Comm Ad 2020-LDC epic

দলবদলের বীজপুরে উন্নয়নই মূল ইস্যু একুশের নির্বাচনে

Share Link:

দলবদলের বীজপুরে উন্নয়নই মূল ইস্যু একুশের নির্বাচনে

নিজস্ব প্রতিনিধি: একসময়ের লাল দুর্গ বীজপুরেও জোড়াফুল ফুঁটেছিল ২০১১ সালে। কিন্তু যার হাত ধরে এই বিধানসভায় আধিপত্য এসেছিল তৃণমূলের কাছে, সেই মুকুল রায় ২০১৭ সাল থেকে বিজেপিতে। স্থানীয় বিধায়ক মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশু রায়ও বিজেপিতে যোগ দেন গত লোকসভা নির্বাচনের পর। একুশের নির্বাচনে তিনিই বিজেপি প্রার্থী। তবে গড় ধরে রাখতে তৃণমূলের বাজি আবার সুবোধ অধিকারী। যিনি আবার বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। হালিশহরের  বাসিন্দা সুবোধের রাজনীতির লড়াই ছিল বরাবর অর্জুন সিংয়, মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে। আজও সেই লড়াই জারি রয়েছে। যখন শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে পরিবারতন্ত্রের অভিযোগ তুলছে বিজেপি, ঠিক তখনই বিজেপির পরিবারতন্ত্রের ইস্যুটি হাতিয়ার করে ভোট ময়দানে নেমে পড়েছেন সুবোধ। বীজপুরে সংযুক্ত মোর্চার তরফে লড়ছেন সিপিএমের সুকান্ত রক্ষিত। 
 
তৃণমূল কংগ্রেস-------------------------------------------- সুবোধ অধিকারী
বিজেপি---------------------------------------------------- শুভ্রাংশু রায়
সংযুক্ত মোর্চা (সিপিএম)----------------------------------- সুকান্ত রক্ষিত
 
কাঁচরাপাড়া ও হালিশহর পুরসভা নিয়ে গঠিত বীজপুর বিধানসভা কেন্দ্রটি। এটিও বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত। স্বাধীন ভারতের প্রথম নির্বাচনে এই কেন্দ্রে জিতেছিল সিপিআই। প্রথম বিধায়ক হয়েছিলেন নিরঞ্জন সেনগুপ্ত। ১৯৬৭ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত টানা এই কেন্দ্র থেকে জিতেছেন জগদীশ চন্দ্র দাস। ২০০১ সালেও তিনি জেতেন। ১৯৭১ ও ১৯৭২ সালের নির্বাচনে তিনি জিতেছিলেন কংগ্রেসের টিকিটে। পরে ফের সিপিএমে ফিরে আসেন। একনজরে দেখে নিন, বীজপুরের অতীতের বিধায়কদের তালিকা...
 
নির্বাচনের বছর বিধায়ক রাজনৈতিক দল
১৯৫১ নিরঞ্জন সেনগুপ্ত সিপিআই
১৯৫৭ নিরঞ্জন সেনগুপ্ত সিপিআই
১৯৬২ মনোরঞ্জন রায় সিপিআই
১৯৬৭ জগদীশচন্দ্র দাস সিপিএম
১৯৬৯ জগদীশচন্দ্র দাস সিপিএম
১৯৭১ জগদীশচন্দ্র দাস জাতীয় কংগ্রেস
১৯৭২ জগদীশচন্দ্র দাস জাতীয় কংগ্রেস
১৯৭৭ জগদীশচন্দ্র দাস সিপিএম
১৯৮২ জগদীশচন্দ্র দাস সিপিএম
১৯৮৭ জগদীশচন্দ্র দাস সিপিএম
১৯৯১ জগদীশচন্দ্র দাস সিপিএম
১৯৯৬ কমল সেনগুপ্ত বসু সিপিএম
২০০১ জগদীশচন্দ্র দাস সিপিএম
২০০৬ ডা. নির্ঝরিণী চক্রবর্তী সিপিএম
২০১১ শুভ্রাংশু রায় তৃণমূল কংগ্রেস
২০১৬ শুভ্রাংশু রায় তৃণমূল কংগ্রেস
 
