসেনি। তাই সব ফলাফল সময় মতো তুলে ধরা যায়নি। নন্দীগ্রামে শুভেন্দু হারেননি, হেরেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও এদিন মমতা জানিয়েছেন গোটা বিষয়টি নিয়েই তিনি সুপ্রিম কোর্টে সাংবিধানিক বেঞ্চে যাচ্ছেন। সেখানেই এই ঘটনার বিচার চাইবেন তিনি। কীভাবে জয়ী বলে ঘোষণা করার পরেও তাঁকে পরাজিত বলে ঘোষণা করা হল তার যথাযথ তদন্ত চাইবেন তিনি। কার্যত কমিশনের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে সাংবিধানিক বেঞ্চে যাওয়ার কথা এদিন জানিয়ে দিলেন মমতা।
 
এদিন সকাল থেকেই নন্দীগ্রামে কার্যত কাঁটায় কাঁটায় লড়াই চলেছে মমতা ও শুভেন্দুর মধ্যে। যদিও সকাল থেকেই এদিন এগিয়ে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। এক সময় তো প্রায় ১০ হাজারেরও বেশি ভোটে এগিয়ে গিয়েছিলেন শুভেন্দু। যদিও পরে সেই লড়াইয়ে আবারও দুর্দান্ত ভাবে ফিরে আসেন তৃণমূলনেত্রী। ১৭তম রাউন্ডের শেষে একসময় সংবাদসংস্থা এএনআই টুইট করে জানায়, হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পরে ১২০০ ভোটে জিতেছেন মমতা। এমনকি নির্বাচন কমিশন থেকেই অঘোষিত ভাবে সেটাই জানানো হয়েছিল। কিন্তু পরে সেই কমিশনই জানায় মমতা নন, জয়ী হয়েছেন শুভেন্দু। আর তার জেরেই রাজ্য তথা দেশ জুড়ে ধোঁয়াশা দেখা দেয় যে নন্দীগ্রামে ঠিক কে জিতেছেন তা নিয়ে। যদিও মমতা এই ঘটনা নিয়ে জানান, 'নন্দীগ্রামের মানুষের রায় মেনে নিচ্ছি। কিন্তু ওখানে ভোট লুঠ হয়েছে। তাই আমরা আদালতে যাব আমরা। আমি খুব ভালো ভাবে জানি ওখানে ঠিক কী হয়েছে। প্রথম থেকেই এই বদমাইশিটা চলছে। ওখানে তিন-চারবার জয়ী ঘোষণা করার পরেও কীভাবে জানানো হল আমি হেরে গিয়েছি সেটা তদন্ত করা হবে। আমরা আদালতেও এটা জানাবো। আমরা পুনর্গণনাও করতে বলেছি।'


তবে মমতার এই বিবৃতির পরেই তৃণমূলের তরফে টুইট করে জানানো হয়, 'নন্দীগ্রামে গণনা এখনও শেষ হয়নি। কমিশনও চুড়ান্ত ভাবে কিছু জানায়নি। তাই দয়া করে ভুলভাল রটনা করবেন না।' এই টুইটের পরেই রহস্য আরও দানা বেঁধেছে নন্দীগ্রামের ফলাফল নিয়ে। বিশেষ করে কমিশনের নীরবতা এই ঘটনায় বাড়তি ইন্ধন জুটিয়েছে। তবে তৃণমূল থেকে এটাও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন। ৬ মাসের মধ্যে তিনি প্রয়োজনে উপনির্বাচনে জয়ী হয়ে রাজ্য বিধানসভার সদস্যপদ লাভ করবেন। সেই বিধান দেশের সংবিধানে দেওয়া আছে। তাই মুখ্যমন্ত্রী পদ ঘিরে অযথা বিভ্রান্তের কোনও প্রশ্ন নেই।
 

Comm Ad 2020-Valentine body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

corona 02

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC

পূর্বস্থলী ১ নং ব্লকের দক্ষিণ শ্রীরামপুর বাজার স্যানিটাইজেশনে নামলেন বিধায়ক স্বপন দেবনাথ

পূর্বস্থলী ১ নং ব্লকের দক্ষিণ শ্রীরামপুর বাজার স্যানিটাইজেশনে নামলেন বিধায়ক স্বপন দেবনাথ

নির্বাচনের সময় থেকেই করোনা সচেতনতা প্রচারে জোর দিয়েছেন বিদায়ী মন্ত্রী

নির্বাচনের সময় থেকেই করোনা সচেতনতা প্রচারে জোর দিয়েছেন বিদায়ী মন্ত্রী

করোনা নিয়ে নিজের বিধানসভার একাধিক এলাকায় সচেতনতা প্রচার চালিয়েছেন স্বপন দেবনাথ

করোনা নিয়ে নিজের বিধানসভার একাধিক এলাকায় সচেতনতা প্রচার চালিয়েছেন স্বপন দেবনাথ

কোভিড বিধি মেনেই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০ তম জন্মবার্ষিকী পালন করলেন স্বপন দেবনাথ

কোভিড বিধি মেনেই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০ তম জন্মবার্ষিকী পালন করলেন স্বপন দেবনাথ

নিজের এলাকাতেই ২৫ শে বৈশাখ উদযাপন করেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

নিজের এলাকাতেই ২৫ শে বৈশাখ উদযাপন করেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

 আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-WB Tourism RC
Comm Ad 2020-WBSEDCL RC