Comm Ad 2020-tantuja-body

উৎসব মরশুমেই চালু হচ্ছে জিরো বেসড টাইম টেবিল! ভুগবে বাংলা

Share Link:

উৎসব মরশুমেই চালু হচ্ছে জিরো বেসড টাইম টেবিল! ভুগবে বাংলা

নিজস্ব প্রতিনিধি: খুব শীঘ্রই উৎসব মরশুমের মধ্যে চালু হতে চলেছে রেলের নতুন টাইম টেবিল। এর নাম দেওয়া হয়েছে, ‘জিরো বেসড টাইম টেবিল’। সেই টাইম টেবিলে আমূল বদলে যেতে চলেছে দেশের যাত্রীবাহী ট্রেনের সময়সূচী থেকে যাত্রাপথ মায় তার ভাড়াও। বেশ কিছু ট্রেন চিরতরে তুলে দেওয়া হবে। তেমনি বেশ কিছু ট্রেন উন্নিত করা হবে এক্সপ্রেস ও সুপারফাস্ট ট্রেন হিসাবে। তার জেরে ওই সব ট্রেনে যাত্রী ভাড়া যেমন অনেকটাই বেড়ে যাবে তেমনি দেশের বহু নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবার কার্যত ট্রেনের পরিষেবা পাওয়ার থেকে বঞ্চিত হয়ে পড়বেন। একই রকম ভাবে এক্সপ্রেস ও সুপারফাস্ট ট্রেনগুলির ক্ষেত্রে স্টপেজের সংখ্যা কমিয়ে দেওয়া হবে। ফলে বেশ কিছু স্টেশন তাদের গুরুত্ব হারাতে চলেছে। আর এই সব কিছুর ভালো রকম প্রভাব পড়তে চলেছে এই রাজ্যে। বাংলা একদিকে যেমন বেশ কিছু ট্রেন হারাচ্ছে তেমনি বেশ কিছু ফাস্ট প্যাসেঞ্জার ট্রেন এক্সপ্রেস ট্রেনে উন্নিত হওয়ায় আমজনতা তার সিবিধা থেকে বঞ্চিত হতে চলেছেন।
 
কী কী পরিবর্তন ঘটতে চলেছে? রেলসূত্রে জানা গিয়েছে বিশ্বভারতী ফাস্ট প্যাসেঞ্জার, ময়ূরাক্ষী ফাস্ট প্যাসেঞ্জার, আজিমগঞ্জ ফাস্ট প্যাসেঞ্জার, মালদা টাউন ফাস্ট প্যাসেঞ্জার, শিরোমণি ফাস্ট প্যাসেঞ্জার, লালগোলা ফাস্ট প্যাসেঞ্জার ট্রেনগুলি হয় বাতিল করা হবে নাহলে তা এক্সপ্রেস ট্রেনে রূপান্তরিত করা হবে। তার জেরে এই ট্রেনগুলির স্টপেজ কমলেও একধাক্কায় ভাড়া অনেকটাই বেড়ে যাবে। ফলে এই ট্রেনগুলির ওপর নির্ভরশীল মানুষজন হয় ভাড়ার কারনে এইসব ট্রেনে চড়তে পারবেন না নাহলে তাঁরা যে সব স্টেশন থেকে এই সব ট্রেনে ওঠানামার সুযোগ পেতেন তা আর পাবেন না। বেশ কিছু ক্ষেত্রে এক্সপ্রেস ট্রেনের গতিপথ বদলে দেওয়া হচ্ছে বা তার যাত্রাপথ সম্প্রসারিত করা হচ্ছে। যেমন শান্তিনিকেতন এক্সপ্রেস সম্ভবত রামপুরহাট পর্যন্ত সম্প্রসারিত হবে। হুল এক্সপ্রেস সম্প্রসারিত হবে রামপুরহাট পর্যন্ত। মা তারা এক্সপ্রেস ও শহীদ এক্সপ্রেস আজিমগঞ্জ পর্যন্ত সম্প্রসারিত হতে পারে। গৌড় এক্সপ্রেস বালুরঘাট পর্যন্ত সম্প্রসারিত হতে পারে।
 
আবার বেশ কিছু ট্রেনের স্টপেজ তুলে দেওয়া হচ্ছে। যেমন কোলফিল্ড এক্সপ্রেসের স্টপেজ তুলে নেওয়া হতে পারে মানকর স্টেশন থেকে। গণদেবতা এক্সপ্রেসের স্টপেজ তুলে নেওয়া হতে পারে আমোদপুর, মল্লারপুর, মোরগ্রাম স্টেশন থেকে। ভাগীরথী এক্সপ্রেসের স্টপেজেও কাঁটছাঁট করা হচ্ছে। কৃষ্ণনগর ও বহরমপুরের মধ্যে বেলডাঙ্গা ছাড়া আর কোনও স্টপেজ থাকছে না। আবার বহরমপুর আর লাল্গোলার মাঝে মুর্শিদাবাদ টাউন ছাড়া অন্য কোনও স্টপেজ থাকছে না। আবার মালদা থেকে বালুরঘাট পর্যন্ত বাতিল হবে গৌড় লিংক এক্সপ্রেস। তুফান মেল, অমৃতসর মেল, কালকা মেল, মুম্বই মেল, চেন্নাই মেল ট্রেনগুলিকে স্টপেজ কমিয়ে ভাড়া বাড়িয়ে সুপারপাস্ট ট্রেনে রূপান্তরিত করা হবে। রাজগীর ফাস্ট প্যাসেঞ্জার, জয়নগর ফাস্ট প্যাসেঞ্জার, মোকামা ফাস্ট প্যাসেঞ্জার চিরতরে বাতিলের খাতায় চলে যাচ্ছে। এর সব থেকে বড় প্রভাব কিন্তু পড়তে চলেছে আমজনতার ওপরেই। একে তো ভাড়া বাড়তে চলেছে একধাক্কায় অনেকটাই তারওপর ফাস্ট প্যাসেঞ্জার ট্রেন কার্যত উঠে যাওয়ায় আমজনতার অনেকের পক্ষেই আর পরিবার নিয়ে ট্রেনযাত্রা করা অসম্ভব হয়ে উঠতে চলেছে। 

Comm Ad 018 Kalna

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

2020 New Ad HDFC 05

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-LDC Momo

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

খিদিরপুর থেকে শুরু করে বেহালা, হরিদেবপুর,

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

মুদিয়ালী ছুঁয়ে সোধপুর পার্ক

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

বাবুবাগান হয়ে উদ্বোধনের যাত্রা শেষ হল একডালিয়া,

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

হিন্দুস্থান পার্ক, ত্রিধারার চত্বরে এসে।

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

#

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক আধটা নয়, পুরো ১১০টি পুজোর উদ্বোধন একঘন্টার মধ্যেই সেরে ফেলে রেকর্ড গড়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালি ভাবে রাজ্যের ১২টি জেলার এই ১১০টি পুজোর উদ্বোধন এদিন করে দিলেন তিনি।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

কখনও দূর্গাস্তোত্র পড়ে, কখনও শাঁখ বাজিয়ে, কখনও বা কাঁসর বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন দেখা গেল একের পর এক জেলায় পুজোর উদ্বোধন করতে।

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

একই সঙ্গে নাম না করেই মাঝে মধ্যে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়ে তাঁকে মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা গেল যে মা যেন বাংলাকে দাঙ্গা থেকে বাঁচান

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-LDC Egg

Editors Choice

Comm Ad 2020-LDC Momo