corona 01

সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীদের বাড়তি নজর! দেওয়া হবে ‘নেগেটিভ’ সার্টিফিকেট

Share Link:

সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীদের বাড়তি নজর! দেওয়া হবে ‘নেগেটিভ’ সার্টিফিকেট

নিজস্ব প্রতিনিধি: সংক্রমণ ধরা পড়লে হয় থাকতে হচ্ছে বাড়িতে নাহয় যেতে হচ্ছে কোয়েরেন্টিন সেন্টার বা সেফ হোমে। পরিস্থিতি খারাপ হলে ভর্তি হতে হচ্ছে হাসপাতালে। কিন্তু সেফ হোম হোক কী কোয়ারেন্টিন সেন্টার কিংবা হাসপাতাল, সেখান থেকে সুস্থ হয়ে ফিরলেওও অনেক সময়ই মিলছে না রেহাই। হেনস্থা হতে হচ্ছে রোগীকে বা রোগীর পরিবারকে। এবার এই হেনস্থা দূর করতেই উদ্যোগী হল রাজ্য সরকার। নবান্ন থেকে স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকদের কাছে স্পষ্ট নির্দেশ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে যারে সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতাল, কোয়েরেন্টিন সেন্টার ও সেফ হোম থেকে যখনই কাউকে ছাড়া হবে তখনই তাঁর হাতে যেন ‘নেগেটিভ’ সার্টিফিকেট তুলে দেওয়া হয়। স্বাস্থ্য দফতর কার্যত এই নির্দেশিকাকেই বাধ্যতামূলক ভাবে পালন করার নির্দেশ দিয়ে পাঠিয়ে দিচ্ছে রাজ্যের সব সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতাল, কোয়েরেন্টিন সেন্টার ও সেফ হোম কর্তৃপক্ষকে।
 
সম্প্রতি কলকাতাতেই একটি ঘটনা বিশেষ ভাবে নজর টেনে নিয়েছিল রাজ্য প্রশাসনের। দমদম পার্কে এক বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়ে ছিলেন করোনায়। তার জন্য ভর্তি হয়েছিলেন হাসপাতালে। সেখান থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু পাড়াতেই ঢুকতে দেওয়া হয়নি তাঁকে। হাসপাতাল থেকে তাঁকে লিখে আনতে বলা হয় যে, তিনি করোনা নেগেটিভ। চরম অমানবিক এই ঘটনা কিন্তু রাজ্যে এই প্রথম ঘটছে এমন নয়। প্রায়শই এমন অভিযোগ রাজ্যের নানা প্রান্ত থেকে উঠে আসছে। তার জেরেই এবার কড়া পদক্ষেপের নেওয়ার পথে হাঁটা দিয়েছে নবান্ন। সাধারনত দেখা যাচ্ছে রোগীকে এই ধরনের হেনস্থার ঘটনা সন্মুখীন হতে হচ্ছে তাঁর প্রতিবেশীদের কাছ থেকেই। যাদের সঙ্গে বছরের পর বছর ধরে বাস তাঁরাই শুধু যে চূড়ান্ত অপরিচিত হয়ে উঠছেন এমন নয়, চূড়ান্ত অমানবিক হয়েও উঠছেন। অগ্যতা সামাজিক সচেতনতার কথা মাথায় রেখে এই এবার রাজ্য সরকার নতুন পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত নিল। রোগী করোনা মুক্ত হলেই তাঁর হাতে তুলে দেওয়া হবে ‘নেগেটিভ সার্টিফিকেট’। বিশেশগ করে যদি তিনি কোনও সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতাল, কোয়েরেন্টিন সেন্টার ও সেফ হোমে থাকেন তো। যারা বাড়িতে হোম আইসোলেশনে থাকছেন তাঁদের ক্ষেত্রে অবশ্য এই নিয়ম লাগু হচ্ছে না।
 
রোগীর সামাজিক ও ব্যক্তিগত সুরক্ষার স্বার্থে আরও কিছু নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নবান্নের তরফে। জানানো হয়েছে, রোগী তাঁর বাড়িতে নির্বিঘ্নে প্রবেশ করা থেকে নিশ্চিন্তে কম করে সাতদিন ঘরে বিশ্রাম নেওয়ার সময়ও কোনওভাবে যাতে সেই রোগীকে বিরক্ত না করা হয়, সেদিকেও কড়া নজর রাখতে হবে। মূলত যাতে ওই সময় ওই রোগী বা তাঁর পরিবারের সদস্যদের যেন কেউ বিরক্ত করতে না পারেন। দমদম পার্কের ওই বৃদ্ধ সুস্থ হয়ে ঘরে ফেরার মুহূর্তে তাঁকে ঢুকতে বাধা দেন প্রতিবেশীরা। পাঁচ ঘণ্টা তাঁকে অ্যাম্বুল্যান্সে বসে থাকতে হয়। সেখানেই ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। প্রতিবেশীরা দাবি করতে থাকেন ওই বৃদ্ধ যে সত্যিই সুস্থ এবং করোনা নেগেটিভ তা লিখে আনতে হবে। তবেই তাঁকে বাড়ি ঢুকতে দেওয়া হবে। এবার এই সব প্রতিবেশীদের হাত থেকে রেহাই দিতেই এই বিশেষ ব্যবস্থা নিচ্ছে নবান্ন।

Comm Ad 005 TBS

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 008 Myra

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 023 MZP

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে পতাকা উত্তলন দিয়ে শুরু হল শতবর্ষ পালনের উৎসব

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

তারপর প্রদীপ জ্বালালেন কর্মকর্তা ও প্রাক্তনেরা

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রাজা সুরেশ চন্দ্র চৌধুরী

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও অন্যান্যরা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

তবে আইএসএল খেলা নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্যই করলেন না কর্তারা

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস মহাশয়কে পুষ্পস্তবক দিয়ে অভিবাদন জানান সভাপতি

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

শতবর্ষযাপনের কেক কাটেন অরূপ বিশ্বাস ও ক্লাবকর্তা এবং সভ্যবৃন্দ

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন অতীতের অনেক দিকপাল খেলোয়াড়েরা

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

উপস্থিত ছিলেন বহু সভ্য ও সমর্থক

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

প্রকাশ করা হয় বিশেষ স্মারক গ্রন্থও

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

কিন্তু আইএসএল নিয়ে কোনও কথা না বলায় প্রকাশ্যেই হতাশ সমর্থকেরা

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

পূবস্হলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১নং ব্লকের শাখাটি আদিবাসী পাড়ার বাহা পুজোর উৎসব

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

সেখানেই যান মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান সুবিধা-অসুবিধার কথা

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

পরে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন মন্ত্রী

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

জনগণের সঙ্গে বসে অনুষ্ঠানও দেখেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

প্রায় ঘণ্টাখানেক এই অনুষ্ঠানেই ছিলেন তিনি

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 023 MZP

Editors Choice

Comm Ad 026 BM