Comm Ad 2020-LDC epic

দক্ষিনে চলবে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি, উত্তর ভাসবে! ধ্বসে বিপর্যস্ত পাহাড়ের যোগযোগ

Share Link:

দক্ষিনে চলবে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি, উত্তর ভাসবে! ধ্বসে বিপর্যস্ত পাহাড়ের যোগযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি: টানা ৩ দিন ধরে বৃষ্টি ঝরছে উত্তরে। তারই জেরে এবার পাহাড়ে নামতে শুরু করেছে ধ্বস। অবশ্য এমনটা যে ঘটতে পারে সেটা আগে থেকেই জানিয়ে দিয়েছিল দিল্লির মৌসম ভবন ও কলকাতার আলিপুর আবহাওয়া দফতর। একই সঙ্গে উত্তরের নদীগুলিতে জলস্ফীতির জেরে যে বেশ কিছু এলাকা প্লাবিত হতে পারে সেই সতর্কতাও জারি করা হয়েছিল। সেই ঘটনাও এখন ঘটতে দেখা যাচ্ছে। এদিকে দক্ষিনবঙ্গের বুকে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নানা জেলায় বিক্ষিপ্ত ভাবে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হতে শুরু করেছে। আগামী কয়েকদিন এই রকম ভাবেই বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি চলবে দক্ষিনবঙ্গের জেলাগুলিতে।
 
উত্তরবঙ্গের বুকে এক নাগাড়ে বৃষ্টির জেরে নদীগুলির জলস্তর বেড়ে যাওয়ায় নীচু এলাকা যেমন প্লাবিত হয়ে গিয়েছে তেমনি একাধিক জায়গায় ধ্বস নেমে কার্যত সমতল থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে পাহাড়। একাধিক জায়গায় ধ্বস নামায় ১০ নং জাতীয় সড়কের একাধিক জায়গায় ধ্বস নেমেছে। ২৯ মাইলে বেশ বড়সড় ধ্বস নেমেছে। শ্বেতীঝোরাতেও বড় অংশের রাস্তা নষ্ট হয়ে গিয়েছে ধ্বসের জেরে। এর জেরে বাংলা এবং সিকিমের লাইফ লাইন পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গিয়েছে। শ্বেতীঝোরায় জাতীয় সড়ক ধ্বসে যাওয়ায় আগামী ২ দিন যান চলাচল সম্ভব নয় বলেই পূর্ত দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। তবে এদিন সকাল থেকেই ধ্বস সরানোর কাজ শুরু করেছে পূর্ত দফতরের কর্মীরা। কিন্তু বাধ সেধেছে বৃষ্টি। বৃষ্টি না কমলে ধ্বস পুরোপুরি সংস্কার করা সম্ভব নয়। অন্যদিকে ৩১ নং জাতীয় সড়কের সেবক কালীবাড়ির কাছেও ধ্বস নেমেছে। এর জেরে শিলিগুড়ির সঙ্গে অসম এবং ডুয়ার্সের যোগাযোগ বন্ধ। অনেকটা ঘুরপথে গজলডোবা হয়ে গাড়ি চলাচল করছে। আর ১০ নং জাতীয় সড়কে ধ্বসের জেরে শিলিগুড়ির সঙ্গে সিকিম এবং কালিম্পংয়ের মধ্যে যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন। পেশক হয়ে ঘুরপথে চলছে যান চলাচল।  
 
শৈলশহর দার্জিলিংয়ের বুকেও নেমেছে একাধিক জায়গায় ধ্বস। দার্জিলিংয়ের সদর হাসপাতালের সামনের এলাকা সহ পুরসভার বেশ কিছু এলাকায় ধ্বস নেমেছে। তার জেরে বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তারা অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন। এদিকে ধ্বসের মোকাবিলায় তৈরী জিটিএ'র ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট টিম। দার্জিলিং ও কালিম্পং জেলার ৮টি ব্লকের ধ্বস প্রবন এলাকায় পৌঁছে গিয়েছে ডিজাস্টার টিমের সদস্যরা। সঙ্গে ত্রিপল সহ প্রয়োজনীয় সামগ্রী নিয়ে।  গত ৩দিন ধরে লাগাতার বৃষ্টির জেরে বিপর্যস্ত সমতলও। শিলিগুড়ির বিধাননগরের একাধিক জায়গা প্লাবিত। বিধাননগরের আনারস বাগান এবং কয়েকটি চা বাগানও জলের তলায়। বিধাননগরের রবীন্দ্র পল্লি, নেতাজী পল্লি, সহদরগাছ এলাকা জলমগ্ন। কোথাও হাঁটু সমান তো কোথাও আবার বুক পর্যন্ত জল। তা পেরিয়েই ঝুঁকি নিয়ে চলছে পারাপার। শিলিগুড়ি পুরনিগমের বেশ কয়েকটি নীচু ওয়ার্ডও প্লাবিত। বৃষ্টির মধ্যেই পুরনিগমের প্রশাসক মণ্ডলীর চেয়ারম্যান অশোক ভট্টাচার্য শহরের জল যন্ত্রণার ছবি দেখতে বেরিয়ে পড়েন। পাহাড় ও সমতলে অবিরাম বৃষ্টির জেরে জল বাড়ছে মহানন্দা, বালাসন, পঞ্চনই সহ একাধিক নদীর জল। জলস্তর অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। নদী সংলগ্ন এলাকায় বসবাসকারীদের সতর্ক থাকবার পরামর্শ দিয়েছে শিলিগুড়ি মহকুমা প্রশাসন। গত ২৪ ঘন্টায় শিলিগুড়িতে ১১৭ দশমিক ১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। দার্জিলিংয়ে ১০৪ দশমিক ২ মিমি, সেবকে ৮৬ দশমিক ৮ মিমি এবং কালিম্পংয়ে ৫৭ দশমিক ৪ মিমি বৃষ্টি হয়েছে।
 
আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, আরও অন্তত ৪৮ ঘণ্টা পরিস্থিতি বদল হওয়ার সম্ভাবনা নেই। শনিবার পর্যন্ত উত্তরবঙ্গের সব জেলাতেই বৃষ্টি হবে, হিমালয়ের পাদদেশে থাকা আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং ও দার্জিলিংয়ে অতি ভারী বৃষ্টি হবে। তুলনায় কিছুটা কম বৃষ্টি হবে কোচবিহার, দুই দিনাজপুর ও মালদা জেলায়। বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ হালকা হয়ে মধ্যপ্রদেশের দিকে চলে যেতেই ফের পূর্ব উত্তরপ্রদেশ থেকে মহারাষ্ট্র পর্যন্ত একটি নতুন নিম্নচাপ অক্ষরেখা তৈরি হয়েছে। তার জেরেই শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি সহ উত্তরবঙ্গের পাহাড় লাগোয়া ৫ জেলাতে ভারী থেকে অতি ভারী এবং কোথাও কোথাও অতিরিক্ত ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস থাকছে। দক্ষিনবঙ্গে বৃহস্পতিবার দুই ২৪ পরগনা, কলকাতা, হাওড়া, হুগলি ও পূর্ব মেদিনীপুরে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  

2020 New Ad HDFC 04

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 006 TBS

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Pujo2020-T01

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

Voting Poll (Ratio)

corona 02

Editors Choice

Comm Ad 2020-Valentine RC