Comm Ad 2020-LDC epic

অঝোর ধারায় জলবন্দি দক্ষিনবঙ্গ! নজরে ডিভিসি

Share Link:

অঝোর ধারায় জলবন্দি দক্ষিনবঙ্গ! নজরে ডিভিসি

নিজস্ব প্রতিনিধি: শুরু হয়েছিল বুধবার রাত থেকে। বৃহস্পতিবার সারাদিন ঝরেছে সে অঝোর ধারায়। শুক্র সকালে সে থেমেছে। কিন্তু তাতেও কাটছে না বিপদ। কেননা এদিন সে ভারী বৃষ্টি নামাবে রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে। সঙ্গে ভারতী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হবে উচ্চ দামোদর অববাহিকায়। যার জেরে আগামীকাল থেকেই জল ছাড়া শুরু হয়ে যেতে পারে ডিভিসির একাধিক জলাধার থেকে। আর তার জেরেই হুগলি, হাওড়া, দুই মেদিনীপুরের বিস্তীর্ন এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা থাকছেই। নজরে বঙ্গোপসাগরের ওপরে সৃষ্ট নিম্নচাপ ও তার হাত ধরে গত ৩৬ ঘন্টায় দক্ষিনবঙ্গে অঝোর ধারায় বৃষ্টি। ফলস্বরূপ কলকাতা সহ একাধিক জেলা কার্যত জলবন্দি হয়ে পড়েছে।
 
বুধবার রাত থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টির জেরে কলকাতা সহ দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলি জেলার বিস্তীর্ন এলাকা জলবন্দি হয়ে পড়েছে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বারাসত ও বসিরহাট মহকুমা এলাকায় এই জলবন্দির ছবিটা সব থেকে বেশি। বারসত শহরের হৃদয়পুর, আপনপল্লি, নিবেদিতা পার্ক, শরৎপল্লি, রামকৃষ্ণ পল্লি, বালক সঙ্ঘ, রথ তলা, কোকো বাগান, ইন্দ্রপ্রস্থ, বিজয়নগর এলাকায় জল জমে রয়েছে। আবার বসিরহাট মহকুমার সন্দেশখালি, হিঙ্গলগঞ্জ, হাসনাবাদ, হাড়োয়া, মিনাখাঁ সহ ৬টি ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত। ফলে ওই সব এলাকার জনজীবনও বিপর্যস্ত হয়েছে। কাঁচালঙ্কা, উচ্ছে, কুমড়ো ও বেগুন সহ বিভিন্ন রকমের সব্জির ক্ষেত এখন জলের তলায়। দক্ষিন ২৪ পরগনা জেলায় আবার ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়াও দুর্যোগ ডেকে এনেছে। নামখানা, ফ্রেজারগঞ্জ, পাথরপ্রতিমা, সাগর, গোসাবা, বাসন্তী, কুলতলির বিস্তীর্ন এলাকায় বেশ কিছু নদী বাঁধ ভেঙে গ্রামে জল ঢুকেছে। হাওড়া জেলার মধ্যে সব থেকে বেশি জলবন্দি দশা দেখা যাচ্ছে খোদ হাওড়া শহরেই। প্রায় ২৫টি ওয়ার্ড এই ভারী বৃষ্টিতে জলবন্দি হয়ে পড়েছে। হুগলি জেলার শিল্পাঞ্চল এলাকাগুলিতেই নীচু এলাকাগুলি প্লাবিত হয়েছে জমা জলে।
 
এর বাইরে দক্ষিনবঙ্গের অনান্য জেলাতেও জলবন্দির ছবি ধরা পড়েছে। বর্ধমান শহরের বাঁকা নদীর জল বাড়ায় সেখানকার বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড জলমগ্ন হয়েছে। শহরের বিধানপল্লি, পীরবাহারাম, বাজেপ্রতাপপুর, লাকুর্ডি, ইছলাবাদ সহ বেশকিছু জায়গার মানুষ স্থানীয় স্কুল ও ক্লাবে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছেন তাঁদের বাড়িতে জল ঢুকে যাওয়ায়। শহরের সার্কাস রোড, লস্করদিঘি এলাকাও জলমগ্ন হয়েছে। টানা বৃষ্টিতে বীরভূমের লাভপুরে মাটির বাড়ি ভেঙে আহত হয়েছেন একই পরিবারের বেশ কয়েকজন। জঙ্গলমহলের ছবিটাও কিছু আলাদা নয়। বাঁকুড়া থেকে ঝাড়গ্রাম যাওয়ার ৯ নং রাজ্য সড়কের বেশ কিছু এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। জলের নীচে চলে গিয়েছে সিমলাপাল সেতু। সেখানে ব্রিজের ওপর দিয়েই খরস্রোতে বয়ে চলেছে শিলাবতী নদী। দ্বারকেশ্বর, গন্ধেশ্বরী, কংসাবতী, শিলাবতী, শালি নদীতেও জল বেড়েছে। শিলাবতী নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা-২ ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকা। সেখানকার বসনছোড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের আকতকোলা ও যদুপুরে ভেঙে গিয়েছে শিলাবতী নদীর বাঁধ। আর এই বাঁধ ভাঙ্গার ফলে প্রায় ৫০টিরও বেশি গ্রাম প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা করছে ব্লক প্রশাসনের আধিকারিকরা। পূর্ব মেদিনীপুরে অবশ্য সেরকম ভাবে জলবন্দি হয়নি।
 
আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, গত ৩৬ ঘন্টায় ডায়মন্ডহারবারে ২১৮ মিলিমিটার, আলিপুরে ১৫০ মিলিমিটার, দমদমে ১৪৬ মিলিমিটার, সল্টলেকে ১২৩ মিলিমিটার, ব্যারাকপুরে ১৪৭ মিলিমিটার, মেদিনীপুরে ১৩৪ মিলিমিটার, হলদিয়ায় ১০০মিলিমিটার, বাঁকুড়ায় ১০৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি কলাইকুন্ডাতে ৮৮ মিলিমিটার, শ্রীনিকেতনে ৮৩ মিলিমিটার, বর্ধমানে ৭৮মিলিমিটার ও আসানসোলে ৭৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এদিন কলকাতা সহ দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া, পূর্ব বর্ধমান ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় হালকা থেকে মাঝারু বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূমে ভারী বৃষ্টি হবে। কোথাও কোথাও আবার অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনাও রয়েছে। একই সঙ্গে ঝাড়খণ্ডের উচ্চ দামোদর অববাহিকায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে আগামী ২৪ ঘন্টায়। তার জেরে আগামিকাল থেকে ডিভিসির জলাধারগুলি থেকে জল ছাড়া হতে পারে বলেই জানা গিয়েছে।

Comm AD 12 Myra

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

2020 New Ad HDFC 05

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 008 Myra

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-himalaya RC
Comm Ad 026 BM