Comm Ad 005 TBS

কে শুভেন্দু! ডোন্ট কেয়ার মনোভাব নিয়েই এগোবে তৃণমূল

Share Link:

কে শুভেন্দু! ডোন্ট কেয়ার মনোভাব নিয়েই এগোবে তৃণমূল

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজনীতিতে হয় না বলে সত্যিই কিছুই নেই। আজ যে শত্রু, কাল সে পরম মিত্রও হয়ে উঠতে পারে। বাংলার রাজনীতিতে এখন বোধহয় সেই হাওয়াটাই পাক খাচ্ছে। যে শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে তৃণমূলের গর্ব ছিল আজ সেই শুভেন্দুকে ‘ডোন্ট কেয়ার’ মনোভাব দেখিয়েই নিজের পথে এগোতে চাইছে তৃণমূল। শুক্রবার দিনভর বাংলার রাজনীতির পারা ওঠানামা করেছে শুভেন্দু অধিকারীকে ঘিরেই। তাঁর মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ, সরকারি নিরাপত্তা ছেড়ে দেওয়া, হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদ থেকে চেয়ারম্যান পদের ইস্তফা এসব তো সামনে এসেইছে। একই সঙ্গে সামনে এসেছে তাঁর দিল্লি যাত্রার খবর, আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতের সঙ্গে বৈঠকের খবর, সেই সঙ্গে অবশ্যই বিজেপিতে তাঁর যোগদানের খবর। কিন্তু শুভেন্দু নিজে সারাদিন কোথাও কারোর কাছে ধরা দেননি। থেকে গিয়েছেন সারাদিনই অন্তরালে। এমনকি বিকালে এটাও শোনা গিয়েছিল শুক্র রাতে কালিঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতেই বসতে চলেছে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে শুভেন্দুর বৈঠক। কিন্তু কোনওটাই শেষপর্যন্ত দানা বেঁধে ওঠেনি। দিনের শেষে শুভেন্দু কিন্তু এখনও তৃণমূলেই থেকে গেলেন। রয়ে গিয়েছেন দলের বিধায়কপদেও। তাহলে বিপ্লব কী মাঝপথে থেমে গেল! প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে বাংলা জুড়ে।
 
এসবের মাঝেই কিন্তু ঘর গোছানোর পালা শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল। শুক্র সন্ধ্যায় নিজের বাড়িতে বিশেষ বৈঠক ডেকেছিলেন মমতা। সেখানেই দলের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে দলের কাজ ভাগ করে দেওয়ার পাশাপাশি শুভেন্দুর হাতে থাকা ৩টি দফতরই নিজের হাতে রাখার কথা জানিয়ে দেন তৃণমূল সুপ্রিমো। একই সঙ্গে বুঝিয়ে দেন শুভেন্দু অধিকারী দলে থাকুক বা না থাকুক তাতে দলের যেন কোনও কাজই থমকে না দাঁড়িয়ে যায়। দলনেত্রী পরিষ্কার বুঝিয়ে দেন তিনি তাঁর ঘোষিত অবস্থান থেকে সরে আসবেন না। অর্থাৎ শুভেন্দু অধিকারী দলের পর্যবেক্ষকের যে পদ ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি তুলেছেন তা তাঁকে ফেরানো হচ্ছে না। এদিকে সৌগত রায় জানিয়েছেন, শুভেন্দু যেহেতু এখনও দলছাড়ার কোনও কথা ঘোষণা করেনি তাই তাঁর সঙ্গে আলোচনার প্রক্রিয়া জারি থাকবে। তবে তাঁদের মধ্যে তৃতীয় বৈঠক কবে কখন কোথায় হবে সেটা দলই ঠিক করবে। শুভেন্দু দলে না থাকলে সবারই খুব খারাপ লাগবে কিন্তু দলের কোনও কাজই থেমে থাকবে না। বস্তুত তৃণমূলের শীর্ষনেতৃত্ব এখন শুভেন্দুকে ‘ডোন্ট কেয়ার’ করেই এগিয়ে যেতে চায়। তাঁকে বুঝিয়ে দিতে চায় দল তাঁর কথায় চলবে না। তাঁকেই দলের কথা অনুযায়ী চলতে হবে। তিনি দলে থাকতে চাইলে স্বাগত। অন্য কোথাও চলে যেতে চাইলেও তাঁকে কেউ আটকাবে না। তিনি কী করবেন সে সিদ্ধান্ত তাঁকেই নিতে হবে। তৃণমূল তাঁকে বহিষ্কার করবে না, তাঁর বিধায়ক পদ খারিজের আবেদনও করবে না।
 
এদিকে শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ মহল থেকে জানা গিয়েছে, জননেতা ধাক্কা খেয়েছেন পরিবার তাঁর পাশে না দাঁড়ানোর জন্য। বাবা শিশির অধিকারী জানিয়ে দিয়েছেন তিনি তৃণমূলেই থাকছেন। স্বভাবিক ভাবে তিনি দলের জেলা সভাপতি ও সাংসদ হিসাবেও থেকে যাচ্ছেন। ভাই দিব্যেন্দু অধিকারীও জানিয়ে দিয়েছেন, মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ বা এইচআরবিসি চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা এসবই শুভেন্দু অধিকারীর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। তিনিও দলেই থাকছেন দলের সদস্য হিসাবেই। একই রকম ভাবে শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপি যাত্রা নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়াতে যে খবর ছড়িয়েছে তাতে তাঁর সংখ্যালঘু অনুগামীরা কিছুটা হলেও ক্ষুব্ধ। তাঁর আঁচ মিলছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। এমনকি এটাও শোনা যাচ্ছে যে শুভেন্দুর ঘনিষ্ঠজনেরা তাঁকে পৃথক মঞ্চ গড়ে লড়াই করার কথাও বলছেন। তবে বিজেপিতে যোগদান নিয়ে অনেকেরই আপত্তি আছে। তাই শুভেন্দু এখনই দলত্যাগের কথা সম্ভবত জানাচ্ছেন না। এমনকি শনি সকালে তাঁর দিল্লিযাত্রাও বাতিল করতে পারেন তিনি। তবে এত কিছু ঘটনার পরে তৃণমূলে আবারও জাঁকিয়ে বসা তাঁর পক্ষেও এখুনি সম্ভব নয়।

Comm Ad 2020-tantuja-body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-LDC Egg

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 006 TBS

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের  সমাপ্তি অনুষ্ঠান

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠান

#

#

#

#

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 026 BM
Comm Ad 2020-himalaya RC