২০১১ সালে সিপিএমের তৎকালীন বিদায়ী বিধায়ক নির্ঝরিণী চক্রবর্তীকে ১২ হাজার ৬১২ ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে প্রথমবারের জন্য বিধায়ক হয়েছিলেন শুভ্রাংশু রায়। ২০১৬ সালে সিপিএমের রবীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়কে ৪৭ হাজার ৯৫৪ ভোটে হারিয়ে ছিলেন। পরের বছর শেষের দিকে বাবা মুকুল রায় বিজেপিতে যোগদান করলেও শুভ্রাংশু সেইসময় জানিয়েছিলেন, দিদিই তাঁকে বিধায়ক করেছেন তাই সারাজীবন দিদির সঙ্গেই থাকবেন। তবে গত লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলের পর তাঁর কথাও বদলে যায়। তিনিও শেষমেষ পদ্মশিবিরে যোগ দেন। ২০১৯ লোকসভায় বীজপুর বিধানসভা থেকে বিজেপি এগিয়ে গিয়েছিল ৭ হাজার ৮৯৬ ভোটে। একনজরে দেখে নেওয়া যাক, গত লোকসভা নির্বাচনে বীজপুরে কোন দল কত ভোট পেয়েছিল...
 
রাজনৈতিক দল প্রার্থী প্রাপ্ত ভোট
বিজেপি অর্জুন সিং ৫৮৯১২
তৃণমূল কংগ্রেস দীনেশ ত্রিবেদী ৫১০১৬
সিপিএম গার্গী চট্টোপাধ্যায় ১৪৩৮৫
 
শুভ্রাংশু রায় বিজেপিতে যোগদানের পর পরই ভাটপাড়ার মতোই অশান্ত হয়ে উঠেছিল বীজপুর। গত সোমবারও এক পশলা রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল এলাকা। আগামী ষষ্ঠ দফায় ভোটগ্রহণ এই কেন্দ্রে। সেদিনও ফের অশান্তির আশঙ্কা করছে সাধারণ মানুষ। যে কারণে অতিরিক্ত পদক্ষেপ করতে পারে নির্বাচন কমিশনও। তবে ঝামেলা-সংঘর্ষের মাঝেও এই কেন্দ্রটি দখল করাই মূল লক্ষ্য প্রত্যেকটি দলেরকাছে। বিশেষ করে বীজপুরে লড়াই মূলত বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে। একজন তৃণমূল থেকে গিয়ে বিজেপির প্রার্থী আর অন্যজন বিজেপি থেকে গিয়ে তৃণমূলের প্রার্থী। আর এখানেই জমে উঠেছে লড়াই। সাধারণ মানুষের অবশ্য বক্তব্য, এলাকার উন্নয়ন যে করবে মানুষ তাঁকেই ভোট দেবে। তবে সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়ে বীজপুরের পরবর্তী বিধায়ক কে হন, তা জানতে নজর রাখতে হবে ২ মে ভোটের ফলাফলে দিকে। 

Comm Ad 2020-LDC Haringhata Meet

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 2020-LDC Egg

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-himalaya RC

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

নিউ ইয়র্কে শুরু হল মেট গালা ২০২১। নিউইয়র্কে এই অনুষ্ঠানে ছিল তারকাদের ভিড়। ফ্যাশন, স্টাইল ও দুর্দান্ত ডিজাউনে সব তারকারা হাজির হয়েছিলেন বিচিত্র সব পোশাক পরে। মেট গালার রেড কার্পেটে হাঁটার জন্য কী পরবেন সেলেবরা, তার প্রস্তুতি চলতে থাকে বছরের পর বছর ধরে। করোনার কারণে গত বছর আসরটি বসেনি। তাই এবার যেন তারার মেলা বসে গিয়েছিল।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন লিল নাসকের রাজকীয় পোশাক। সোনালি সুপারহিরোর পোশাকে হাজির ছিলেন তিনি।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

সম্পূর্ণ কালো পোশাক নজর কাড়লেন কিম কারদাশিয়ান।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

রালফ লরেনের তৈরি পশমের পোশাকে ধরা দিয়েছেন জেনিফার লোপেজ। সঙ্গে ছিলেন বেন অ্যাফ্লেক। এ বার সামাজিক অনুষ্ঠানেও দেখা দিলেন যুগলে। মেট গালা ২০২১-এর হোয়াইট কার্পেটে অবশ্য আলাদাই হাঁটলেন জেনিফার ও বেন। ভিতরে গিয়ে মাস্ক পরেই চুম্বনে মগ্ন হলেন দুই তারকা।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

সুপার মডেল ইমন চমত্কার পালকযুক্ত স্বর্ণ এবং বেইজ হেডড্রেস এবং স্কার্ট বেছে নিয়েছিল। মাথার পিছনে বসানো সাদা আর সোনালি হেড পিস দেখাল চক্রের মতো।

Voting Poll (Ratio)

Comm Ad 2020-LDC Egg
Comm Ad 006 TBS