Comm Ad 2020-tantuja-body

মানিকচকে বার্জ উল্টে একাধিক লরি গঙ্গার জলে! সলিল সমাধি ১৪’র

Share Link:

মানিকচকে বার্জ উল্টে একাধিক লরি গঙ্গার জলে! সলিল সমাধি ১৪’র

নিজস্ব প্রতিনিধি: সোম সন্ধ্যায় বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটে গেল মালদা জেলার মানিকচকে। বার্জ ভেঙে নদীতে তলিয়ে গেল ৮-১০টি পাথর বোঝাই লরি। আর সেই সঙ্গে এই শীতের রাতে গঙ্গার কনকনে ঠান্ডায় জলে পড়ে যান লরিতে থাকা চালক ও খালাসিরা। সব শুদ্ধ প্রায় ৩০জন জলে পড়ে যান। যাদের মধ্যে কয়েকজন সাঁতরে পাড়ে উঠে আসতে সক্ষম হলেও বাকিরা নিখোঁজ হয়ে গিয়েছেন। এদের খোঁজে উদ্ধারকাজ শুরু হলেও সোমবার রাত পর্যন্ত কারোর কোনও সন্ধান মেলেনি। কারও দেহও উদ্ধার হয়নি। জেলা প্রশাসনের আশঙ্কা খুব কম করেও ১৪জনের সলিল সমাধি হয়েছে এই দুর্ঘটনায়। তবে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

জানা গিয়েছে, এদিন সন্ধ্যায় ঝাড়খন্ডের সাহেবগঞ্জ থেকে স্টোন চিপস ও পাথর বোঝাই প্রায় ১২টি বার্জে করে মানিকচক ঘাটে আসছিল। এই পথে নিত্যদিন রাজমহল ঘাট আর মানিকচকের মধ্যে লঞ্চ সার্ভিস চলাচল করে। মানিকচক ঘাটে বার্জটি ভিড়লেও সেই বার্জ থেকে লরি ঘাটে ওঠার সময়েই দুর্ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন পাথর বোঝাই একটি ১৬ চাকার লরি ভারসাম্য হারিয়ে উল্টে গেলে বার্জটির ভারসাম্যও নষ্ট হ্য এবং চোখের নিমেষে একের পর এক লরি গঙ্গার জলে উল্টে পড়ে যায়। খুব কমকরেও ১০টি লরি জলে পড়ে গেলে তাতে থাকা লরির চালক ও খালাসিরাও জলে পড়ে যান। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন প্রতিটি লরিতেই বেশ কিছু শ্রমিক ছিল যারা মূলত লোডিং আর আনলোডিংয়ের কাজ করে। তাঁরাও জলে পড়ে যান। এদের মধ্যে ১০-১২জন সাঁতরে পাড়ে উঠে আসতে সক্ষম হলেও বাকিরা নিখোঁজ হয়ে যান। প্রাথমিক ভাবে ১৪জনের নিখোঁজের খবর মালদা জেলা প্রশাসনের তরফে জানানো হলেও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন অন্তত ২০-২২জন নিখোঁজ হয়েছেন।

প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে লরিগুলিতে ওভারলোডের কারনেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনায় প্রাণে বেঁচে ফিরে আসা কিছু লরিচালক জানিয়েছেন, লরিতে অনেক বেশি ওজনের পাথর ও স্টোন চিপস বহন করা হচ্ছিল। তার জেরেই বার্জ থেকে পাড়ে উঠতে গিয়ে ১৬ চাকার একটি লরি ভারসাম্য হারিয়ে উল্টে যায়। দুর্ঘটনার খবর পেয়ের দ্রুত ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ ও প্রশাসনিক আধিকারিকেরা। উদ্ধার হওয়া ও আহত জন সাতেক লরির চালক ও খালাসিকে মানিকচক গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে ইতিমধ্যেই চলে গিয়েছে অসামরিক প্রতিরক্ষা দফতরের কর্মীরা। শুরু হয়েছে উদ্ধারকার্যও। ঘটনাস্থলে রয়েছেন জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র,  পুলিশ সুপার অলোক রাজরিয়া ও জেলার সভাধিপতি গৌড়চন্দ্র মন্ডল। স্থানীয়দের দাবি, যারা নিখোঁজ হয়েছে তাঁরা লরির মধ্যে থাকা পাথর ও চিপসের তলায় আটকা পড়ে আছেন। তাই সাঁতার জানলেও বার হতে পারেননি। নদী থেকে লরি আর পাথর ও চিপস না সরালে দেহ উদ্ধার হওয়া কার্যত অসম্ভব। তা চট করে ভেসেও উঠবে না। তাছাড়া রাতের অন্ধকারে দেহ দূরে ভেসে চলে গেলেও তা ঠাহর করা যাবে না। তবে দুর্ঘটনার পরই ফরাক্কা ব্যারেজ কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

Comm AD 12 Myra

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-LDC Momo

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 008 Myra

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের  সমাপ্তি অনুষ্ঠান

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠান

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC
Comm Ad 026 BM