Comm Ad 2020-Valentine body

বিনামূল্যের টিকাকরণ মাইলেজ দেবে তৃণমূলকে! ধাক্কা গেরুয়ায়

Share Link:

বিনামূল্যের টিকাকরণ মাইলেজ দেবে তৃণমূলকে! ধাক্কা গেরুয়ায়

নিজস্ব প্রতিনিধি: দেশের মানুষকে বিনামূল্যে কোভিডের টিকা দেওয়া হবে এমন কথাই বার বার বলে এসেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু সাম্প্রতিক কালে কেন্দ্রের তরফে তা নিয়ে আর সুস্পষ্ট ভাবে কোনও উচ্চবাক্য করা হচ্ছে না। এমনকি এটাও দেখা যাচ্ছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলছেন দেশের সব মানুষকে বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হবে আবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সচিব বলছেন শুধুমাত্র প্রথম পর্যায়ের ৩০ কোটি মানুষকেই বিনামূল্যে কোভিডের টিকা দেওয়া হবে। এই টানাটানির জেরে দেশজুড়ে আশা আশঙ্কার দোলাচলে রয়েছেন ১৩০ কোটি মানুষ। তবে বাংলার মানুষকে আশ্বস্ত করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন রাজ্যের সব মানুষকেই বিনামূল্যে টিকা দেবে রাজ্য সরকার। এখন অনেকেই মনে করছেন রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া এই প্রতিশ্রুতি কার্যত ভোট বাজারে মাইলেজ দিতে চলেছে মা-মাটি-মানুষের সরকার ও তৃণমূল কংগ্রেসকে। একে ১০ কোটি মানুষকে স্বাস্থ্যসাথীর আওতায় নিয়ে আসা আর এরপর বিনামূল্যের কোভিড টিকা, এই দুইয়ের ধাক্কায় বাংলার ভোটবাজারে কার্যত ধরাশায়ী গেরুয়া শিবির।
 
২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তার সবই তিনি রেখেছেন। উন্নয়ন থেকে পরিষেবা কোনও ক্ষেত্রেই কথার খেলাপ তিনি করেননি। তাই তাঁর দেওয়া প্রতিশ্রুতি যে মোদির দেওয়া ১৫ লক্ষ টাকার মতো ভাঁওতা হবে না সেটা বঙ্গবাসী বিলক্ষণ জানেন। আর জানেন বলেই এখন বঙ্গবাসী নিশ্চিত সময় লাগলেও তাঁরা বিনামূলেই কোভিডের টিকা পাবেন। নবান্নের আধিকারিকেরাও জানিয়েছেন, রাজ্যের ১০ কোটি মানুষের কোভিডের টিকার জন্য প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা রাজ্য সরকারকে খরচ করতে হবে। সেটা মাথায় রেখেই গত এক বছর ধরে রাজ্য সরকার সব দিক দিয়েই বাজেট কন্ট্রোল করে চলেছে। সম্ভবত কোভিডের টিকার জন্য অর্থ সংগ্রহ করে রাখতেই এই পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। তাই কেন্দ্র কোনও সাহায্য না করলেও পশ্চিমবঙ্গ সরকার বাংলার মানুষকে বিনামূল্যে ঠিকই কোভিডের টিকা দিয়ে দেবে। তাতে হয়তো কিছুটা সময় লাগবে। কিন্তু সরকার চেষ্টা করছে ২০২১ সালের মধ্যেই এই প্রক্রিয়া শেষ করে দিতে। আর মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া এই প্রতিশ্রুতি যেভাবে রাজ্যবাসী গ্রহণ করেছে তাতে এটা পরিষ্কার যে না কেন্দ্র সরকারের ওপর না নরেন্দ্র মোদির ওপর না বিজেপির ওপর, বাংলার মানুষের আর ভরসা নেই।
 
বিজেপি নানা ভাবে চেষ্টা করছে মমতা বিরোধীতার জিগির তোলা। কিন্তু কিছুই দানা বাঁধতে পারছে না। বিজেপি মাঠে ১০০ লোক নামালে তৃণমূল পাল্টা ১০০০ লোক নামিয়ে দিচ্ছে। বিজেপি যে সব বিষয়গুলি তুলে ধরে মমতার সরকারকে আক্রমণ করবে বলে পরিকল্পনা নিয়েছিল তা একে একে সব ভোঁতা হয়ে যাচ্ছে। তাঁদের কাছে তাই ধর্মের নামে বিভাজন আর মিথ্যা প্রতিশ্রুতি বিলি করা ছাড়া আর কিছুই নেই। বিজেপি যে মমতার বিরুদ্ধে সেভাবে বলার কিছু নেই তা বেশ বোঝা গিয়েছে গতকালের নাড্ডার প্রেস মিটে। সেখানে সাংবাদিকেরা নাড্ডাকে যা যা জিজ্ঞাসা করেছেন তিনি সযত্নে সেই সব বিষয় এড়িয়ে গিয়েছেন। এ থেকেই পরিষ্কার মমতা বা তৃণমূলের বিরুদ্ধে তুলে ধরার মতো কোনও ইস্যু না তাঁদের হাতে আছে না বাংলাকে নিয়ে তাঁদের কোনও চিন্তাভাবনা আছে। তাঁদের দরকার শুধু ক্ষমতার দখল। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেওয়া প্রতিশ্রুতির ওপরেই ভরসা রাখছে বাংলার মানুষ। তাঁদের এই ভরসাই ভোটবাজারে বিশাল বড় মাপের মাইলেজ দিতে চলেছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে। তাই রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহলের ধারনা তৃণমূল ২০০’র বেশি আসন পেলে অবাক হওয়ার মতো কিছু থাকবে না।

Comm Ad 2020-tantuja-body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-LDC Egg

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 026 BM

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের  সমাপ্তি অনুষ্ঠান

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠান

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-WBSEDCL RC

Editors Choice

Comm Ad 026 BM