এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine




পরকীয়ায় বাধা স্বামী! খুন করে কাঠগড়ায় স্ত্রী




নিজস্ব প্রতিনিধি: পিসতুতো দেওরের সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন স্ত্রী। সেই সম্পর্কের কথা জানতে পেরে যান স্বামী। আর তা থেকেই সংসারে শুরু হয়েছিল নিত্যদিনের অশান্তি। বিষয়টি পাঁচকান হতেও তাই বেশি সময় লাগেনি। মঙ্গলবার সকালেও লেগেছিল অশান্তি। কিন্তু বিকাল গড়াতেই সব চুপ। সবাই ভেবেছিলেন সেদিনের মতো বোধহয় অশান্তিতে দাঁড়ি পড়েছে। কিন্তু রাতের দিকে পিসতুতো দেওরের সঙ্গে বাড়ির বউ রাস্তায় দাঁড়িয়ে হু হু করে পেরিয়ে যাওয়া একের পর এক গাড়ি দাঁড় করাবার চেষ্টা করছে দেখে খটকা লাগে প্রতিনেশীদের। এদিকে শূনসান বাড়ি তখন অন্ধকারে ডুবে। সেই কারনেই প্রতিবেশীরা দুইজনকে আটকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। আর তাতেই বিস্তর অসঙ্গতি ধরা পড়ে। দুইজনকে নিয়ে বাড়িতে আসতেই সিঁড়ির নিচ থেকে উদ্ধার হয় স্বামী তথা গৃহকর্তার ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে মালদা জেলার চাঁচোল মহকুমার হরিশ্চন্দ্রপুরে।

জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তি বছর ৪০ এর রাম মুসোহার ছিলেন পেশায় রঙের মিস্ত্রি। তাঁর সঙ্গে বছর কুড়ি আগে বিয়ে হয় পঞ্চমীর। তাঁদের ১৮ বছরের এক ছেলেও আছে। গত বছর লকডাউনের সময় রামের বাড়িতে এসে থাকা শুরু করে তাঁর পিসতুতো ভাই মনোজ। তাঁর সেই সময় কোন কাজ না থাকায় রাম তাঁকে নিজের রঙের কাজে নিয়ে নিয়েছিল হেল্পার হিসাবে। কিন্তু সেই মনোজই পঞ্চমীর সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে।  বিষয়টি রামের বুঝতে বেশি সময় লাগেনি। তা নিয়েই সংসারে শুরু হয়েছিল অশান্তি। গতকাল রাতে পঞ্চমী আর মনোজকে রাস্তায় দাঁড়িয়ে গাড়ি দাঁড় করাবার চেষ্টা করতে দেখে তাদের আটক করে প্রতিবেশীরা। আর তাদের বাড়িতে ফিরিয়ে এনে ঘরের সব আলো জ্বালতেই সিঁড়ির নীচে প্লাস্টিকে জড়ানো অবস্থায় রামের রক্তাক্ত ও ক্ষতবিক্ষত দেহ মেলে। প্রাথমিক ভাবে অনুমান, পরকীয়ার পথের কাঁটা সরাতে পঞ্চমী আর মনোহ মিলে এই খুন করেছে।

ঘটনার জেরে পাড়া প্রতিবেশীরাই খবর দেয় পুলিশকে। কিন্তু এই দীর্ঘসময় রাম আর পঞ্চমীর বছর আঠারোর ছেলের কোনও সন্ধান মিলছিল না। পরে পাশের গ্রাম থেকে তাকে আটক করে গ্রামবাসীদের একাংশ। তার কথায় বিস্তর অসঙ্গতি থাকায় পুলিশ তাকেও আটক করেছে। পুলিশ পঞ্চমী আর মনোজকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পেরেছে যে, মঙ্গলবার বিকালেই রামকে হাত-পা বেঁধে মাথা থেঁতলে খুন করে তারা দুইজনে মিলে। রামের ১৮ বছরের ছেলে সেই সময় সব কিচ্ছু দেখলেও সে সব চেপে যায়। খুনের পর রামের দেহ সিঁড়ির নীচে রেখে দিয়ে গোটা বাড়ি অন্ধকার করে এলাকা ছেড়ে পালাবার তাল করেছিল পঞ্চমী আর মনোজ। যদিও তার আগেই তারা ধরা পড়ে যায়। পুলিশ রামের দেহ উদ্ধার করার পাশাপাশি পঞ্চমী আর মনোজকেও গ্রেফতার করেছে।




Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

মালদার মহদীপুর আন্তর্জাতিক স্থলবন্দরের সীমান্ত দিয়ে আমদানি – রপ্তানি বন্ধ

শিব পূজোয় মাতবেন বীরভূমের বক্রেশ্বর ধামের বাসিন্দারা

গোপনে নাবালিকা মেয়ের বিয়ে,বাড়ির সামনে ধর্না অবস্থান কন্যাশ্রী ক্লাবের

কোলে সদ্যজাত শিশু,  রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে মা

একুশের মঞ্চে মমতার উত্তরবঙ্গ আক্ষেপ, গুরুত্ব পেলেন জগদীশ

সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জেরে দাদাকে খুন, পলাতক অভিযুক্ত ভাই

Advertisement




এক ঝলকে
Advertisement




জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর