Comm Ad 2020-tantuja-body

কৃষিনির্ভর সিঙ্গুরে ফের শিল্পের খোঁজ, প্রতিশ্রুতি বন্যায় ভাসছে সব দল

Share Link:

কৃষিনির্ভর সিঙ্গুরে ফের শিল্পের খোঁজ, প্রতিশ্রুতি বন্যায় ভাসছে সব দল

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার নেপথ্যে যে ক'টি আন্দোলনের ভূমিকা রয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম সিঙ্গুর আন্দোলন। রাজ্য সরকারের স্কুলপাঠ্যে স্থান পেয়েছে সিঙ্গুর আন্দোলনের কথা। তাই নতুন করে আর তেমন বলার কিছু নেই। তবে গত কয়েক মাসে যেভাবে সিঙ্গুরের রাজনৈতিক পট পরিবর্তন হয়েছে, তার সঙ্গে পাঠ্যবইয়ের ইতিহাস আর হয়তো খাপ খাইয়ে উঠতে পারবে না। 
 
২০০৬ সাল, সপ্তমবারের জন্য ক্ষমতায় এসেই বামফ্রন্ট প্রথম যে কাজে মনোনিবেশ করে, তা হল হুগলির সিঙ্গুরে গাড়ি কারখানা তৈরির প্রকল্প। ওইবছর ২ ডিসেম্বর সিঙ্গুরের অধিগৃহীত জমিতে জোর করে বেড়া দেওয়ার কাজ শুরু হয়। বাধা দিলে একটি দু'বছরের শিশু-সহ মোট ৭৩ জনকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। কৃষকদের আন্দোলনের পাশে গিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন তৎকালীন বিরোধী নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ধর্মতলার ওয়াই চ্যানেলে টানা ২৬ দিন অনশন করেছিলেন তিনি। তারপর ২০০৮-এ দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়েতে লাগাতার ১৫ দিনের ধরনা আন্দোলন সিঙ্গুর থেকে টাটা গোষ্ঠীকে তাড়িয়ে ছেড়েছিল। ওইবছর ২ সেপ্টেম্বর কারখানার কাজ স্থগিত করে টাটা কর্তৃপক্ষ। তারপর ৩ অক্টোবর সিঙ্গুর ছেড়ে যাওয়ার কথা ঘোষণা করে তারা। তবে সে দিনই জয়ী হয়নি সিঙ্গুর। তারও প্রায় ৮ বছর পর ২০১৬ সালের ৩১ অগস্ট সুপ্রিম কোর্ট রায় দেয়, সিঙ্গুরের জমি কৃষকদের ফিরিয়ে দিতে হবে। ওই রায়ে উচ্ছ্বাস দেখা গিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস শিবিরে। এর পরের বছরই অষ্টম শ্রেণির পাঠ্যবইতে সিঙ্গুর আন্দোলনের অন্তর্ভুক্তি হয়। কিন্তু বইয়ের পাতায় লেখা সিঙ্গুর আন্দোলনের অন্যতম নেতা তথা সিঙ্গুরের চারবারের বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ভট্টচার্যকে বয়সের কারণে আর টিকিট দেয়নি তৃণমূল। তাতেই ক্ষুব্ধ মাস্টারমশাই রাতারাতি বদলে নিয়েছেন শিবির। একুশের নির্বাচনে তিনি আবারও সিঙ্গুরের প্রার্থী, কিন্তু এবার বিজেপির টিকিটে। তৃণমূল প্রার্থী করেছে সিঙ্গুর আন্দোলনের আর এক নেতা বেচারাম মান্নাকে। তৃণমূল-বিজেপির রেষারেষির মাঝে সিঙ্গুরে সিপিএমের প্রার্থী তরুণ তুর্কী সৃজন ভট্টাচার্য। যে শিল্পের কামড়ে সিঙ্গুরে পা কেটেছিল বাম সাম্রাজ্যের, সেই শিল্পায়নের বার্তা নিয়েই সিঙ্গুর চষে বেড়াচ্ছেন তিনি। 
 
তৃণমূল কংগ্রেস----------------------- বেচারাম মান্না
বিজেপি--------------------------------- রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য
সংযুক্ত মোর্চা (সিপিএম)-------------- সৃজন ভট্টচার্য
 
আনন্দনগর, বাগডাঙ্গা চিনামোড়, বারুইপাড়া পালতাগড়, বেড়াবেড়ি, বিগহাটি, বৈচিপোতা, বড়া, বড়াই পাহালামপুর, গোপালনগর, মির্জাপুর-বাঁকিপুর, নসীবপুর, সিঙ্গুর-১ এবং সিঙ্গুর-২ গ্রামপঞ্চায়েতগুলি নিয়ে সিঙ্গুর সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক ও  চন্ডীতলা-২ সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক নিয়ে গঠিত সিঙ্গুর বিধানসভা কেন্দ্রটি। এটি হুগলি লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত। ১৯৫১ সালে এই কেন্দ্রের যুগ্ম বিধায়ক হন সিপিআইয়ের সৌরেন্দ্রনাথ সাহা ও অজিতকুমার বসু। মাত্র ৪ বার এই সিঙ্গুরে জয় পেয়েছে কংগ্রেস। একসময় এই কেন্দ্রটিও বামেদের গড় ছিল। তবে ২০০১ সাল থেকে এই সিঙ্গুরে জিতে আসছেন রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য। একনজরে দেখে নেওয়া যাক, সিঙ্গুরের বিধায়কদের তালিকা...
 
নির্বাচনের বছর বিধায়ক রাজনৈতিক দল
১৯৫১ সৌরেন্দ্রনাথ সাহা
অজিতকুমার বসু
সিপিআই
সিপিআই
১৯৫৭ প্রভাকর পাল জাতীয় কংগ্রেস
১৯৬২ প্রভাকর পাল জাতীয় কংগ্রেস
১৯৬৭ প্রভাকর পাল জাতীয় কংগ্রেস
১৯৬৯ গোপাল বন্দোপাধ্যায় সিপিএম
১৯৭১ অজিতকুমার বসু সিপিআই
১৯৭২ অজিতকুমার বসু সিপিআই
১৯৭৭ গোপাল বন্দোপাধ্যায় সিপিএম
১৯৮২ তারাপদ সাধুখাঁ জাতীয় কংগ্রেস
১৯৮৭ বিদ্যুৎকুমার দাস সিপিএম
১৯৯১ বিদ্যুৎকুমার দাস সিপিএম
১৯৯৬ বিদ্যুৎকুমার দাস সিপিএম
২০০১ রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য তৃণমূল কংগ্রেস
২০০৬ রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য তৃণমূল কংগ্রেস
২০১১ রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য তৃণমূল কংগ্রেস
২০১৬ রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য তৃণমূল কংগ্রেস
 
২০০১ সালেই তৃণমূলের টিকিটে প্রথবার সিঙ্গুরের বিধায়ক হয়েছিলেন মাস্টারমশাই রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য। ২০১১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার ক্ষমতায় আসার পরে মন্ত্রীও করা হয় তাঁকে। ২০১৬ সালে লড়াইটা ছিল আরও কঠিন। প্রতিপক্ষ ছিলেন সিপিএমের পোড়খাওয়া নেতা রবীন দেব। কিন্তু সেবারও ২০ হাজার ৩২৭ ভোটের ব্যবধানে জিতেছিলেন মাস্টারমশাই। কিন্তু গত লোকসভা ভোটে এই কেন্দ্রে ধাক্কা খায় তৃণমূল। বিজেপি এগিয়ে যায় ১০ হাজার ৪২৯ ভোটে। একনজরে দেখে নেওয়া যাক, ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলে সিঙ্গুরে কোন দল কত ভোট পেয়েছিল...
 
রাজনৈতিক দল প্রার্থী প্রাপ্ত ভোট
বিজেপি লকেট চট্টোপাধ্যায় ৯৩১৭৭
তৃণমূল কংগ্রেস রত্না দে নাগ ৮২৭৪৮
সিপিএম প্রদীপ সাহা ১৭৬৩২
 
কৃষিনির্ভর সিঙ্গুরে  শিল্পই যেন মূল ইস্যু একুশের নির্বাচনে। ইতিমধ্যেই সেখানে শিল্পের প্রতিশ্রুতি দিয়ে রোড শো করেছেন অমিত শাহ। যদিও তৃণমূলত্যাগী রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যকে প্রার্থী হিসাবে মেনে নিতে পারেনি এলাকার পুরনো বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। এ নিয়ে একাধিক বিক্ষোভও হয়েছে। অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, সিঙ্গুরে তৈরি করা হবে অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রি। তারপর বড় শিল্পও তিনি করবেন বলে জানিয়েছেন। এদিকে বিজেপি ও তৃণমূলের শিল্পের প্রতিশ্রুতির মাঝেই সিঙ্গুরে চাঙ্গা হচ্ছে বামফ্রন্ট। তারাই প্রথম শিল্প করতে চেয়েছিল সিঙ্গুরে। সেকথা মনে করিয়ে সিপিএম প্রার্থী সৃজন ভট্টাচার্যের মিছিল থেকে ফের শ্লোগান উঠছে, 'কৃষি আমাদের ভিত্তি, শিল্প আমাদের ভবিষ্যৎ।' তবে নন্দীগ্রামের মতোই সিঙ্গুরও একুশের নির্বাচনে যে বড় ফ্যাক্টর, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। শেষ পর্যন্ত সিঙ্গুর কোন দলের দখলে যায়, তা জানা যাবে ২ মে।

Comm Ad 2020-tantuja-body

More News:

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Comm Ad 008 Myra

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Comm Ad 2020-LDC Egg

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

স্বামী করণ সিং গ্রুভারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন বিপাশা

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

বিকিনিতে নিজের অনুরাগীদের মনে উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন বিপাশা বসু

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

মলদ্বীপে খোশমেজাজে রয়েছেন বিপাশা

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

বিপাশার বিকিনি পরা ছবি দেখে বলাই যায় বয়স সংখ্যামাত্র

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

হাতে কাজ না থাকায় দাম্পত্য জীবন উপভোগ করছেন বঙ্গতনয়া

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সরকারের হাত ধরে সল্টলেকের বুকে চালু হয়েছে প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। যেখানে মিলবে পোষ্যদের চিকিৎসা পরিষেবা।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

সল্টলেকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ ভবন প্রাঙ্গণেই এই নতুন প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এদিন উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

এই পশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মিলবে ইসিজি, আল্ট্রাসোনোগ্রাফি, রক্ত সিরামের বিভিন্ন পরীক্ষা, পরজীবী সংক্রমণ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ, আধুনিক শল্য চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগসুবিধা।

 আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

আগামী দিনে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মিলবে পোষ্যদের চোখ, কান ও দাঁতের পরীক্ষা পরিষেবাও।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যায়ে এই নবনির্মিত পশু চিকিৎসালয় তৈরি করা হয়েছে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সারা রাজ্যে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের অধীনে ১০৪টি রাজ্য প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৮টি পলিক্লিনিক, ৩৪২টি ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ২৭২টি অতিরিক্ত ব্লক প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু থাকলো বাংলার বুকে।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

সল্টলেক ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বিশেষ করে যাদের বাড়িতে ছোট পোষ্য থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে অনেকটাই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে চলেছে এই নবনির্মীত প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি।

পূর্বস্থলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১ নং ব্লকের, বেগপুর অঞ্চলের পাথর ডাঙ্গায় সংখ্যালঘু দপ্তরের বরাদ্দ ১৫,১৯,০০০ টাকায় নির্মিত জল প্রকল্প উদ্বোধনে মন্ত্রী

পূর্বস্থলি দক্ষিণ বিধানসভার কালনা ১ নং ব্লকের, বেগপুর অঞ্চলের পাথর ডাঙ্গায় সংখ্যালঘু দপ্তরের বরাদ্দ ১৫,১৯,০০০ টাকায় নির্মিত জল প্রকল্প উদ্বোধনে মন্ত্রী

এই বিশেষ প্রকল্পের উদ্বোধনে হাজির ছিলেন রাজ্যের প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

এই বিশেষ প্রকল্পের উদ্বোধনে হাজির ছিলেন রাজ্যের প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ

এই বিশেষ জল প্রকল্পের ফলে উপকৃত হবেন এলাকাবাসী

এই বিশেষ জল প্রকল্পের ফলে উপকৃত হবেন এলাকাবাসী

Voting Poll (Ratio)

corona 02
Comm Ad 026 BM