এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

‘১ এপ্রিলের মধ্যে কেন্দ্র টাকা না ছাড়লে, আমরা ১১ লক্ষ বাড়ি করে দেব’, ঘোষণা মমতার

Courtesy - Facebook and Google

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাংলার(Bengal) মানুষদের জন্য প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনার(PMGAY) টাকা বিগত দেড় বছর ধরে আটকে রেখেছে কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন নরেন্দ্র মোদির(Narendra Modi) সরকার। রাজ্যের তরফে বার বার সেই টাকা চাওয়া হয়েছে। কেন্দ্র থেকে এসেছে ১৬টিরও বেশি কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল যারা বাংলার জেলায় জেলায় ঘুরে আবাস যোজনায় দুর্নীতি হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখেছেন। কেননা মোদি সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল বাংলায় কেন্দ্রের আবাস যোজনায় নাকি ভুরি ভুরি দুর্নীতি হয়েছে, তাই টাকা আটকে রাখা হয়েছে। যদিও কোনও কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল বাংলায় আবাস যোজনায় কোনও দুর্নীতির খোঁজ পাননি। না তাঁরা কোনও দুর্নীতি দেখতে পেয়েছেন, না কেউ কোনও দুর্নীতির রিপোর্ট দাখিল করতে পেরেছেন। কিন্তু বাংলার হকের টাকা আটকে রাখা হয়েছে। এবার সেই ক্ষেত্রেই বড় সিদ্ধান্ত নিয়ে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। এদিন পুরুলিয়ার(Purulia) মাটিতে দাঁড়িয়ে তিনি জানিয়ে দিলেন, কেন্দ্র সরকার ১ এপ্রিলের মধ্যে আটকে রাখা আবাস যোজনার টাকা না ছাড়লে তা রাজ্য সরকারই দিয়ে দেবে। 

এদিন মমতা বলেন, ‘১০০ দিনের কাজের প্রকল্পের টাকা দু’বছর আটকে রেখেছে কেন্দ্র। আমি আগেই জানিয়ে দিয়েছিলাম কেন্দ্র সরকার ওই টাকা না দিলে আমরাই সেই তাকা দেব। আমরা কাল থেকে সেই টাকা দিচ্ছি। অনেকটা হয়েছে। বাকিটাও তাড়াতাড়ি হয়ে যাবে। আর কতজন পাচ্ছে? আমরা জানিয়েছিলাম ২১ লক্ষ। ওটা কেন্দ্রের পোর্টাল দেখে আমি বলেছিলাম। কিন্তু পরে আমরা দেখছি, ওটা ২১ লক্ষ নয়। ৫০ লক্ষ। আমরা ভোটের আগে দিল্লিকে জিজ্ঞেস করতে চাই কেন গরীবের টাকা দেয় না? বাংলা ভিখারী নয়। বাংলা ভাগ চায় না। বাংলা হক চায়। বাংলা ভিক্ষা চায় না, অধিকার চায়। কেন্দ্র সরকার বাড়ির টাকাও আটকে রেখেছে। ১ এপ্রিলের মধ্যে কেন্দ্র টাকা না ছাড়লে, আমরা ১১ লক্ষ বাড়ি করে দেব।’ উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রী এদিন ১১ লক্ষ বাড়ি করে দেওয়ার কথা বললেও নবান্ন সূত্রে আগেই জানা গিয়েছে, ধাপে ধাপে রাজ্য সরকার মোট ৩৩ লক্ষ পরিবারকেই বাড়ি তৈরি করে দেবে। কেননা, প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনায় এ রাজ্যের মোট ৩৩ লক্ষ উপভোক্তার নাম উঠে আছে। নবান্ন সূত্রে খবর, বাংলায় আবাস প্রকল্পের মোট বঞ্চিতের সংখ্যা ৩৩ লক্ষ ২৪ হাজার।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন যে ১১ লক্ষ বাড়ি তৈরির জন্য টাকা দেওয়ার কথা জানিয়েছেন, সেই ১১ লক্ষ উপভোক্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছেন রাজ্যের সরকারি আধিকারিকেরা। নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতে আবাস প্রকল্পের বঞ্চিতদের নিয়ে সরকারি আধিকারিকদের বৈঠক হতে চলেছে ১ এবং ২ মার্চ। সেই বৈঠকে ডাকা হবে আবাস যোজনার মোট ৩৩ লক্ষ ২৪ হাজার বঞ্চিতকেই। সেখানেই তাঁদের জানিয়ে দেওয়া হবে যে, কেন্দ্র সরকার এপ্রিল মাসের মধ্যে আবাসের খাতে টাকা না পাঠালে রাজ্য সরকারই ১ মে থেকে টাকা দেওয়া শুরু করে দেবে। প্রত্যেককে বাড়ি তৈরির জন্য ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। ১১ লক্ষ পরিবারকে এই টাকা দিতে ১৫০০০ কোটি টাকার প্রয়োজন। তাই ১ দফায় মে মাসে এই বিপুল টাকা দেওয়া হবে না। ৩ দফায় এই টাকা ছাড়া হবে। ১১ লক্ষ পরিবারকে সেই টাকা দিয়ে দেওয়ার পর বাকি ২২ লক্ষ পরিবারকে টাকা দেওয়ার কাজ শুরু করবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। সেই খাতে প্রয়োজন হবে আরও প্রায় ৩০ কোটি টাকা। সব মিলিয়ে বাংলার ৩৩ লক্ষ পরিবারের মাথার ওপর পাকা ছাদের ব্যবস্থা করে দিতে মোট ৪৫ হাজার কোটি টাকার ব্যবস্থা করতে হবে মমতার সরকারকে। এই টাকা কিন্তু কেন্দ্রের দেওয়ার কথা। কিন্তু কেন্দ্র তা না দেওয়ায় সেটা দিতে হচ্ছে রাজ্যকে। আর মমতার সরকার তা দেবেও।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

চাষের জমিতে বিদ্যুতের ছেঁড়া তার জড়িয়ে মৃত্যু দুই কৃষকের

১জুন শেষ দফার ভোটের দিন কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস জারি

ভক্তিনগর থানার পুলিশ গৃহস্থ বাড়ির ভেতর থেকে খোঁজ পেল জুয়ার বোর্ডের, গ্রেফতার ১১

রিমল ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে নদিয়াতে ব্যাপক ক্ষতি আখ ও কলা গাছের

কৃষ্ণগঞ্জে তিন দিন ধরে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন সীমান্তবর্তী বানপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র

রথযাত্রার আগেই মুখ্যমন্ত্রীর হাতেই উদ্বোধনের সম্ভাবনা দিঘার জগন্নাথ মন্দিরের

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর